Back

ⓘ বিষয়শ্রেণী:মুঘল সম্রাট




                                               

বাহাদুর শাহ জাফর

বাহাদুর শাহ জাফর ছিলেন মুঘল সাম্রাজ্যের ১৯তম এবং শেষ সম্রাট। তিনি পূর্বসূরি ও তার বাবা মুঘল সম্রাট দ্বিতীয় আকবরের ২য় সন্তান। সিপাহী বিপ্লবের শেষে ১৮৫৮ খ্রিষ্টাব্দে ব্রিটিশ শাসকেরা তাকে ক্ষমতাচ্যুত করে ও রেঙ্গুনে নির্বাসনে পাঠায়, এবং সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

                                               

আওরঙ্গজেব

আওরঙ্গজেব, আল-সুলতান আল-আজম ওয়াল খাকান আল-মুকাররম আবুল মুজাফফর মুহি উদ-দিন মুহাম্মদ আওরঙ্গজেব বাহাদুর আলমগীর I, বাদশা গাজী, প্রথম আলমগীর নামেও পরিচিত, ১৬৫৮ খ্রিষ্টাব্দ থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত ৪৯ বছর মুঘল সাম্রাজ্যের শাসক ছিলেন প্রকৃতপক্ষে তিনি প্রায় সম্পূর্ণ ভারতীয় উপমহাদেশ শাসন করেছিলেন, তার ফতোয়া-ই-আলমগীরীর শরিয়াহ আইন এবং ইসলামি অর্থনীতির মাধ্যমে। তিনি ছিলেন বাবর, হুমায়ুন, আকবর, জাহাঙ্গীর এবং শাহ জাহানের পরে ষষ্ঠ মুঘল সম্রাট। তিনি সম্রাট শাহজাহানের পুত্র। তিনি ইংরেজদের পরাজিত করেছিলেন ইঙ্গ-মুঘল যুদ্ধে। আওরঙ্গজেব একজন হাফিজ ছিলেন এবং সম্রাট হওয়া সত্ত্বেও তিনি সাধারণ জীবন যাপন কাটিয ...

                                               

আকবর

জালালুদ্দিন মুহাম্মদ আকবর ভারতবর্ষের সর্বশ্রেষ্ঠ শাসক। পৃথিবীর ইতিহাস এ মহান শাসকদের অন্যতম মহামতি আকবর নামেও পরিচিত। তিনি মুঘল সাম্রাজ্যের তৃতীয় সম্রাট। পিতা সম্রাট হুমায়ুনের মৃত্যুপর ১৫৫৬ সালে মাত্র ১৩ বছর বয়সে আকবর ভারতের শাসনভার গ্রহণ করেণ। বৈরাম খানের তত্ত্বাবধানে তিনি সমগ্র দক্ষিণ এশিয়ায় সাম্রাজ্য বিস্তার করতে থাকেন। ১৫৬০ সালে বৈরাম খাঁকে সরিয়ে আকবর নিজে সকল ক্ষমতা দখল করেন। কিন্তু আকবর ভারতবর্ষ ও আফগানিস্তানে তার সাম্রাজ্য বিস্তার চালিয়ে যান। ১৬০৫ সালে তার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত প্রায় সমস্ত উত্তর ভারত তার সাম্রাজ্যের অধীনে চলে আসে। আকবরের মৃত্যুপর তার পুত্র সম্রাট জাহাঙ্গীর ভারত ...

                                               

আকবর শাহ দ্বিতীয়

দ্বিতীয় আকবর, যিনি দ্বিতীয় আকবর শাহ নামেও পরিচিত, তিনি ছিলেন ভারতের আঠারোতম মুঘল সম্রাট। তিনি ১৮০৬ থেকে ১৮৩৭ সাল পর্যন্ত রাজত্ব করেছিলেন। তিনি দ্বিতীয় শাহ আলমের দ্বিতীয় পুত্র এবং দ্বিতীয় বাহাদুর শাহের পিতা। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির মাধ্যমে ভারতে ক্রমবর্ধমান ব্রিটিশ প্রভাবের কারণে আকবরের সামান্য শক্তি ছিল। তিনি রাম মোহন রায়কে ব্রিটেনে রাষ্ট্রদূত হিসাবে প্রেরণ করেছিলেন এবং তাঁকে রাজার উপাধি দিয়েছিলেন। তার শাসনামলে, ১৮৩৫ সালে, ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি নিজেকে মুঘল সম্রাটের বিষয় বলা এবং তাঁর নামে মুদ্রা জারি বন্ধ করে দেয়। এই প্রভাবটির জন্য কোম্পানির কয়েনগুলিতে পার্সিয়ান লাইনগুলি মুছে ফে ...

