Back

ⓘ টমি মিচেল




টমি মিচেল
                                     

ⓘ টমি মিচেল

টমাস বিগনল মিচেল ডার্বিশায়ারের ক্রেসওয়েল এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৩৩ থেকে ১৯৩৫ সময়কালে ইংল্যান্ড দলের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে ডার্বিশায়ার দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ লেগ স্পিন বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও নিচেরসারিতে ডানহাতে ব্যাটিং করতেন টমাস মিচেল নামে পরিচিত টমি মিচেল ।

ডার্বিশায়ারের তৎকালীন অধিনায়ক ও খনি মালিক গাই জ্যাকসনের সুনজরে পড়েন। তিনি তখন সেঁতু নির্মাণে অংশগ্রহণকারী দলের পক্ষে খেলতেন। কাউন্টি দলটির পক্ষে ৩০৩ খেলায় অংশ নেন। ২০.২০ গড়ে ১৪১৭ উইকেট পেয়েছেন।

                                     

1. আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে পাঁচটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পেয়েছিলেন টমি মিচেল। ১৯৩২-৩৩ মৌসুমে ডগলাস জারদিনের অধিনায়কত্বে জর্জ ডাকওয়ার্থ, টমি মিচেল, পতৌদির নবাব, মরিস লেল্যান্ড, হ্যারল্ড লারউড, এডি পেন্টার, বিল ফার্গুসন, প্লাম ওয়ার্নার, লেস অ্যামেস, হেডলি ভেরিটি, বিল ভোস, বিল বোস, ফ্রেডি ব্রাউন, মরিস টেট, ডিক পালাইরেট, হার্বার্ট সাটক্লিফ, বব ওয়াট, গাবি অ্যালেন ও ওয়ালি হ্যামন্ডকে নিয়ে গঠিত ইংরেজ দল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড গমন করে।

১০ ফেব্রুয়ারি, ১৯৩৩ তারিখে ব্রিসবেনের গাব্বায় স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম খেলেন। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে লেন ডার্লিং, আর্নেস্ট ব্রমলি, হ্যামি লাভ এবং ইংল্যান্ডের পক্ষে টমাস মিচেলের একযোগে টেস্ট অভিষেক ঘটে। ঐ খেলায় তার দল ৬ উইকেটে জয়লাভ করেছিল। ২৯ জুন, ১৯৩৫ তারিখে লর্ডসে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নিয়েছিলেন তিনি।

প্রাণবন্তভাবে শরীরকে পূর্ণাঙ্গ ব্যবহার করতেন ও ব্যতিক্রমীপন্থায় কব্জী ও আঙ্গুলের ব্যবহার করতেন। বলা হয়ে থাকে যে, স্নুকার টেবিলে তিনি এ কৌশল শিখেছিলেন।