Back

ⓘ অ্যান্টার্কটিকার ভূগোল




                                               

অ্যান্টার্কটিকার ভূগোল

অ্যান্টার্কটিকার ভূগোল প্রধানত কুমেরুর সন্নিকটে এর অবস্থান তথা, বরফের দ্বারা প্রভাবিত। অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশ পৃথিবীর দক্ষিণ গোলার্ধে অবস্থিত, এটি কুমেরুর চারদিকে অপ্রতিসমভাবে বিস্তৃত এবং এর সিংহভাগই কুমেরু বৃত্তের দক্ষিণে অবস্থিত। এটি বিশ্ব মহাসাগরের দক্ষিণাংশের জলরাশি দ্বারা পরিবেষ্টিত - মতান্তরে এটি দক্ষিণ মহাসাগর দ্বারা অথবা প্রশান্ত মহাসাগর, অতলান্ত মহাসাগর ও ভারত মহাসাগরের দক্ষিণভাগ দ্বারা বেষ্টিত। এর আয়তন ১.৪ কোটি বর্গ কিমি-র বেশি। অ্যান্টার্কটিকার প্রায় ৯৮% পৃথিবীর বৃহত্তম হিম আচ্ছাদন দ্বারা আবৃত, যাকে অ্যান্টার্কটিক হিম আচ্ছাদন বলা হয় এবং যা স্বাদুপানির বৃহত্তম আধার। গড়ে ১.৬ ক ...

                                               

কুমেরু জীবভৌগোলিক অঞ্চল

কুমেরু বা অ্যান্টার্কটিক জীবভৌগোলিক অঞ্চল পৃথিবীর আটটি জীবভৌগোলিক অঞ্চলের অন্যতম। এই অঞ্চলের অন্তর্ভুক্ত এলাকার মধ্যে রয়েছে অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশ এবং দক্ষিণ আটলান্টিক ও ভারত মহাসাগর। অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশ এতটাই ঠাণ্ডা যে লক্ষ লক্ষ বছর ধরে এখানে মাত্র ২ ধরনের সংবাহী উদ্ভিদ জন্মাতে পেরেছে। বর্তমানে এখানকার উদ্ভিদকূলের মধ্যে রয়েছে প্রায় ২৫০ ধরনের লাইকেন, ১০০ ধরনের মস, ২৫-৩০ ধরনের লিভারওয়ার্ট এবং প্রায় ৭০০ ধরনের স্থলজ ও জলজ শৈবাল প্রজাতি, যারা উন্মুক্ত পাথর ও মহাদেশীয় উপকূলের ভূমিতে জন্মায়। অ্যান্টার্কটিকার দুটি পুষ্পক উদ্ভিদ প্রজাতি, অ্যান্টার্কটিক হেয়ার গ্রাস ও অ্যান্টার্কটিক পার্ল ...

                                               

রানি মড ভূমি

রানী মড ভূমি নরওয়ের দাবিকৃত অ্যান্টার্কটিকার প্রায় ২৭ লক্ষ বর্গ কিলোমিটার আয়তন বিশিষ্ট ঔপনিবেশিক অঞ্চল। অঞ্চলটি ২০° পশ্চিম ও ৪৫° পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মাঝে, পশ্চিমে ব্রিটিশ অ্যান্টার্কটিক অঞ্চল ও পূর্বে অস্ট্রেলীয় অ্যান্টার্কটিক অঞ্চলের মধ্যে অবস্থিত। ২০১৫ সালে নরওয়ে রীত্যনুসারে এই অঞ্চল থেকে দক্ষিণ মেরু পর্যন্ত তাদের দাবী প্রতিষ্ঠা করে, তার পূর্ব পর্যন্ত এর অক্ষাংশীয় সীমানা সংজ্ঞায়িত করা ছিল না। পূর্ব অ্যান্টার্কটিকায় অবস্থিত এ অঞ্চলের আয়তন সমগ্র অ্যান্টার্কটিকার প্রায় এক-পঞ্চমাংশ। অঞ্চলটি নরওয়েজীয় রানী ওয়েলসের মড এর নামে নামকরণ করা হয়।

