Back

ⓘ জন গারফিল্ড




জন গারফিল্ড
                                     

ⓘ জন গারফিল্ড

জন গারফিল্ড ছিলেন একজন মার্কিন অভিনেতা। তিনি মূলত পিতাশ্রেণীয়, বিদ্রোহী ও শ্রমিক শ্রেণীয় কাজ করে প্রসিদ্ধি অর্জন করেন। মহামন্দা সময়কালে নিউ ইয়র্কে দারিদ্রের মধ্যে বেড়ে ওঠা গারফিল্ড ১৯৩০-এর দশকের শুরুতে গ্রুপ থিয়েটারের সদস্য হন। ১৯৩৭ সালে তিনি হলিউডে আসেন এবং ওয়ার্নার ব্রসের সাথে চুক্তিবদ্ধ হওয়াপর এই স্টুডিওর চলচ্চিত্রে অভিনয় করে তারকা খ্যাতি লাভ করেন। গারফিল্ড ফোর ডটারস্‌ চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে এবং বডি অ্যান্ড সোল চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেশনাল হাউজ কমিটি অন আন-আমেরিকান অ্যাক্টিভিটিজ এইচইউএসি তাকে কমিউনিস্ট হওয়ার অভিযোগ করলে তিনি তাদের অভিযোগ প্রত্যাখান করেন এবং "নাম বলা" থেকে বিরত থাকার কারণে তার চলচ্চিত্র কর্মজীবনে ইতি ঘটে। অনেকে ধারণা করেন এই ঘটনার চাপে তিনি মাত্র ৩৯ বছর বয়সে হার্ট অ্যাটাকে মারা যান। মার্লোন ব্র্যান্ডো, মন্টগামারি ক্লিফট ও জেমস ডিনের মত গারফিল্ডকে পদ্ধতিগত অভিনয়ের পূর্বসূরী হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

                                     

1.1. জীবনী প্রারম্ভিক জীবন

গারফিল্ড ১৯১৩ সালের ৪ঠা মার্চ নিউ ইয়র্ক সিটির ম্যানহাটনের রিভিংটন স্ট্রিটে জন্মগ্রহণ করেন। তার জন্মনাম ইয়াকব ইউলিয়াস গারফিঙ্কল। তার পিতা দাভিদ গারফিঙ্কল ও মাতা হান্নাহ রুশ ইহুদি ছিলেন। গারফিল্ড ইড্ডিশ থিয়েটার জেলায় বেড়ে ওঠেন।

                                     

1.2. জীবনী ওয়ার্নার ব্রস.

গারফিল্ড বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রে ব্যর্থ হওয়াপর মাইকেল কার্টিজের ফোর ডটারস্‌ ১৯৩৮ চলচ্চিত্রে কাজের সুযোগ পান। এই ছবিতে বিয়োগান্ত তরুণ সুরকার চরিত্রে তার কাজের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। এই কাজের সফলতাপর ওয়ার্নার ব্রস. গারফিল্ডের সাথে তাদের চুক্তি নবায়ন করে এবং তাকে পার্শ্ব চরিত্রের পরিবর্তে তারকা হিসেবে কাজের সুযোগ দেয়। তারা দে মেড মি আ ক্রিমিনাল ১৯৩৯ ছবিতে শিরোনামের উপর তার নাম দেখা যায়। এই সময়ে তিনি "বি" শ্রেণির ব্ল্যাকওয়েল্‌স আইল্যান্ড ছবিতে অভিনয় করেন। ওয়ার্নার ব্রস. তাদের নতুন তারকাকে আর কোন স্বল্প-বাজেটের চলচ্চিত্রে কাজ করানোর পরিবর্তে "এ" শ্রেণির একটি চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য ১০০,০০০ মার্কিন ডলার যোগ করে এবং পরিচালক মাইকেল কার্টিজকে নতুন দৃশ্য পরিচালনার জন্য ডাকা হয়।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধেপর গারফিল্ড কয়েকটি ব্যবসাসফল চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন, তন্মধ্যে রয়েছে লানা টার্নারের বিপরীতে দ্য পোস্টম্যান অলওয়েজ রিংস টুয়াইস ১৯৪৬, জোন ক্রফোর্ডের বিপরীতে হিউমারেস্ক ১৯৪৬, অস্কার বিজয়ী চলচ্চিত্র জেন্টলম্যান্‌স অ্যাগ্রিমেন্ট ১৯৪৭। শেষোক্ত চলচ্চিত্রে তিনি চরিত্রাভিনেতা হিসেবে কাজ করেন। ১৯৪৭ সালে তিনি বডি অ্যান্ড সোল ১৯৪৭ চলচ্চিত্রে শ্রেষ্ঠাংশে অভিনয় করেন এবং এই কাজের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

                                     

2. পুরস্কার ও মনোনয়ন

  • মনোনীত: শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কার - ফোর ডটারস ১৯৩৮
  • মনোনীত: শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কার - বডি অ্যান্ড সোল ১৯৪৭
  • অন্তর্ভুক্তি: হলিউড ওয়াক অব ফেম