Back

ⓘ উয়েফা ইউরো ২০২০ নিলাম




                                     

ⓘ উয়েফা ইউরো ২০২০ নিলাম

উয়েফা ইউরো ২০২০-এর জন্য নিলাম হচ্ছে এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে ১৬তম ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য আয়োজক শহর নির্বাচন করা হয়েছিল। ২০১২ সালের ২১শে মার্চ তারিখে এই প্রক্রিয়াটি আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছিল এবং ২০১৩ সালের শেষার্ধে অথবা ২০১৪ সালের শুরুর দিকে আয়োজক শহর ঘোষণা করার অভিপ্রায় করা হয়েছিল। এককভাবে তুরস্কের আগ্রহ প্রকাশেপর স্কটল্যান্ড, প্রজাতন্ত্রী আয়ারল্যান্ড ও ওয়েলস এবং জর্জিয়া ও আজারবাইজানের একটি যৌথ দরপত্র প্রদান করা সত্ত্বেও ২০১২ সালের ৬ই ডিসেম্বর তারিখে উয়েফা ঘোষণা করেছে যে ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপের এই আসরটি ইউরোপের একাধিক শহরে আয়োজন করা হবে, যা এক অভূতপূর্ব সিদ্ধান্ত ছিল।

                                     

1. প্রাথমিক নিলাম প্রক্রিয়া

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হয়েছিল যে, এই আসরটি এক, দুই অথবা তিনটি দেশ মিলিয়ে আয়োজন করবে। একাধিক শহরে এই আসরটি আয়োজনের ক্ষেত্রে, আয়োজক শহরের দেশগুলো তাদের সীমানা ভাগাভাগি করে নেবে, যেন দর্শক সহজেই এক শহর হতে অন্য শহরে গিয়ে খেলা উপভোগ করতে পারে। ধারণা করা হয়েছে যে, এই আসরের আয়োজক নির্ধারণী নিলাম প্রক্রিয়া উয়েফা ইউরো ২০১৬-এর মতোই হবে। এই আসরের আয়োজক শহর হিসেবে নির্ধারণ হওয়ার প্রাথমিক শর্তগুলো নিম্নে উল্লেখ করা হলো:

  • ৪০,০০০ ধারণক্ষমতা বিশিষ্ট ৩টি স্টেডিয়াম
  • ৩০,০০০ ধারণক্ষমতা বিশিষ্ট ৪টি স্টেডিয়াম
  • ইউরো ২০১৬-এর জন্য স্টেডিয়ামের প্রয়োজনীয়তা নিম্নে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে, ইউরো ২০২০ প্রাথমিকভাবে নির্দিষ্ট করা ৯টির পরিবর্তে ১০টি স্টেডিয়াম ব্যবহার করবে, সুতরাং ২০২০ নিলাম-ডাক প্রক্রিয়াটি একটি নতুন সূত্র গ্রহণ করতে পারে।
  • ৫০,০০০ ধারণক্ষমতা বিশিষ্ট ২টি স্টেডিয়াম
  • শুধুমাত্র উয়েফাভুক্ত অথবা উয়েফা দ্বারা অনুমোদিত ৫৪টি ফুটবল রাষ্ট্রই এই আসরের আয়োজক হওয়ার যোগ্য।
  • দুটি রাষ্ট্রের সমন্বয়ে গঠিত যৌথ নিলাম-ডাক অনুমোদিত এবং ব্যতিক্রমী পরিস্থিতিতে তিন রাষ্ট্রের সমন্বয়ে গঠিত যৌথ নিলাম-ডাক বিবেচনা করা যেতে পারে।
                                     

1.1. প্রাথমিক নিলাম প্রক্রিয়া সময়সূচী

২০১২ সালের ২১শে মার্চ তারিখে, উয়েফা ঘোষণা করেছিল যে ২০১২ সালের ১৫ই মে তারিখের পূর্বে এই আসরের নিলামের প্রতি একাধিক আগ্রহ প্রকাশের ফলের নিলাম প্রক্রিয়াটি নিম্নের উল্লেখিত টেবিল অনুযায়ী নির্ধারিত হবে। দ্বিতীয় নিলাম-ডাক ছাড়াই, উয়েফা জানিয়েছে যে ১৫ই মে তারিখের মধ্যে আগ্রহী শহরগুলো আয়োজক হওয়ার শর্তপূরণ সাপেক্ষে নিজেদের "অভিপ্রায় পত্র" জমা দিতে পারবে। ২০১২ সালের ১৬ই মে তারিখে, উয়েফা ঘোষণা করেছে যেহেতু একাধিক শহর তাদের আগ্রহ জমা দিয়েছে, তাই এর ফলে আনুষ্ঠানিক নির্বাচন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে এই আসরের আয়োজক শহর নির্ধারণ করা হবে এবং উয়েফাভুক্ত ৫৪টি রাষ্ট্রের যে কেউ এই আসরের আয়োজক শহর হওয়ার জন্য যোগ্য, এমনকি তারা যদি নির্দিষ্ট সময়সীমার ১৫ই মে তারিখের মধ্যে আগ্রহ প্রকাশ না করে থাকে। ২০১২ সালের ৩০শে জুন উয়েফা কর্তৃক প্রকাশিত এই আসরের আয়োজক শহর নির্বাচন প্রক্রিয়ার সময়সূচী নিম্নে উল্লেখ করা হলো:

