Back

ⓘ শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়াম




শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়াম
                                     

ⓘ শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়াম

শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়াম ২০১৩ সালে নির্মিত বাংলাদেশের একটি জেলা পর্যায়ের স্টেডিয়াম। স্টেডিয়ামটি গাজীপুর জেলার গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের টঙ্গীর মাছিমপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পাশে টঙ্গী ডাকঘরের উত্তরে এবং বাংলাদেশ টেলিফোন শিল্প সংস্থার দক্ষিণ সীমায় অবস্থিত। স্টেডিয়ামটি গাজীপুর জেলার দ্বিতীয় স্টেডিয়াম। অন্য স্টেডিয়ামটি গাজীপুর সদর উপজেলায় অবস্থিত শহীদ বরকত স্টেডিয়াম। শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার স্টেডিয়াম বাংলাদেশের প্রখ্যাত রাজনীতিবিদ প্রয়াত আহসান উল্লাহ মাস্টাএর নামে নামকরণ করা হয়েছে। বাংলাদেশের অন্যান্য সকল ক্রীড়া ভেন্যুর মতই এই স্টেডিয়ামটি জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের অধিভুক্ত ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার তত্বাবধায়নে রয়েছে। বর্তমানে তীরন্দাজি খেলা, প্রশিক্ষণ ও অনুশীলনের জন্য এই ভেন্যুটি বাংলাদেশ আর্চারি ফেডারেশন একক ব্যবহার করছে তবে এই ভেন্যু ফুটবল প্রতিযোগিতার জন্যও ব্যবহৃত হয়েছে। স্টেডিয়ামটি তীরন্দাজি খেলার ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক আয়োজন ও প্রশিক্ষণের জন্য বহুল ব্যবহৃত হয়।

                                     

1. ইতিহাস

স্টেডিয়ামের মাঠটি টেলিফোন শিল্প সংস্থার অংশ ছিল। প্রধানমন্ত্রী, ২৫ ডিসেম্বর, ২০০৮ সালে এই মাঠটিকে স্টেডিয়ামে রুপান্তরের প্রতিশ্রুতি দেন। ০৫ ডিসেম্বর, ২০১২ তারিখে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কার্যনির্বাহী সভায় এই স্টেডিয়ামটি আহসান উল্লাহ মাস্টারের নামে নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয়, এবং নির্মাণ ব্যয় হিসেবে আট কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়। ৩১ অক্টোবর, ২০১৩ তারিখে স্টেডিয়ামটি উদ্বোধন করা হয়। জুন, ২০১৪ তে প্রাথমিক নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়। ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ তারিখে স্টেডিয়ামটিকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার ঘোষণা দেয়া হয়।

                                     

2. কাঠামো ও গঠন

স্টেডিয়ামটি আয়তাকার। মাঠের দক্ষিণ পাশে কংক্রিটের গ্যালারি ও প্যাভিলিয়ন রয়েছে। উত্তর, পূর্ব ও পশ্চিম পাশের গ্যালারি অদ্যাবধি নির্মাণ করা হয়নি। স্টেডিয়ামটির অবকাঠামো উন্নয়ন পরিকল্পনা আছে।

                                     

3. আয়োজন

তীরন্দাজি প্রতিযোগিতা

স্টেডিয়ামটি উদ্বোধনেপর হতে বাংলাদেশ আর্চারি ফেডারেশন এই ভেন্যুতে উল্লেখযোগ্য ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক তীরন্দাজি প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছে:

ফুটবল প্রতিযোগিতা

২০১৭ সালে এই মাঠে প্রথম বারের মত বাংলাদেশ ফুটবল কাঠামোর সর্বনিম্ন স্তর- পাইওনিয়ার লিগ আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ ফুটবলের ত্রয়োদশ মৌসুমে স্টেডিয়ামটি আরামবাগ ক্রীড়া সংঘের স্বাগতিক মাঠ হিসেবে ব্যবহার করা হয়।