Back

ⓘ খন্দকার গোলাম মোস্তফা




                                     

ⓘ খন্দকার গোলাম মোস্তফা

খন্দকার গোলাম মোস্তফা বাটুল বাংলাদেশের রংপুর জেলার রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক ও মুক্তিযোদ্ধা যিনি রংপুর-১১ আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন। তিনি রংপুর থেকে প্রকাশিত দৈনিক দাবানল পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক ছিলেন।

                                     

1. প্রাথমিক জীবন

খন্দকার গোলাম মোস্তফা ৩০সেপ্টেম্বর ১৯৪৩ রংপুরের মিঠাপুকুরের বালারহাট ইউনিয়নের বুজরুক ঝালাই গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মৃত মোজাম্মেল হক খন্দকার ছিলেন চিকিৎসক ও মাতা মৃত মাজেদা বেগম গৃহিণী। কোনাপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্তিপর ১৯৬০ সালে কৈলাশরঞ্জণ স্কুল থেকে মেট্রিকুলেশন পাস করেন। কারমাইকেল কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করে রংপুর সরকারি কলেজ থেকে স্নাতক পাশ করেন।

তার বড় ছেলে খন্দকার মোস্তফা মোর্শেদ ব্যবসায়ী, ছোট ছেলে খন্দকার মোস্তফা সরওয়ার সাংবাদিক, একমাত্র মেয়ে সোনিয়া মোস্তফা ২০ অক্টোবর ২০১৯ সালে মৃত্যুবরণ করেছেন।

                                     

2. রাজনৈতিক জীবন

খন্দকার গোলাম মোস্তফা স্কুল থেকেই সাংবাদিকতা ও রাজনৈতিক জীবন শুরু করেন। ১৯৬৫-১৯৬৬ মেয়াদে রংপুর সরকারি কলেজের জিএস নির্বাচিত হন তিনি। ৬ দফা আন্দোলন, ভাষা আন্দোলন, ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণসহ তৎকালীন সকল রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে তিনি সক্রিয় ভূমিকা রাখেন। মুক্তিযোদ্ধে তিনি সরাসরি অংশগ্রহণ করেন।

তিনি রংপুর থেকে ১৯৮১ সালে দৈনিক দাবানল ও সাপ্তাহিক মহাকাল প্রকাশনা শুরু করেন। ছিলেন রংপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি।

১৯৭৯ সালের দ্বিতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের প্রার্থী হিসেবে তিনি তৎকালীন রংপুর-১১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৮৬ সালে তিনি জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়ে রংপুর জেলার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ছিলেন রংপুর জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠাতা।

                                     

3. মৃত্যু

খন্দকার গোলাম মোস্তফা ৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ সালে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। রংপুরের মুন্সীপাড়া মুক্তিযোদ্ধা কবরস্থানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাকে সমাহিত করা হয়।