Back

ⓘ ঘূর্ণন




                                               

ঘানি

দেশী তেল পেশাই যন্ত্রকে ঘানি, ঘানিযন্ত্র, ঘানিকল বা ঘানিগাছ বলা হয়। অর্থাৎ যে যন্ত্রে সর্ষে বা সেরকম কোনো তৈলবীজকে নিষ্পেষণ করে তেল ও খোল আলাদা করা হয়। "তৈল নিষ্পেষণ" একটি প্রাচীন জীবিকা। এই পেশার লোকেদের বলা হয় কলু। ঘানি কাজ করে ঘূর্ণন দ্বারা। সাধারণতঃ ঘানি টানবার জন্য কলু বলদ ব্যবহার করে। তাই থেকে "কলুর বলদ" বাগধারাটি এসেছে। অর্থাৎ সারাদিন একটানা ঘানি টানা যার কাজ। কলুর বলদের অনেক সময় চোখ বাঁধা থাকে। ঘানি টানা খুব পরিশ্রমের কাজ। তাই আগেকার দিনে সশ্রম কারাদন্ডের বন্দীদের দিয়ে ঘানি ঘোরানো হত। তাই থেকে জেলে যাওয়াকেই অনেক সময় জেলের ঘানি ঘোরানো বলা হয়।

ঘূর্ণন
                                     

ⓘ ঘূর্ণন

ঘূর্ণন বলতে কোনও বিন্দুকে বা কেন্দ্রকে ঘিরে কোনও বস্তুর বৃত্তাকার গতিকে বোঝায়। একটি ত্রিমাত্রিক বস্তু অসীম সংখ্যক কাল্পনিক রেখাকে ঘিরে ঘূর্ণন সম্পন্ন করতে পারে; এগুলিকে ঐ বস্তুর ঘূর্ণন অক্ষ বলে। যদি অক্ষরেখাটি বস্তুটির ভরকেন্দ্র দিয়ে অতিক্রম করে, তাহলে বলা হয় যে বস্তুটি নিজ অক্ষের উপরে ঘূর্ণনশীল। যেমন পৃথিবীর ভিতর দিয়ে উত্তর-দক্ষিণ মেরু বরাবর একটি সরলরেখা কল্পনা করা হয়, যাকে কেন্দ্র করে পৃথিবী পূর্ব-পশ্চিমে ঘোরে। একে পৃথিবীর অক্ষ বা মেরুরেখা বলে। পৃথিবী তার অক্ষে সম্পূর্ণ একবার ঘুরতে ২৪ ঘণ্টা সময় নেয়।

যদি বস্তুটি বহিঃস্থ কোনও বিন্দুকে ঘিরে বৃত্তাকার গতিপথে ভ্রমণ করে, তাহলে সেটিকে আবর্তন বা কাক্ষিক আবর্তন বলে। যেমন পৃথিবীকে সূর্যের চারপাশে আবর্তন করছে।

যে রেখা কোনো সুষম বস্তু অথবা চিত্রকে দুটি প্রতিসম অংশে বিভক্ত করে তাকে অক্ষ বলে। যেমন - বৃত্তের ব্যাস।