                                               

শীতল মেরু

দক্ষিণ গোলার্ধে শীতল মেরুর বর্তমান অবস্থান অ্যান্টার্কটিকায়, এটি রাশিয়ার পূর্বে সোভিয়েত অ্যান্টার্কটিক স্টেশান ভস্টক -এ ৭৮°২৮′ দক্ষিণ ১০৬°৪৮′ পূর্ব অবস্থিত। ২১ জুলাই, ১৯৮৩ সালে, এই স্টেশনে তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে −৮৯.২ °সে −১২৮.৬ °ফা। এটি পৃথিবীতে রেকর্ড হওয়া সর্বনিম্ন প্রাকৃতিকভাবে তাপমাত্রা। ভোস্টক স্টেশনটি সমুদ্রতল থেকে ৩,৪৮৮ মি ১১,৪৪৪ ফু উচ্চতায় অবস্থিত, সমুদ্রের মধ্যপন্থী প্রভাব থেকে নিকটতম সমুদ্র উপকূলে থেকে ১,০০০ কিমি দূরে সরানো এবং উচ্চ অক্ষাংশের ফলে প্রতি বছর প্রায় তিন মাস সিভিল মেরু রাত হয় মে মাসের প্রথম দিক থেকে জুলাইয়ের শেষের দিক পর্যন্ত, সমস্ত একত্রিত হয়ে এমন পরিব ...

                                               

অ্যান্টার্কটিকায় বসতি স্থাপন

অ্যান্টার্কটিকায় বসতি স্থাপন বলতে অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশে সপরিবারে স্থায়ী মানব বসতি গড়ার কথা বোঝানো হয়। বর্তমানে শুধু কিছুসংখ্যক বিজ্ঞানী ও গবেষক অস্থায়ীভাবে সেখানে বসবাস করেন। অ্যান্টার্কটিকা পৃথিবীর একমাত্র মহাদেশ যেখানে কোন আদিবাসী বাসিন্দা নেই। বর্তমানে সেখানে প্রায় ৭০ টি ঘাঁটিতে ৩০ টি দেশের বিজ্ঞানী ও কর্মচারী বসবাস করেন। অ্যান্টার্কটিকার আনুমানিক জনসংখ্যা গ্রীষ্মকালে ৪০০০ ও শীতকালে ১০০০ জন। এ পর্যন্ত অ্যান্টার্কটিকায় অন্তত ১১ বার মানবশিশু জন্মগ্রহণের দৃষ্টান্ত রয়েছে, ৮ টি আর্জেন্টিনার এসপেরাঞ্জ়া ঘাঁটিতে এবং ৩ টি চিলির প্রেসিদেন্তে এদুয়ার্দো ফ্রেই মন্তাল্ভা ঘাঁটিতে।

                                               

ভিনসন স্তূপপর্বত

ভিনসন স্তূপপর্বত বা ভিনসন ম্যাসিফ একটি স্তূপপর্বত যা দৈর্ঘ্যে ২১ কিমি, প্রস্থে ১৩ কিমি, এবং যা অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ। এটি ৪,৮৯২ মিটার উঁচু। পর্বতটি এলসওয়ার্থ ল্যান্ডের পর্বতমালার একটি অংশবিশেষ এবং যেখানে অ্যান্টার্কটিক উপদ্বীপের সাথে পশ্চিম অ্যান্টার্কটিকার সংযোগস্থলে অবস্থিত। কুমেরু হতে এর দূরতে ১,২০০ কিলোমিটার । ১৯৬০ সালে এসেই কেবল অ্যান্টার্কটিকার সর্বোচ্চ শৃঙ্গ হিসেবে এর মর্যাদা নিশ্চিত হয়। ভিনসন স্তূপপর্বত পশ্চিম অ্যান্টার্কটিকার অন্যান্য পর্বতের মত আগ্নেয় প্রকৃতির। ১৯৬৬ সালে এই পর্বতে প্রথম আরোহণ করা হয়। ২০০১ সালের একটি অভিযানে প্রথমবারের মত পূর্বদিক থেকে স ...