Back

ⓘ কাঠিন্য মাত্রা




কাঠিন্য মাত্রা
                                     

ⓘ কাঠিন্য মাত্রা

কাঠিন্য মাত্রা কোন বস্তু কি পরিমাণ শক্ত তা পরিমাপের একটি স্কেহল কাঠিন্য মাত্রা। কাঠিন্য মাত্রার প্রবর্তকের নামানুসারে এটিকে মোজএর মাত্রা বা মোজ স্কেলও বলা হয়ে থাকে।

এই মাত্রাটি প্রণয়ন করা হয়েছে কোন বস্তু অন্য কোন বস্তুতে আঁচড় কাটতে পারে, তার ভিত্তিতে। মোজএর কাঠিন্য মাত্রার কোনো একটি পদার্থ ক্রমানুসারে পূর্ববর্তী সব পদার্থের উপরে আঁচড় কাটতে পারে।

ট্যাজিকাফ্লুএফেকোটোকোডা= ১. ট্যালক ২. জিপসাম ৩. ক্যালসাইট ৪. ফ্লুওরাইট ৫. এপিটাইট ৬. ফেল্ডস্পার ৭. কোয়ার্টজ ৮. টোপাজ ৯. কোরান্বাডাম ১০. ডায়মন্ড

কাঠিন্য মাত্রার ১০টি পদার্থের তালিকা নিম্নের প্রদত্ত হলো।

এতে সবচেয়ে নরম হল ট্যালক এবং সবচেয়ে কঠিন হল ডায়মন্ড। আমাদের হাতের নখের কাঠিন্য হল ২।৫।