                                               

জাহাঙ্গীর

নুরুদ্দীন মহম্মদ সেলিম বা জাহাঙ্গীর ছিলেন মুঘল সাম্রাজ্যের চতুর্থ সম্রাট। তিনি ১৬০৫ সাল থেকে তার মৃত্যু অবধি ১৬২৭ সাল পর্যন্ত রাজত্ব করেন। তাঁর রাজকীয় নামটির অর্থ বিশ্বের বিজয়ী, বিশ্ব-বিজয়ী।

                                               

জাহানদার শাহ

জাহানদার শাহ মুঘল সম্রাট ছিলেন, যিনি ১৭১২ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ১৭১৩ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত স্বল্প সময়ের জন্য হিন্দুস্তান শাসন করেছিলেন। তিনি সম্রাট বাহাদুর শাহ প্রথম এর পুত্র ছিলেন। ফেব্রুয়ারি ২৭, ১৭১২ খ্রিষ্টাব্দে পিতার মৃত্যুপর তিনি এবং তার ভাই আজিম-উস-শান নিজেদের সম্রাট হিসেবে দাবি করেন এবং ক্ষমতার উত্তরাধিকারী হওয়ার জন্য বিবাদে লিপ্ত হন। ১৭১২ খ্রিষ্টাব্দের মার্চ ১২ তারিখে আজিম-উস-শানকে হত্যা করা হলে জাহানদার আরও ১১ মাস শাসন করতে সক্ষম হন।

                                     

ⓘ মুঘল সম্রাট

  • পড ব র ট শ শ সকর কর ত ক স ল সর বশ ষ ম ঘল সম র ট দ ব ত য ব হ দ র শ হ ক ক ষমত চ য ত কর র ম ধ যম ম ঘল স ম র জ য র অবস ন ঘট ম ঘলর একই স থ ত ম র
  • হন ম ঘল সম র টর ম সল ম ছ ল ন তব জ বন র শ ষ র দ ক শ ধ ম ত র সম র ট আকবর ও ত র প ত র সম র ট জ হ ঙ গ র নত ন ধর ম দ ন - ই - ইল হ র অন সরণ করত ন ম ঘল স ম র জ য
  • ম হ ম মদ ইব র হ ম আগস ট জ ন য র চত র দশ ম ঘল সম র ট ছ ল ন ত ন ছ ল ন র ফ উল - দ রজ ত এব র ফ উদ - দ লত র ভ ই স ইদ ভ ত গণ দ ব র ন ক স য র র
  • র জ ত ন ছ ল ন ব বর, হ ম য ন, আকবর, এব জ হ ঙ গ র র পর পঞ চম ম ঘল সম র ট ত ন সম র ট জ হ ঙ গ র এব ত র হ ন দ র জপ ত স ত র ত জ ব ব ব লক স ম ক ন - র
  • স ল র অক ট বর বলখ ও ব দ খশ ন থ ক ম ঘল স ন য প রত য হ র র মধ য দ য এই য দ ধ র সম প ত ঘট ম ঘল সম র ট শ হ জ হ ন র মধ য এশ য ব জয র আক ঙ ক ষ
  • খ র ষ ট ব দ স ঘট ত হয শ ব জ র প রত ষ ঠ ত ম র ঠ অধ ক ত ব জ প র অঞ চল ম ঘল সম র ট ঔরঙ গজ ব এর আক রমণ স ল দ ক ষ ণ ত য ম লভ ম য দ ধ শ র হয ছ ল
  • ত ল হত, ম ঘল চ ত রশ ল প এক ষ ত র প র ণ ও গ ছপ ল র ছব গ ল আরও স পষ ট ও ব স তবসম মতভ ব উপস থ পন কর হয ছ ৷ ম ঘল স ম র জ য র প রত ষ ঠ ত সম র ট ব বর র
  • ম ঘল - ই - আজম হ ন দ म ग ल - ए - आज म ম গল সম র ট স ল ম ক ত প র প ত একট ঐত হ স ক র ম ন ট ক ভ রত য চলচ চ ত র য র পর চ লন য ছ ল ন ভ রত র ব খ য ত চলচ চ ত রক র
  • শ হ স জ ও এখ ন এস ব স করত ন ব ভ ন ন ঐত হ স ক গ রন থ হত জ ন য য ম ঘল সম র ট শ হজ হ ন র প ত র শ হ স জ ব ল র স ব দ র থ ক কল - খ র মত ন ত
তৃতীয় শাহজাহান
                                               

