Back

ⓘ ২০১৯-২০ শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফর




২০১৯-২০ শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফর
                                     

ⓘ ২০১৯-২০ শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফর

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল তিনটি একদিনের আন্তর্জাতিক এবং তিনটি টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক খেলার জন্য পাকিস্তান সফর করে, যা সেপ্টেম্বর থেকে অক্টোবর ২০১৯-এ অনুষ্ঠিত হয়। সফরসূচীতে মূলত দুটি টেস্ট খেলাও অন্তর্ভূক্ত ছিল, কিন্তু সেগুলোকে ২০১৯ এর ডিসেম্বরে স্থানান্তর করা হয়। শ্রীলঙ্কা সর্বশেষ পাকিস্তানের বিপরীতে খেলে ২০১৭ সালের অক্টোবরে, যখন তৃতীয় টি২০আই খেলা হয়েছিল লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে।

শ্রীলঙ্কার অনেক খেলোয়াড়ই উক্ত সফরে অংশ গ্রহণ করতে অসম্মতি প্রদান করে, লাহিরু থিরিমানে ও দাসুন শানাকাকে যথাক্রমে ওডিআই ও টি২০আই-এর অধিনায়ক করে স্কোয়াড ঘোষণা করে। যদিও পাকিস্তান ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে পৌছতে অসমর্থ হয়, তবুও সরফরাজ আহমেদকে সিরিজের জন্য অধিনায়ক এবং বাবর আজমকে সহ-অধিনায়ক করে দল ঘোষণা করে। পরবর্তীতে সরফরাজ আহমেদ ব্যক্ত করেন যে, ঘরোয়া মাঠে নিজের দলের নেতৃত্ব দেয়া তার ক্যারিয়ারের একটি উজ্জ্বল অধ্যায় হবে।

করাচীর জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সিরিজের প্রথম ওডিআই খেলাটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যাক্ত হয়। এটা ছিল উক্ত মাঠের ইতিহাসে প্রথম কোন ওডিআই খেলা পরিত্যাক্ত হয়। ফলে, পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড পিসিবি দ্বিতীয় ওডিআই খেলাটিকে একদিন পিছিয়ে ৩০ সেপ্টেম্বরে নিয়ে আসে, যাতে করে মাঠ প্রস্তুতকারী দল পর্যাপ্ত সময় নিয়ে মাঠের আউটফিল্ড প্রস্তুত করতে পারে। পাকিস্তান পরবর্তী ২টি ওডিআইয়ে জয় লাভ করলে ২-০তে সিরিজ জিতে নেয়।

টি২০আই সিরিজের প্রথম ম্যাচটিতে ৬৪ রানের ব্যবধানে শ্রীলঙ্কা জয় পায়, যা ২০১৩ এর ডিসেম্বরের পরে এটাই ছিল পাকিস্তানের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার প্রথম টি২০আই জয়। শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় টি২০আই ম্যাচটিও ৩৫রানে জিতে দ্বিপক্ষীয় সিরিজে নিজেদের প্রধান্য বজায় রাখে এটা ছিল পাকিস্তানের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার প্রথম দ্বিপক্ষীয় টি২০আই সিরিজ বিজয়।

                                     

1. পটভূমি

২০০৯ এর মার্চে, লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের পূর্বে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল বন্দুকধারীর আক্রমণের শিকার হলে উক্ত সিরিজ সম্পূর্ণ খেলা হয়নি। ২০১৯ এর মে মাসে সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল এসিসির সভায় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড পিসিবি শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট এসএলসিকে অনুরোধ করে পাকিস্তানে দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলার জন্য। ২০১৯ এর জুলাইয়ে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট পাকিস্তানের একটি নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ দল পাঠায় পাকিস্তানের নিরাপত্তা বিষয়ক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করতে, যার অর্থ দাড়ায় শ্রীলঙ্কা পাকিস্তানে টেস্ট ম্যাচ খেলতে সম্মত। পরবর্তীতে করাচী ও লাহোরের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৯ এর আগস্টে শ্রীলঙ্কা তাদের সিদ্ধান্ত প্রকাশ করে। নিরাপত্তা ডেলিগেশন দল "খুবই সম্মতিসূচক প্রতিবেদন" প্রদান করে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল পাকিস্তানে টেস্ট ম্যাচ খেলতে পারবে এমন পরামর্শ প্রদান করে। ২০১৯ এর ২২ আগস্ট, শ্রীলঙ্কা ক্রীড়া মন্ত্রী নিশ্চিত করে যে, তারা অক্টোবরে পাকিস্তানে ৩টি একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবে, কিন্তু টেস্ট ম্যাচগুলোকে বাতিল করা হয়।

