Back

ⓘ কাসিম খান চিশতি




                                     

ⓘ কাসিম খান চিশতি

কাসিম খান চিশতী সম্রাট জাহাঙ্গীরের রাজত্বকালে বঙ্গ দেশের সুবেদার ছিলেন। তিনি ছিলেন ইসলাম খান চিশতীর উত্তরসূরী এবং ছোট ভাই। তিনি হলেন মুহতাশিম খানের বংশধর ।

                                     

1. ইতিহাস

কাসিম খান প্রতিবেশী অঞ্চলগুলির বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি ব্যর্থ সামরিক অভিযানের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। ১৬১৫ সালে তিনি বরং অভিযানের নেতৃত্ব দেন এবং স্থানীয় সরদারদের বড়-ভূঁইয়াদের - বীরভূম, শামস খান, বাহাদুর খান এবং বীরবাহু, যথাক্রমে বীরভূম, পাচেত, হিজলি এবং চন্দ্রকোনার জমিদারদের বিরুদ্ধে নিয়ন্ত্রণ নেন। তাঁর শাসনকালে তিনি আরাকানিজ এবং পর্তুগিজ বাহিনীর সম্মিলিত আক্রমণের মুখোমুখি হন। এই বাহিনীর মধ্যে দ্বন্দ্বের কারণে, কাসিম খান এই অভিযানটি ব্যর্থ করতে পেরেছিলেন। আসামের বিরুদ্ধে তিনি আরেকটি সামরিক উদ্যোগকে ব্যর্থ করেছিলেন।

একেপর এক অভিযানে অসমর্থতার কারণে, তিনি বাংলার গভর্নর পদ থেকে সরে আসেন এবং ১৬১৭ সালে ইব্রাহিম খান ফাত-ই-জঙ্গ তার স্থলাভিষিক্ত হন।

                                     

2. অভিযান

১৬১৩ সালে কাশিম খানকে নিয়োগ করা হলেও তিনি ১৬১৪ সালের মে মাসে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। তিনি প্রতিবেশী অঞ্চলের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি ব্যর্থ সামরিক অভিযান পরিচালনা করেছিলেন। ১৬১৬ সালে তিনি বীরভুম, পাচেট, হিজলি ও চন্দ্রকোনার জমিদার, বীর হামির, শামস্ খান, বাহাদুর খান ও বীর বাহুর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক অভিযান প্রেরিত হয়েছিল। তার সময়ে আরাকান ও পর্তুগিজরা বাংলা আক্রমণ করেছিল। আরাকানিরা প্রথমে সফলতা পেলেও, তাদের বাহিনীর অন্ত্যঃ দ্বন্দ্বের কারণে কাসিম খান এই অভিযানটি ব্যর্থ করতে পেরেছিলেন।

                                     

3. যুদ্ধ

কাসিম খান আসাম আক্রমণ করলে তার শোচনীয় পরাজয় ঘটে এবং এ যুদ্ধে এতে তার সৈন্যদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এরপর চট্টগ্রামকে প্রথম লক্ষ্য করে কাসিম খান আরাকানিদের বিরুদ্ধে আর একটি অভিযান প্রেরণ করেছিলেন। কিন্তু তার সে প্রচেষ্টাও ব্যর্থ হয়। ক্রমাগত সামরিক ব্যর্থতার কারণে সম্রাট জাহাঙ্গীর বাংলা থেকে কাসিম খানকে প্রত্যাহার করতে নেন এবং তার স্থলে নতুন সুবাহদার ইবরাহিম খানকে প্রেরণ করেন।