Back

ⓘ বিষয়শ্রেণী:গাছ




                                               

অশ্বত্থ

অশ্বত্থ, অশথ বা পিপল গাছের বৈজ্ঞানিক নাম Ficus religiosa যাকে ইংরেজিতে sacred fig বলা হয়। এটি এক প্রকার বট বা ডুমুর জাতীয় বৃক্ষ যার আদি নিবাস স্থানীয় ভারতীয় উপমহাদেশ এবং ইন্দোচীন। এছাড়া বাংলাদেশ, নেপাল, মায়ানমার, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ পশ্চিম চীন প্রভৃতি দেশেও দেখতে পাওয়া যায়। এটি Moraceae পরিবারভুক্ত সপুষ্পক উদ্ভিদ।

                                               

কাকডুমুর

কাকডুমুর ফাইকাস গণভুক্ত ডুমুর প্রজাতির উদ্ভিদ ও তার ফলবিশেষ। এ প্রজাতির ফল ছোট এবং খাওয়ার অনুপযুক্ত। এই গাছ অযত্নে-অবহেলায় এখানে-সেখানে ব্যাপক সংখ্যায় গজিয়ে ওঠে। গাছও তুলনামূলকভাবে ছোট হয়ে থাকে।

                                               

গগনশিরীষ

গগনশিরীষ Fabaceae পরিবারের Albizia গণের সরলাকৃতির দীর্ঘকায় বৃক্ষ বিশেষ। বাংলাদেশের অনেক অঞ্চলে এ গাছকে রোডচাম্বল নামেও ডাকা হয়। প্রায় দেড়শ বছর আগে মাদাগাস্কা থেকে এই গাছ কলকাতা বোটানিক্যাল গার্ডেন হয়ে বাংলাদেশে এসেছে।

                                               

জগডুমুর

জগডুমুর বা যজ্ঞডুমুর গাছের বৈজ্ঞানিক নাম Ficus racemosa বা Ficus glomerata যা Moraceae পরিবারভুক্ত। একে ইংরেজিতে Cluster Fig Tree, Indian Fig Tree বা Goolar Fig বলা হয়। এর আদি নিবাস ভারতীয় উপমহাদেশ, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, মালয়েশিয়া এবং অস্ট্রেলিয়া। এর ফল গাছের কান্ডে থোকায় থোকায় হয়। এটি প্রধানতঃ বন্য পশু পাখির খাদ্য। উত্তর অস্ট্রেলিয়াতে এই গাছ প্রজাপতির খাদ্য হিসেবে লাগানো হয়।

                                               

তমাল

তমাল একপ্রকার সপুষ্পক উদ্ভিদ। এটি বনগাব, মহেশকাণ্ড ইত্যাদি নামেও পরিচিত। এর ইংরেজি নাম Mottled Ebony বা Bombay ebony । এছাড়া বিভিন্ন ভাষায় একে Jagala Ganti Mara, Kari, Quarrelsome Tree, Vakkana, Nila Viruksha, Kare Mara, Kari Maram, Bistendu, बिसतॆंदु, Kala dhao, Kendu, Dakanan, Lohari, kakaulimera, kakavulimidi, kakiulimera, makha ইত্যাদি নামে ডাকা হয়। তমাল গাছের বৈজ্ঞানিক নাম Diospyros montana বা Diospyros cordifolia ; যা Ebenaceae পরিবারভুক্ত। এটি দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, চীন, ক্রান্তীয় অস্ট্রেলিয়া ইত্যাদি অঞ্চলে জন্মে। বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা আইনে ...