২০১৯ এর ৯ সেপ্টেম্বরে, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট প্রাথমিকভাবে সফরের জন্য নির্বাচিত সকল খেলোয়াড়ের সাথে সাক্ষাত করে প্রত্যেকের কাছে জানতে চায় পাকিস্তান সফরে খেলতে সম্মত কিনা। দিনেশ চান্ডিমাল, আকিলা ধনঞ্জয়, নিরোশন ডিকওয়েলা, দিমুথ করুনারত্নে, সুরঙ্গা লকমল, লাসিথ মালিঙ্গা, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস, কুশল পেরেরা, থিসারা পেরেরা ও ধনঞ্জয় ডি সিলভা সকলেই নিশ্চিত করে যে, তারা পাকিস্তানে খেলতে যাবে না। দুই দিন পর, যখন শ্রীলঙ্কা যখন পাকিস্তান সফরের চূড়ান্ত দল ঘোষণা করতে যাবে, তখন ক্রিকেট দলের উপর সম্ভাব্য সন্ত্রাসী হামলা হতে পারে এমন সংবাদ পায় শ্রীলঙ্কা সরকার প্রতিনিধি দল। তাই শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট পুনরায় নিরাপত্তা পর্যবেক্ষণ পরিচালনা করে সিরিজ শুরুর পূর্বে। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড পিসিবি তৃতীয় কোন স্থানে খেলাটির আয়োজন করতেও অসম্মতি জানায়। এহসান মানি, পিসিবি চেয়ারম্যানের বিবৃতি, "আমাদের হাতে এখন অন্য কোন পছন্দের সময় নেই", ফলে পাকিস্তানেই খেলাগুলো অনুষ্ঠিত হতে বহাল থাকে। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট নিশ্চিত করে যে, সিরিজটি শুরু হবে পূর্বের পরিকল্পনা অনুযায়ী। দুদিন পরে, পিসিবি সফর ম্যাচের সকল অফিসিয়াল নিয়োগ করে।

অক্টোবর ২০১৯, সংযুক্ত আরব আমিরাতের পরিবর্তে দুটি টেস্ট ম্যাচের সিরিজ পাকিস্তানের রাওয়ালপিন্ডি ও করাচীতে আয়োজন করার প্রস্তাব দেয়। জবাবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট জানায়, পাকিস্তানে টেস্ট ম্যাচ এগিয়ে নিয়ে যেতে তারা আগ্রহী। ২০১৯ এর নভেম্বরে, পিসিবি টেস্ট সিরিজের তারিখ ও স্থান নিশ্চিত করে। টেস্ট সিরিজটি খেলতে সম্মত হওয়ার ফলে, পিসিবি আন্তর্জাতিক সূচীর আয়োজন করতে গিয়ে ২০১৯-২০ কায়েদ-ই-আজম ট্রফির ফাইনালকে পিছিয়ে দেয়। নভেম্বর ২০১৯-এ, আগস্টে নিউজিল্যান্ডের সাথে খেলা দলের একটি মাত্র পরিবর্তন ছাড়া টেস্ট সিরিজের জন্য তাদের সর্ব-শক্তি স্কোয়াডের দল ঘোষণা করে। পরের মাসের শুরুতেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল আইসিসি খেলা পরিচালনার জন্য সকল অফিসিয়াল নিয়োগ প্রদান করে। প্রথম টেস্ট ম্যাচ শুরুর ৪দিন আগে পাকিস্তান তাদের টেস্ট স্কোয়াড নিশ্চিত করে। ফায়াদ আলম যিনি ২০০৯ এর নভেম্বর ডিসেম্বরে নিউজিল্যান্ডের বিপরীতে দলের হয়ে সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিলেন, তাকেও দলে ডাকা হয়। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের সদস্যরা ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ পাকিস্তানে পৌছে যায়। পূর্বে দলের হয়ে পাকিস্তানে টেস্ট ম্যাচে খেলেছে এমন কোন খেলোয়াড় দলে রাখা হয়নি।

                                     

2. খেলার সারাংশ

করাচীর জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সিরিজের প্রথম ওডিআই খেলাটি বৃষ্টির কারণে পরিত্যাক্ত হয়। এটা ছিল উক্ত মাঠের ইতিহাসে প্রথম কোন ওডিআই খেলা পরিত্যাক্ত হয়। ফলে, পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড পিসিবি দ্বিতীয় ওডিআই খেলাটিকে একদিন পিছিয়ে ৩০ সেপ্টেম্বরে নিয়ে আসে, যাতে করে মাঠ প্রস্তুতকারী দল পর্যাপ্ত সময় নিয়ে মাঠের আউটফিল্ড প্রস্তুত করতে পারে। পাকিস্তান পরবর্তী ২টি ওডিআইয়ে জয় লাভ করলে ২-০তে সিরিজ জিতে নেয়।

