Back

ⓘ বিষয়শ্রেণী:১৯১৩-এ জন্ম




                                               

আত্তিয়া হোসেন

আত্তিয়া হোসেন একজন ব্রিটিশ-ভারতীয় ঔপন্যাসিক, সাহিত্যিক, লেখক, সম্প্রচারক, সাংবাদিক এবং অভিনেতা ছিলেন। তিনি ইংরেজিতে লিখতেন, তার মাতৃভাষা উর্দুর সঙ্গে সেটি অনুরণিত হত। যদিও তিনি শুধুমাত্র দুটি কথাসাহিত্যের বই প্রকাশ করেছেন, উভয়ই প্রশংসিত হয়েছে। বই দুটি হল আধা-আত্মজীবনীমূলক সানলাইট অন এ ব্রোকেন কলাম এবং ফিনিক্স ফ্লেড নামে ছোট গল্পের একটি সংগ্রহ। বিংশ শতাব্দীর শেষে আধা-নির্বাসনে, ইংল্যান্ডে তার কর্মজীবন শুরু হয়েছিল, ঔপনিবেশিক সাহিত্যের পরে তার অবদান স্বীকার করে, নতুন প্রজন্মের মন্তব্যকারী এবং যোগাযোগকারীদের সঙ্গে তার অনুরণন অব্যাহত ছিল। অনিতা দেশাই, বিক্রম শেঠ, আমির হুসেন এবং কামিলা শামস ...

                                               

অজয় হোম

অজয় হোমের জন্ম ১৯১৩ সালে কলকাতায়। পিতার নাম গগন চন্দ্র হোম। দাদা অমল হোম রবীন্দ্রনাথের স্নেহধন্য ও ক্যালকাটা মিউনিসিপ্যাল গেজেটের সম্পাদক ছিলেন। অজয় ছোট থেকেই পশু-পাখির প্রতি অনুরাগী ও কৌতূহলী ছিলেন তিনি। বিদ্যাসাগর কলেজ থেকে তিনি বিজ্ঞানে স্নাতক হন।

                                               

অসিতবরণ মুখোপাধ্যায়

অসিতবরণের জন্ম বৃটিশ ভারতের কলকাতায় ১৯১৩ খ্রিস্টাব্দের ১৯ নভেম্বর। জ্ঞানপ্রকাশ ঘোষের কাছে তবলা বাজানো শিখে তিনি তবলাবাদক হিসাবে কলকাতা বেতারে এবং পরে গ্রামোফোন কোম্পানিতে চাকরি করেন। তাঁর সুন্দর কণ্ঠের জন্য তিনি মাঝে মাঝে গানও গাইতেন। নিখিল ভারত সংগীত সম্মেলনে তাঁর তবলা-বাজানা শুনে পাহাড়ী সান্যাল তাঁর সাথে আলাপ করে তাঁকে নিউ থিয়েটার্সে নিয়ে আসেন অভিনয়ের জন্য। তার আগেই অবশ্য তবলা-বাজনা দিয়ে চলচ্চিত্র জগতের সঙ্গে সম্পর্কের সূচনা হয়েছিল। প্রথম নায়ক হিসাবে অভিনয় করেন "কাশীনাথ" ছবিতে। হিন্দি "পরিণীতা" ছায়াছবি থেকে তিনি নায়ক হিসাবে সর্বভারতীয় স্বীকৃতি পান,আর সারা ভারতে তাঁর জনপ্রিয়ত ...

                                               

আদেল উদ্দিন আহমেদ

আহমদ ১৯১৩ সালের ১লা মার্চ কালিনগর, কালকিনি, মাদারীপুর, পূর্ববাংলা, ব্রিটিশ ভারতে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৩৫ সালে তিনি রাজেন্দ্র কলেজ থেকে স্নাতক হন। তারপরে তিনি রিপন কলেজে আইন বিষয়ে পড়াশোনা করেন এবং ১৯৪২ সালে স্নাতক হন।

                                               

আবদুল্লাহ বিন আলি

আবদুল্লাহ বিন আলি ছিলেন ইরাকের বাদশাহ গাজির চাচাত ভাই ও শ্যালক। গাজির পুত্র দ্বিতীয় ফয়সালের অভিভাবক হিসেবে তিনি ১৯৩৯ সালের ৪ এপ্রিল থেকে ১৯৫৩ সালের ২৩ মে পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৪৩ সাল থেকে তিনি ইরাকের যুবরাজের পদবী ধারণ করেন।

                                               

