Back

ⓘ মুহাম্মদ সালেম কাসেমি




                                     

ⓘ মুহাম্মদ সালেম কাসেমি

মওলানা মুহাম্মদ সালেম কাসেমি ভারতীয় দেওবন্দি একজন ইসলামী পণ্ডিত ছিলেন। দারুল উলুম ওয়াকফ দেওবন্দের মুহতামিম ছিলেন। তিনি দারুল উলুম দেওবন্দের প্রতিষ্ঠাতা মুহাম্মদ কাসেম নানুতাবির দৌহিত্র কারী মুহাম্মদ তৈয়ব কাসমির পুত্র।

                                     

1. প্রাথমিক ও শিক্ষাজীবন

আল্লামা সালেম কাসেমি ১৯২৬ সালের ৮ জানুয়ারি ভারতের উত্তর প্রদেশের সাহারানপুর জেলার দেওবন্দ এলাকায় জন্ম গ্রহণ করেন। ১৯৪৮ সালে তিনি দেওবন্দ থেকে পড়ালেখা শেষ করেন। দারুল উলুম দেওবন্দে তার শিক্ষকগণের মধ্যে উল্লেখযোগ্য- মাওলানা হুসাইন আহমদ মাদানি, মওলানা ইজাজ আলী আমরোহী, মাওলানা ইব্রাহিম বালিয়াবি এবং মওলানা সৈয়দ ফখরুল হাসান মোরাদাবাদী। তিনি মিজান অধ্যয়ন করেন আরবি ব্যাকরণ বই মওলানা আশরাফ আলী থানভির অধীনে।

                                     

2. কর্মজীবন

তিনি দেওবন্দ থেকে পড়ালেখা শেষ করে সেখানেই ১৯৪৮ সালে শিক্ষকতা শুরু করেন। আল্লামা মুহাম্মদ সালেম কাসেমি দেওবন্দের প্রতিষ্ঠাতা আল্লামা মুহাম্মদ কাসেম নানুতাবির নাতি এবং কারী মুহাম্মদ তৈয়বের ছেলে। ১৯৮২ সালে দারুল উলুম দেওবন্দে মতবিরোধ শুরু হলে তিনি তার বাবা খতিবে ইসলাম আল্লামা তৈয়্যবের সঙ্গে ওয়াকফ দেওবন্দ প্রতিষ্ঠা করেন। অতঃপর মুহতামিম উপাচার্য ও শায়খুল হাদিসের ১৯৮২ সালে কারী মুহাম্মদ তৈয়বের মৃত্যুপর দায়িত্ব পালন করেন। দারস-ই-নিযামির সকল গুরুত্বপূর্ণ বই পাঠদান করেছেন তিনি, তবে তার শরহ আকাদদের পাঠদান ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছে। ১৯৮২ সালে প্রতিষ্ঠাপর থেকে মৃত্যু পর্যন্ত মুহাম্মদ সালেম কাসেমি দারুল উলুম ওয়াকফ দেওবন্দের মুহতামিম উপাচার্য ছিলেন।

আল্লামা মুহাম্মদ সালেম কাসেমির কিছু উল্লেখযোগ্য রচনা:

  • মাবাদি আল ত্ববিয়াত আল ইসলামী আরবী
  • মার্দান-এ-গাজি
  • জাইজা তজজামায়ে কুরআন করিম
  • খুতবাত ই খতিবুল ইসলাম তার বক্তৃতা সংগ্রহ ৫ খন্ডে প্রকাশিত হয়েছে।
  • এক আজীম তরিকী খিদমত
  • তাজদার ই আর্জ হারাম ক পাইগাম
  • সাফার নামা বার্মা
                                     

3. নেতৃত্বসমূহ

মুহাম্মদ সালেম কাসেমি তার জীবনকালের সময় নিম্নোক্ত পদে ছিলেন:

  • উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য- মাজাহির উলুম ওয়াকফ, সাহারানপুর।
  • ফিকাহ কাউন্সিলের স্থায়ী সদস্য- আল-আযহার বিশ্ববিদ্যালয়, কায়রো, মিশর।
  • সদস্য- আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়, কোর্ট।
  • পৃষ্ঠপোষক- অল ইন্ডিয়া রাবেতা-এ-মসজিদ।
  • সভাপতি- অল ইন্ডিয়া মুসলিম মজলিস-এ-মুসাওরাত দুটি অংশ যখন একত্রে ছিল।
  • ভাইস প্রেসিডেন্ট- অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল বোর্ড।
  • পৃষ্ঠপোষক- ইসলামিক ফিকহ একাডেমী, ভারত ।
  • উপদেষ্টা পরিষদ ও ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য- দারুল উলুম নাদওয়াতুল উলামা।
  • মুহতামিম উপাচার্য - দারুল উলুম ওয়াকফ দেওবন্দ।
                                     

4. পুরস্কার এবং স্বীকৃতি

  • চতুর্থ শাহ ওয়ালীউল্লাহ পুরস্কার
  • ইমাম মুহাম্মদ কাসেম নানুতাবি পুরস্কার, ২০১৪
  • ভারতীয় উপমহাদেশের বিশিষ্ট আলেম হিসেবে মিশর সরকারের কাছ থেকে নিশান-ই-ইমতিয়াজ পার্থক্য চিহ্নিত করণ
                                     

5. মৃত্যু এবং উত্তরাধিকার

মুহাম্মদ সালেম কাসেমি ২৯ শে এপ্রিল ২০১৮ সালে ৯২ বছর বয়সে মারা যান। ২০১৮ সালের আগস্ট মাসে হুজযাতুল ইসলাম একাডেমী আল্লামা মুহাম্মদ সালেম কাসেমির জীবন শীর্ষক আন্তর্জাতিক সেমিনার আয়োজন করে। দারুল উলুম ওয়াকফ দেওবন্দের তার উত্তরসূরি পুত্র আল্লামা মুহাম্মদ সুফিয়ান কাসমি।

                                     

6. নোট

1 ^ জাভেদ আহমদ গামিদির মিজান নিয়ে বিভ্রান্ত হবেন না। 2 ^ ইনস্টিটিউট অব অবজেক্টিভ স্টাডিজের জামিয়া নগর, নয়াদিল্লীর শাহ ওয়ালিউল্লাহ পুরস্কারের সাথে বিভ্রান্ত হবেন না। রেফারেন্সটি হল শাহ ওয়ালিউল্লাহ ইনস্টিটিউট, কাকা নগর, নয়া দিল্লি সম্পর্কিত।