Back

ⓘ দিল্লিতে কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক মহামারী




দিল্লিতে কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক মহামারী
                                     

ⓘ দিল্লিতে কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক মহামারী

ভারতের দিল্লি রাজ্যে ২০১৯-২০ করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারীতে প্রথম সংক্রমণের ঘটনাটি ২০২০ সালের ২ মার্চ ঘটেছিল এবং দিল্লি সহ ভারতবর্ষ লকডাউনে রয়েছে। ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ অনুসারে মোট সংক্রামিত ব্যক্তির সংখ্যা ২,৫৩,০৭৫ জন যার মধ্যে ৫,০৮৭ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং ২,১৬,৪০১ জন সুস্থ হয়ে গেছে।

২০২০ সালের ২২ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দিল্লি সহ ভারতের ৭৫ টি জেলা সহ জনতা কার্ফু নামক ১৪ ঘণ্টার স্বেচ্ছা কার্ফু পালন করেছিল। এরপর প্রধানমন্ত্রী ২৪ মার্চ থেকে ২১ দিন দেশব্যাপী লকডাউন করার নির্দেশ দেন।

উত্তরপ্রদেশ এবং বিহার থেকে কয়েক হাজার অভিবাসী ২০২০ সালের ২৯ মার্চ আনন্দ বিহার বাস স্টেশনে জড়ো হয়েছিল।

নিজামুদ্দিন এলাকার আলমী মারকাজ বাংলেওয়ালি মসজিদে এক ধর্মীয় সমাবেশে ২০০ জনেরও বেশি লোক, সংক্রামিত ব্যক্তিদের সাথে যোগাযোগের সন্দেহের পরে তাদের সম্ভাব্য সংক্রমণ নিস্ক্রিয়করণের জন্য পৃথক করা হয়েছিল। লকডাউনের সময় মারকাজে বিদেশীসহ ১৩০০ তাবলিগকে আটকে থাকতে দেখা গেছে।" ২০২০ সালের ২০ এপ্রিল, দিল্লি হাইকোর্ট, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী ও সরকারের বিরুদ্ধে এক আবেদনকারীর আবেদন খারিজ করে দিয়েছে যাতে সে জানিয়েছিল যে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী এবং সরকার, কোভিড -১৯ এর কিছু ঘটনা "তাবলিগ" এর অধীনে শ্রেণিবদ্ধকরণ করে ডাব্লুএইচওর নির্দেশিকা লঙ্ঘন করছে তাই দিল্লি সরকারকে থেকে এই শ্রেণিবদ্ধ্ধকরণ করা থেকে বিরত করতে হবে। ২০২০ সালের ২৮ মার্চ লকডাউন এবং যানবাহনের চলাচলে হ্রাসের পরে দিল্লির বায়ু মানের সূচকটি উন্নত হয়েছিল বলে জানা গেছে।

                                     

1. সরকারের প্রতিক্রিয়া

বন্ধ এবং বিধিনিষেধ

১২ মার্চ, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল কোভিড -১৯ কে দিল্লিতে মহামারী হিসাবে ঘোষণা করেছিলেন। এই ঘটনাটি, মহামারী রোগ আইন ১৮৯৭ কে এই অঞ্চলটির জন্য প্রয়োগ যোগ্য করেছিল। স্কুল, কলেজ ও সিনেমা হলগুলি ৩১ মার্চ অবধি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। অফিস এবং শপিংমল সহ অন্যান্য পাবলিক জায়গাগুলি বাধ্যতামূলকভাবে জীবাণুমুক্ত করতে হয়েছিল। কেজরিওয়াল জনগণকে জনসমাবেশ থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন।.

ভ্রমণ এবং প্রবেশের সীমাবদ্ধতা

মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ঘোষণা অনুসারে ২০২০ সালের ২৩ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দিল্লি আসার সমস্ত অভ্যন্তরীণ / আন্তর্জাতিক ফ্লাইট স্থগিত করা হয়েছিল।