আয়েশা আবদুর রহমান

তিনি দমিয়াত প্রদেশের দামিয়েত্তা শহরে জন্মগ্রহণ করেন। দশ বছর বয়সে তার নিরক্ষর মা তাকে স্কুলে পাঠান, যখন তার বাবা ভ্রমণে ছিলেন। তার বাবার অভিযোগ সত্ত্বেও তাকে তার মা পরবর্তীতে উচ্চশিক্ষার জন্যে আল মানসুরাতে পাঠান। এরপর আয়েশা কায়রো বিশ্ববিদ্যালয়ে আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিষয়ে পড়াশুনা করেন, সেখান থেকে তিনি ১৯৩৯ সালে স্নাতক এবং ১৯৪১ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন। ১৯৪২ সালে আয়েশা মিসরের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে আরবী সাহিত্য শিক্ষার পরিদর্শক নিযুক্ত হন। তিনি ১৯৫০ সালে কৃতিত্বের সাথে পিএইচডি ডিগ্রী লাভ করেন এবং আইন শামস বিশ্ববিদ্যালয়ের মহিলা কলেজে আরবি সাহিত্যের অধ্যাপক নিযুক্ত হন। তি ...

                                     

ⓘ ১৯১৩-এ জন্ম

  • রস য নব দ য ন ইট এইচ জ র খ - এর শ ক ষ র থ এব জ র খ ব শ বব দ য লয - এ অধ য পক ত ন স ল রস য ন ন ব ল প রস ক র ল ভ কর ন ত ন ই প রথম অজ ব রস য নব দ
  • থ ওড র আলব র খ ট অ য ড ইন ক ল বস ফ ব র য র - অক ট বর একজন জ র ম ন - স ইস অণ জ বব জ ঞ ন ছ ল ন ত ন ম লত স ক র মক ব য ধ ন য ত র ক জ র
  • আন তর জ ত ক ক র ক ট র ছ ল ন দক ষ ণ আফ র ক ক র ক ট দল র অন যতম সদস য ছ ল ন ত ন স ল স ক ষ প ত সময র জন য দক ষ ণ আফ র ক র পক ষ আন তর জ ত ক ক র ক ট অ শগ রহণ
  • জ - আলফ র দ ভ ল - ম র ড স ম বর - নভ ম বর ছ ল ন একজন ফর স অভ ন ত ল খক, পর চ লক ও ভ স কর ত ন ও - এর দশক ফ র ন স র সবচ য
  • হয ছ স ল ত ন কল ম ব য ব শ বব দ য লয তত ত ব য পদ র থব জ ঞ ন র আর ন স ট ক ম পটন অ য ড মস প রভ ষক হ স ব আমন ত র ত হন ভ ন র জন ম প র ব প র শ য র
  • প স সরক র জন ম ফ ব র য র ম ত য জ ন য র ভ রতবর ষ র ব খ য ত জ দ কর ত র প র ন ম প রত ল চন দ র সরক র ত ন অন যতম একজন আন তর জ ত ক
  • ল ইসভ ল র ইস ট গ র স ট র ট জন মগ রহণ কর ন ত র প ত জ স ফ জন ড ন - একজন আইর শ - ম র ক ন ইঞ জ ন র ন ক র প রক শল ও পর দর শক ছ ল ন, য ন ম র ক ন
  • আন তর জ ত ক ক র ক ট র ছ ল ন দক ষ ণ আফ র ক ক র ক ট দল র অন যতম সদস য ছ ল ন ত ন স ল স ক ষ প ত সময র জন য দক ষ ণ আফ র ক র পক ষ আন তর জ ত ক ক র ক ট অ শ
                                               

ঈশ্বরভাই চাভদা

ঈশ্বরভাই চাভদা গুজরাতের ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের নেতা ছিলেন। তিনি আনন্দ লোকসভা কেন্দ্র থেকে একাধিকবার লোকসভায় নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০০৭ সালে তিনি মারা যান।

                                               

চৌধুরী দিগম্বর সিংহ

চৌধুরী দিগম্বর সিংহ উত্তরপ্রদেশ রাজ্য মথুরা থেকে ৩য় লোকসভা সদস্য ছিলেন। তিনি একই আসন থেকে তৃতীয়, চতুর্থ, ৭ম লোকসভায় নির্বাচিত হয়েছিলেন।

                                               

রুথ সায়মন্স

রুথ এভলিন মার্টিন একজন নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটার ছিলেন। তিনি তাদের প্রথম মহিলা টেস্ট ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক ছিলেন, যা তারা হেরেছিল। তিনি ২০০৪ সালে ক্রাইস্টচার্চে মারা যান।

                                               

সি এইচ শিবঘাতুল্লাহ

সি এইচ শিবঘাতুল্লাহ একজন ভারতীয় রাজনীতিবিদ যিনি ১৯৫১ থেকে ১৯৫২ সাল পর্যন্ত মাদ্রাজের মেয়র হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি মাদ্রাজ ক্রিশ্চিয়ান কলেজের প্রাক্তন ছাত্র ছিলেন।

Users also searched:

...