টি২০আই সিরিজের প্রথম ম্যাচটিতে ৬৪ রানের ব্যবধানে শ্রীলঙ্কা জয় পায়, যা ২০১৩ এর ডিসেম্বরের পরে এটাই ছিল পাকিস্তানের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার প্রথম টি২০আই জয়। শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় টি২০আই ম্যাচটিও ৩৫রানে জিতে দ্বিপক্ষীয় সিরিজে নিজেদের প্রধান্য বজায় রাখে এটা ছিল পাকিস্তানের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার প্রথম দ্বিপক্ষীয় টি২০আই সিরিজ বিজয়। শ্রীলঙ্কা তাদের সর্বশেষ টি২০আই ম্যাচটিতে ১৩ রানে জয় পেলে, ৩-০তে সিরিজে জয় পায়। এমনটি প্রথমবার ঘটলো যে, তিন ম্যাচের টি২০আই সিরিজে তিনটিতেই শ্রীলঙ্কা জয় পায়, এবং ৩-০তে সিরিজ জিতে এবং টি২০আই-এ পাকিস্তান প্রথমবার ধবল ধোলাইয়ের শিকার হয়।

অতঃপর পাকিস্তানের প্রধান কোচ ও নির্বাচক মিসবাহ-উল-হক লক্ষ্য করেন যে, নিম্নর‍্যাংকিংয়ের কোন দলের সাথে ৩-০তে একটি সিরিজ হারাপর তাদেরকে অনেকগুলো প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হচ্ছে। সেই সাথে শ্রীলঙ্কার কোচ, রুমেশ রত্নায়েকে, পাকিস্তানের তার দল যে পরিমাণ সেবা ও নিরাপত্তা পেয়েছে তার প্রশংসা করেন এবং বলেন, "সারা বিশ্বের জন্য এটি একটি বার্তা" এবং আশা করেন যে, অন্যান্য দলগুলোও পাকিস্তানের আবার সফর শুরু করবে।

                                     
  • ব য টসম য ন এব ব মহ ত অর থ ডক স স প ন র ত ন অক ট বর পর যন ত ব ল দ শ জ ত য ক র ক ট দল র ট স ট ও ট আন তর জ ত ক স স করণ অধ ন য ক র দ য ত ব
  • প ন দ র এল ক য জন মগ রহণক র স ব ক শ র লঙ ক ন আন তর জ ত ক ক র ক ট র শ র লঙ ক ক র ক ট দল র অন যতম সদস য ছ ল ন ত ন থ ক সময ক ল শ র লঙ ক র পক ষ
  • শ র লঙ ক দল র ব পক ষ ইন স প চ ক য চসহ খ ল য আট ক য চ গ ল ভসবন দ কর ছ ল ন স ল ই ল য ন ড সফর সর বশ ষ ট স ট অ শগ রহণ কর ন ত ন ক র ক ট খ ল
  • বর তম ন ত ন কলম ব র স ন ট প ট র স কল জ ক চ র দ য ত ব প লন করছ ন শ র লঙ ক ক র ক ট দল র অন যতম সদস য ছ ল ন ত ন থ ক সময ক ল শ র লঙ ক র পক ষ
  • ল হ র এল ক য জন মগ রহণক র প ক স ত ন আন তর জ ত ক ক র ক ট র ছ ল ন প ক স ত ন ক র ক ট দল র অন যতম সদস য ছ ল ন ত ন স ল স ক ষ প ত সময র জন য প ক স ত ন র
  • আব ধ ব ত প ক স ত ন দল র ব পক ষ সর বশ ষ ট স ট অ শ ন ন ত ন ত ক ক ন ওড আইয অ শগ রহণ কর র স য গ দ য হয ন স ল অস ট র ল য দল শ র লঙ ক গমন কর
  • এ ত ল ক ট ই ল য ন ড জ ত য ক র ক ট দল র অধ ন য কদ র ত ল ক ব শ ষ প র ষ, ক শ র ও মহ ল ক র ক ট রর আন ষ ঠ ন কভ ব আন তর জ ত ক পর য য ই ল য ন ড র অধ ন য কত ব
  • জন মগ রহণক র শ র লঙ ক র ব শ ষ ট প শ দ র আন তর জ ত ক ক র ক ট র শ র লঙ ক ক র ক ট দল র অন যতম সদস য ত ন ঘর য প রথম - শ র ণ র শ র লঙ ক ন ক র ক ট ত ম ল

Users also searched:

...