                                               

তিসি

তিসি তেল ও আঁশ উৎপাদনকারী গুল্ম। মিশরে লিনেন জাতীয় বস্ত্র তৈরীতে এর ব্যবহার শুরু হয়। বর্তমানে তেল বীজ ও আঁশ হিসাবে ব্যবহার হয়।

                                               

পাখিফুল

পাখিফুল একটি ফুল গাছ, ভেনেজুয়েলায় এ ফুল গোলাপ নামে পরিচিত। এটি সুপ্তি ফুল বলেও পরিচিত। প্রজাতিটি গায়ানা, ভেনেজুয়েলা, ব্রাজিল এবং ত্রিনিদাদ ও টোবাগো স্থানীয়। এটি সাধারণত জায়ারে, মরিশাস ও সেশেল সহ অন্যান্য দেশে চাষ করা হয়। ছোট ও চিরহরিৎ এক বৃক্ষ। ১২ থেকে ১৫ ফুট উঁচু।দেখতে ছোটখাটো অশোক গাছের মত। জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে এই গাছে ফুল ফুটে।ফল দুষ্প্রাপ্য। দাবাকলমে চাষ হয়।

                                               

বচ

বচ জলাভূমিতে জন্ম নেয়া এক ধরনের উদ্ভিদ বিশেষ। বচ বহুবর্ষজীবী কন্দমূলীয় স্বল্প কন্দ। এর কান্ড মাটির নিচে থাকে। পাতা অনেকটা ধান পাতার মতো সবুজ, পাতা মাটির উপরে উর্ধ্বমুখী হয়ে থাকে। কন্দ থেকে পাতাগুলি চারিদিকে ঘুরে ঘুরে না গজিয়ে বিপরীতমুখী হয়ে গজিয়ে চ্যাপ্টা আকার ধারণ করে। তবে পাতা লোমযুক্ত বা ধারালো নয়, অপেক্ষাকৃত মসৃণ। মাটির নিচে গন্ধযুক্ত কন্দ বিস্তার লাভ করে। এটি স্থূল ও গাঁট বহুল। ফুল স্প্যাডিক্স ধারণের এবং ৫-১০ সে.মি. লম্বা পুষ্পদন্ডে হালকা সবুজ রঙের ছোট ছোট ফুল ফোটে। বর্ষাকালে ফুল ও পরে ফল হয়। ফল হালকা হলুদ বর্ণের। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বচকে একসময় ব্যবহার উপযোগী মুখ্য মশলা হিসেব ...

                                               

মণিমালা ফুল

মণিমালা Fabaceae পরিবারের Millettia গণের এক পর্ণমোচী মাঝারি গাছ। মিলেশিয়া নামে এই ফুল পরিচিত। অনেকের কাছে এই গাছ তূমা নামেও পরিচিত।

                                               

শাখ আলু

শাখ আলু এক প্রকার মূল জাতীয় সবজি। শাখ আলু গাছের বৈজ্ঞানিক নাম Pachyrhizus tuberosus, যা Fabaceae পরিবারভুক্ত। ইংরেজিতে একে Goitenyo, Goiteño, nupe, jacatupe বা Amazonian yam bean বলা হয়। এই গণভুক্ত ৫ বা ৬টি প্রজাতি রয়েছে যার মধ্যে শাখ আলু প্রজাতিটি বাংলাদেশে প্রচলিত। এটি চিরহরিৎ লতা জাতীয় লিগিউম উদ্ভিদ যা ৬ মিটার পর্যন্ত লম্বা হতে পারে। এর মূলের খোসা সাদাটে বাদামি, ভেতরটা সাদা, শালগমাকৃতির। একটি গাছে ২ বা ততোধিক আলু হয়। প্রতিটি আলু ১৫-২৫ সেমি লম্বা হয়। এই মূল বা আলু অত্যন্ত রসালো, কচকচে এবং মিষ্টি। খোসা ছাড়িয়ে এটি কাচা খাওয়া হয়। এর খোসা ছাড়ানো খুবই সহজ। এটি রান্না করেও খাওয়া যা ...

গড়শিঙ্গা
                                               

গড়শিঙ্গা

বসন্তে পাতা ঝরে আর গ্রীষ্মে ফুল। ফুল বড়, ১২-১৫সেমি লম্বা, ডালের আগায় একটি বা একাধিক। বৃতি চওড়া। দল নলাকার, ভেরীবৎ, সাদা, মুখের লতিগুলো কুঁচকান ও দাঁতাল। ফুল ফোঁটে রাতে ও সকালেই ঝরে যায়।