তৃতীয় শাহজাহান

তৃতীয় শাহজাহান, মুহি-উল-মিল্লাত নামেও পরিচিত, ছিলেন একজন মুঘল সম্রাট। তিনি সম্রাট আওরঙ্গজেবের কনিষ্ঠ পুত্র মুহাম্মাদ কাম বকশের জ্যেষ্ঠ পুত্র মুহি-উস-সুন্নাতের পুত্র। তিনি ১৭৫৯ সালে ইমাদ-উল-মুলকের সাহায্যে মুঘল সিংহাসনে আরোহণ করেন। তিনি পরবর্তীতে মারাঠা সরদারদের দ্বারা সিংহাসনচ্যুত হন।

নিকুসিয়ার
                                               

নিকুসিয়ার

নিকুসিয়ার মোহাম্মদ ছিলেন ত্রয়োদশ মুঘল সম্রাট। তিনি ৪০ বছরের বেশি বয়সে ১৭১৯ খ্রিষ্টাব্দে সিংহাসনে বসেন। স্থানীয় মন্ত্রী বীরবল তাকে পুতুলের মত ব্যবহার করতেন এবং তাকে সম্রাট হিসেবে ঘোষণা করেছিল এই শর্তে যে তিনি সারা জীবন হারেমের ভিতরে কাটাবেন। তাকে সাইদ ভাতৃগণ ব্যাঙ্গ করতো এবং পুনরায় তাকে কারাগারে নিক্ষেপ করেছিলেন। তিনি ১৭২৩ খ্রিষ্টাব্দে ৪৩ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেছিলেন।

মুহাম্মদ ইব্রাহিম (১৩তম মুঘল সম্রাট)
                                               

মুহাম্মদ ইব্রাহিম (১৩তম মুঘল সম্রাট)

মুহাম্মদ ইব্রাহিম চতুর্দশ মুঘল সম্রাট ছিলেন। তিনি ছিলেন রাফি উল-দারজাত এবং রাফি উদ-দৌলতের ভাই। সাইদ ভাতৃগণ দ্বারা নিকুসিয়ারের হত্যার পরে তাকে সিংহাসনে বসানো হয়। মুহাম্মদ শাহ নিজামের ক্যাম্পে যোগ দেওয়ার পরে তিনিই ছিলেন সাইদদের পরবর্তী দাবিদার। সাইদদের পরাজয়ের পরে তাকে হারেমে ফিরিয়ে আনা হয়েছিল। তিনি ১৭৪৬ খ্রিষ্টাব্দে মৃত্যুবরণ করেন।

রাফি উদ-দারাজাত
                                               

রাফি উদ-দারাজাত

রাফি উল-দারজাত, আজিম উস শানের ভাই রাফি-উস-শানের সর্বকনিষ্ঠ পুত্র, যিনি একাদশ মুঘল সম্রাট ছিলেন। তিনি ফেব্রুয়ারি ২৮, ১৭১৯ খ্রিষ্টাব্দে রাজ্যের উত্তরাধিকারী হন, তাকে সাইদ ভাতৃগণ বাদশাহ বলে ঘোষণা দেন।