Back

ⓘ রঞ্জন রায় ড্যানিয়েল




                                     

ⓘ রঞ্জন রায় ড্যানিয়েল

রঞ্জন রায় ড্যানিয়েল নগরকোয়িলে জন্মগ্রহণকারী একজন ভারতীয় পদার্থবিদ এবং তিনি আর. আর. ড্যানিয়েল বা রাজন রায় হিসাবেও সমধিক পরিচিত। তিনি মহাজাগতিক রশ্মি এবং মহাকাশ পদার্থবিজ্ঞান বিষয়ক বিভিন্ন গবেষণা ও কাজ করেছিলেন। এছাড়াও তিনি টাটা মৌলিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী সভাপতি হিসেবে কাজ করেছিলেন। তিনি ১৯৭৬ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর উপদেষ্টা হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি ২৩ বছর যাবত হোমি জাহাঙ্গীর ভাভার সাথে মহাজাগতিক রশ্মি বিষয়ে কাজ করেছিলেন।

১৯৯২ সালে বিজ্ঞান ও প্রকৌশল ক্ষেত্রে অসাধারণ অবদানের জন্য তাকে ভারত সরকার পদ্মভূষণ পদকে ভূষিত করে।

                                     

1. প্রাথমিক জীবন এবং শিক্ষা

ড্যানিয়েল ১৯২৩ সালের ১১ আগস্টে ভারতের তামিলনাড়ু প্রদেশের কন্যাকুমারী জেলার নগরকোয়িল শহরে এম.এ. ড্যানিয়েল নাডার এবং থেরেসা চেল্লাম্মল ড্যানিয়েল দম্পত্তির ঘরে জন্মগ্রহণ করেন। পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে তিনি ছিলেন তৃতীয়। তিনি তার মাতৃশহর নগরকোইলের স্কট খ্রিস্টান উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা লাভ করেছিলেন। স্কট খ্রিস্টান কলেজ থেকে ১৯৩৯ সালে মাধ্যমিক স্কুল শেষ করার পরে, তিনি চেন্নাইয়ের মাদ্রাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের লয়োলা কলেজ থেকে পদার্থবিজ্ঞানে বিএসসি ডিগ্রি অর্জন করতে গিয়েছিলেন। ভারতীয় নোবেল বিজয়ী বিজ্ঞানী চন্দ্রশেখর ভেঙ্কট রামনের প্রভাবে পরবর্তী স্তরের শিক্ষাব্রত সমাপ্ত করতে বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতে আগ্রহী হয়েছিলেন।বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৪৬ সালে তিনি পদার্থবিজ্ঞান বিষয়ে এম.এসসি. ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন।

                                     

2. কর্মজীবন

১৯৪৭ সালে তিনি টাটা মৌলিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানে টাটা ইনস্টিটিউট অব ফান্ডামেন্টাল রিসার্চ একজন বিজ্ঞানী হিসাবে যোগদান করেছিলেন। সেখান থেকে তিনি ১৯৫১ সালে যুক্তরাজ্যে ব্রিস্টল বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা অধ্যয়ন করার যান। গবেষণার জন্য যুক্তরাজ্য গমনে ভারত সরকার তাকে পৃষ্ঠপোষকতা করেছিলো। তিনি নোবেল বিজয়ী বিজ্ঞানী সেসিল ফ্র্যাংক পাওয়েলের নেতৃত্বে এইচ. এইচ. উইলস পদার্থবিজ্ঞান গবেষণাগারে গবেষণা করেছিলেন। তিনি গবেষণার কাজে অতি উচ্চতায় মহাজাগতিক রশ্মি উন্মিলীত করতে পারমাণবিক ইমালসন ব্যবহার করেছিলেন। তিনি ১৯৫৩ সালের এপ্রিল মাসে ডোনাল্ড হিল পারকিন্সের অধীনে পিএইচডি গবেষণা সম্পন্ন করেছিলেন। ১৯৮৮ সালে অবসর গ্রহণের আগ পর্যন্ত তিনি টাটা মৌলিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন।

১৯৭৫ সালে তাকে ভারতীয় জাতীয় বিজ্ঞান একাডেমির আইএনএসএ ফেলো নির্বাচিত করা হয় এবং ১৯৯৯ সালে তাকে বৈনু বাপ্পু পুরস্কার প্রদান করা হয়েছিলো।

                                     

3. ব্যক্তিগত জীবন

তিনি ১৯৪৮ সালে জি.এম. স্যামুয়েল এবং অ্যানাম্মেল স্যামুয়েলের দ্বিতীয় কন্যা সেরেনা পদ্মিনীর সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। রঞ্জন-সেরেনা দম্পতির চারটি সন্তান রয়েছে। অবসর গ্রহণের পরে তিনি নগরকোয়িলে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। দীর্ঘ অসুস্থতার পরে ২০০৫ সালের ২৭শে মার্চ তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

                                     

4. কালানুক্রম

১৯২৩ - ভারতের নগরকোয়িলে শহরে জন্মগ্রহণ

১৯৪৬ - পদার্থবিজ্ঞান বিষয়ে এম.এসসি. ডিগ্রি অর্জন

১৯৪৭ - টাটা মৌলিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানে টাটা ইনস্টিটিউট অব ফান্ডামেন্টাল রিসার্চ যোগদান

১৯৪৮ - জি.এম. স্যামুয়েল এবং অ্যানাম্মেল স্যামুয়েলের দ্বিতীয় কন্যা সেরেনা পদ্মিনীর সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন

১৯৫১ - যুক্তরাজ্যের ব্রিস্টল বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা অধ্যয়ন শুরু করেন

১৯৫৩ - ডোনাল্ড হিল পারকিন্সের অধীনে পিএইচডি গবেষণা

১৯৭৫ - ভারতীয় জাতীয় বিজ্ঞান একাডেমির ফেলো নির্বাচিত

১৯৭৬ - প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন

১৯৮৮ - টাটা মৌলিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানে থেকে অবসর গ্রহণ

১৯৯২ - ভারত সরকার পদ্মভূষণ পদকে ভূষিত

১৯৯৯ - বৈনু বাপ্পু পুরস্কার প্রাপ্তি

২০০৫ - দীর্ঘকালীন অসুস্থতার পরে ২৭শে মার্চ মৃত্যুবরণ