Back

ⓘ বিষয়শ্রেণী:সিঙ্গাপুর




                                               

উডল্যান্ডস, সিঙ্গাপুর

উডল্যান্ডস সিঙ্গাপুরের উত্তর অঞ্চল অবস্থিত একটি পরিকল্পনা এলাকা এবং আবাসিক শহর। শহরটি জোহর-সিঙ্গাপুর কসওয়ে মাধ্যমে মালয়েশিয়ার দক্ষিণতম শহর জোহর বাহরুর সাথে সংযুক্ত করা হয়েছে। এটি উত্তর অঞ্চলের জন্য আঞ্চলিক কেন্দ্র। উডল্যান্ডস পরিকল্পনা এলাকা সীমান্ত পূর্বে সেমবাওয়ং, দক্ষিণে মান্ডাই, পশ্চিমে সুন্নী কাদুত এবং উত্তর জোহর স্ট্রাইটিস। উডল্যান্ডস নিউ টাউনটি উডল্যান্ডস পরিকল্পনা এলাকায় অবস্থিত।

                                               

সিঙ্গাপুর সশস্ত্র বাহিনী

সিঙ্গাপুর সশস্ত্র বাহিনী হচ্ছে সিঙ্গাপুরের প্রতিরক্ষা বাহিনী। ১৯৬৫ সালের ৯ই আগস্ট সিঙ্গাপুর স্বাধীনতা লাভ করে এবং এরপর থেকেই সিঙ্গাপুরের সামরিক বাহিনী গঠনের চিন্তাভাবনা শুরু হয়ে যায়। সিঙ্গাপুর সেনাবাহিনীর গোঁড়াপত্তন ১৯৬৯ সালে ঘটে। সিঙ্গাপুরের ইতিহাস দেখলে সিঙ্গাপুরের কখনোই কোনো সামরিক বাহিনী ছিলোনা, না ছিলো রাইফেল বাহিনী, না ছিলো কোনো নৌবাহিনী, তবে ব্রিটিশরা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনী এবং রাজকীয় ভারতীয় নৌবাহিনী সহ রাজকীয় ভারতীয় বিমান বাহিনীর ঘাঁটি সিঙ্গাপুর ভূখণ্ডে গড়ে তুলে যায়, যদিও এটার উদ্দেশ্য ছিলো জাপানি সামরিক বাহিনীর সঙ্গে লড়াই করা কিন্তু তাও সিঙ ...

                                               

সিঙ্গাপুর সেনাবাহিনী

সিঙ্গাপুর সেনাবাহিনী হচ্ছে সিঙ্গাপুরের সামরিক বাহিনী। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে সিঙ্গাপুরে ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনী কাজ করতো। সিঙ্গাপুর সেনাবাহিনীর শেকড় ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনীর মধ্যেই রয়েছে; গুরুত্বপূর্ণভাবে সিঙ্গাপুরে মাদ্রাজ রেজিমেন্টের সৈন্যরা কাজ করতো যারা তামিল ভাষী ছিলো এবং ১৯৬৫ সালে সিঙ্গাপুরের স্বাধীনতাপর সিঙ্গাপুরে তামিল ভাষাকে অন্যতম সরকারী ভাষার মর্যাদা দেওয়া হয়। তবে সিঙ্গাপুর সেনাবাহিনীর অধিকাংশ সৈন্যই চীনা ভাষার। মাত্র ৭০০ বর্গকিলোমিটার আয়তনের দেশ সিঙ্গাপুরে সৈন্য সমাবেশ করা খুবই কঠিন কাজ ছিলো, তাও ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনীর মালয় কমান্ড বর্তমানে মালয়েশিয ...

                                               

সিঙ্গাপুর স্পোর্টস স্কুল

সিঙ্গাপুর স্পোর্টস স্কুহল একটি বিশেষ স্বাধীন বিদ্যালয় যা সংস্কৃতি, সমাজ ও যুব মন্ত্রণালয়ের তহবিলের অধীনে রয়েছে। ২ এপ্রিল, ২০০৪ সালে সিঙ্গাপুরের দ্বিতীয় প্রধানমন্ত্রী মিঃ গহ চোক টং কর্তৃক এটি আনুষ্ঠানিকভাবে খোলা হয়েছিল।

                                               

সিঙ্গাপুরের প্রশাসনিক অঞ্চল

সিঙ্গাপুরের প্রশাসনিক অঞ্চল হচ্ছে সিঙ্গাপুরের নগর পুনর্ন্নোয়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সিঙ্গাপুরের পরিকল্পনায় সহযোগিতা করতে নির্ধারিত সীমানার উপবিভাগ। সময়ের সাথে সাথে, অন্যান্য সরকারি সংস্থাও তাদের প্রশাসনিক কাজে সুবিধার জন্য পাঁচটি বিভাগের নীতি গ্রহণ করেছে, যেমন ২০০০ সালের আদমশুমারীতে করেছে সিঙ্গাপুর পরিসংখ্যান বিভাগ। এই অঞ্চলগুলি আরও ৫৫ টি পরিকল্পনা এলাকায় বিভক্ত করা হয়, যার মধ্যে দুটি অববাহিকা এলাকাও অন্তর্ভুক্ত। আয়তনের দিক থেকে বৃহত্তম অঞ্চলটি হচ্ছে পশ্চিমাঞ্চল, যার আয়তন ২০১২.৩ বর্গ কিমি। পশ্চিমাঞ্চল ২০১৮ সালে ৯৮২,৭৭৪ জন বাসিন্দা নিয়ে সবচেয়ে জনবহুল এলাকা ছিলো। কিছু সরকারি সংস্থা তাদের ...

সিঙ্গাপুর বন্দর
                                               

সিঙ্গাপুর বন্দর

সিঙ্গাপুর বন্দর হল দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া এর মধ্যে বৃহত্তম ও ব্যস্ততম বন্দর।এটি সিঙ্গাপুর-এ অবস্থিত।এই বন্দরে একটি বড় কন্টেইনার টার্মিনাল রয়েছে।সিঙ্গাপুর স্বাধীন দেশ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করার পড় সিঙ্গাপুর বন্দরটি দ্রত বিকশিত হতে থাকে।এটি বর্তমানে বন্দরটি ৩২.২ মিলিওন কন্টেইনার পরিবহন করেছে।