Back

ⓘ অলোয়া জমিদার বাড়ি




                                     

ⓘ অলোয়া জমিদার বাড়ি

প্রায় ১৮০০ শতকে জমিদার সচী নাথ রায় চৌধুরী বর্তমান টাঙ্গাইল সদরের পৌরসভা এলাকায় ১৩২ শতাংশ জমির উপর এই অলোয়া জমিদার বাড়িটি স্থাপন করেন। এরপর বংশপরামপণায় জমিদার বংশধররা এখানে জমিদারী পরিচালনা করতে থাকেন। একসময় জমিদারী প্রথা বিলুপ্ত হয়ে গেলে এই জমিদার বাড়িটি পরিত্যাক্ত হয়ে যায়। আবশ্যক পরিত্যাক্ত হওয়ার দীর্ঘ কয়েক বছর পর বাড়িটির কিছু অংশে বাংলাদেশ সরকার ১৯৮০ সাল থেকে এখন পর্যন্ত স্থানীয় ভূমি অফিস হিসেবে ব্যবহার করে আসতেছেন। বাকী অংশ এখন প্রায় ধ্বংসের মুখে। এই জমিদার বাড়ির শেষ জমিদার ছিলেন কনক লতা রায় চৌধুরী। তিনি তার পরিবার নিয়ে ১৯৫০ সালে ভারতে চলে যান।

                                     

1. বর্তমান অবস্থা

পুরো জমিদার বাড়ির মাত্র একটি কক্ষে বাংলাদেশ সরকারের স্থানীয় ইউনিয়ন ভূমি অফিস হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। আর বাকীগুলো ব্যবহৃত না হওয়ায় ও পরিচর্জা না থাকায় এখন প্রায় অনেকটা ধ্বংসের মুখে।