                                     

1.2. প্রাথমিক নিলাম প্রক্রিয়া আগ্রহ প্রকাশ

২০১২ সালের বসন্তে, তুরস্ক এককভাবে, স্কটিশ, আইরিশ ও ওয়েলশ এবং আজারবাইজানীয় ও জর্জীয় যৌথভাবে আনুষ্ঠানিকভাবে উয়েফার কাছে এই আসরটি আয়োজন করার আগ্রহ প্রকাশ করেছিল। ২০১২ সালের ১৫ই মে তারিখের মধ্যরাত পর্যন্ত আগ্রহ প্রকাশ করার সময়সীমা ছিল, তবে উয়েফা ঘোষণা করেছিল যে ১৬ই মে তারিখেও আরও নিলাম-ডাক গ্রহণ করা হবে।

বড় পরিসরে, আগ্রহ প্রকাশ করা শহরগুলো হতে একটি বেছে নেওয়াকে "হতাশাব্যস্ত গোষ্ঠী" হতে একটিকে বেছে নেওয়া হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছিল; বিশেষত উক্ত শহরগুলোর মধ্যে সমাদৃত তুরস্ক একই বছরে অনুষ্ঠিত ২০২০ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক তাদের বৃহত্তম শহর ইস্তাম্বুলে আয়োজন করার আগ্রহ প্রকাশ করেছিল, যা উয়েফা ইউরো ২০২০ আয়োজনের অন্তরায় হয়ে দাঁড়াতে পারে বলে শঙ্কা করা হয়েছিল। উয়েফার তৎকালীন সভাপতি মিশেল প্লাতিনি এর পূর্বে তুরস্ককে এই আসরটির আয়োজক করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বলে পরবর্তীতে জানা গেছে।

সেল্টিকের স্কটল্যান্ড, প্রজাতন্ত্রী আয়ারল্যান্ড এবং ওয়েলস নিলাম-ডাকটি একটি দেরিতে করা নিলাম-ডাক ছিল, যা তুরস্কেপর পুরো ইউরোপীয় অঞ্চল জুড়ে আগ্রহের অভাবের পরে উত্থাপিত হয়েছিল।

২০২০ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকের জন্য বাকুর সফল নিলাম-ডাকের জন্য আজারবাইজানদের অগ্রাধিকারের কারণে আজারবাইজানীয় ও জর্জীয় জোটকে কিছু লোক সন্দেহ করেছিল। ত্রি-মুখী আইরিশ, স্কটিশ এবং ওয়েলশ নিলাম-ডাকের ঘোষণার কয়েক ঘণ্টা পরে, ২০১২ সালের ১৫ই মে তারিখে, জর্জীয় ক্রীড়া মন্ত্রী ভ্লাদিমির ভার্জেলাশভিলি শুধুমাত্র ইউরো ২০২০-ই আয়োজন করা তার দেশের উদ্দেশ্য হিসেবে ঘোষণা করেছিলেন। নয় দিন পরে, আজারবাইজান উয়েফাকে জানিয়েছিল যে তারা ২০২০ সালের অলিম্পিক গেমসের নিলামের দাবিদার হিসেবে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির তালিকায় স্থান করে নিতে ব্যর্থ হওয়ার পরে তারা ২০২০ সালের ইউরোতে জর্জিয়ার সাথে যৌথভাবে আয়োজক হওয়ার পরিকল্পনা করেছিল।

অন্যান্য বেশ কয়েকটি জাতি এই আসরের আয়োজক শহর হওয়ার জন্য কম প্রতিশ্রুতিবদ্ধ প্রচেষ্টা করেছিল, কিন্তু কখনও দৃঢ়ভাবে আগ্রহের ঘোষণা দেয়নি। যার মধ্যে বেলজিয়াম, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা – ক্রোয়েশিয়া – সার্বিয়ার যৌথ নিলাম-ডাক, বুলগেরিয়া বা হাঙ্গেরির পাশাপাশি রোমানিয়ার একটি প্রস্তাব এবং জার্মানি এবং নেদারল্যান্ডসের একমাত্র নিলাম-ডাক ছিল।



                                     
  • ট র ন ম ন ট উয ফ ইউর ফ ফ ব শ বক প, উয ফ ইউর ফ ফ ব শ বক প এব উয ফ ইউর ত অ শগ রহণ কর ছ ন স ল র উয ফ ইউর র প রথম

Users also searched:

...