Back

ⓘ হক কাপ




                                     

ⓘ হক কাপ

হক কাপ নিউজিল্যান্ডের জেলা সংস্থা কর্তৃক আয়োজিত ক্রিকেট প্রতিযোগিতাবিশেষ। ১৯১০-১১, ১৯১২-১৩ ও ২০০০-০১ মৌসুম বাদে প্রতিযোগিতাটি সর্বদাই প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হবার জন্য আহ্বান জানানোর মাধ্যমে নিষ্পত্তি করা হয়। হক কাপের শিরোপা জয়ের জন্য নির্দিষ্ট দলকে পূর্ববর্তী বছরের শিরোপাধারী দলের নিজ মাঠে পরাজিত করার শর্ত আরোপ করা হয়ে থাকে।

নিউজিল্যান্ডের প্রধান চারটি প্রধান কেন্দ্র - অকল্যান্ড, ওয়েলিংটন, ক্রাইস্টচার্চ ও ডুনেডিন সচরাচর হক কাপে অংশ নেয়নি। তবে, ১৯৯০-এর দশকের মাঝামাঝি সময় থেকে তারা অংশ নিচ্ছে। ২০০০-০১ মৌসুম থেকে দলগুলো পুণরায় বাদ পড়ে যায়। এরপর থেকে নিউজিল্যান্ডের চতুর্থ বৃহত্তম ঘনবসতিপূর্ণ নগর এলাকা হ্যামিল্টন থেকে আগত দল প্রতিযোগিতায় সর্বাপেক্ষা শক্তিশালী দলরূপে আবির্ভূত হয়ে আসছে।

                                     

1. প্রবর্তন কাল

১৯০৭ সালে প্রবর্তিত প্লাঙ্কেট শীল্ডে নিউজিল্যান্ডের প্রধান ক্রিকেট সংস্থাগুলো অংশগ্রহণ করে। ১৯১০ সালে লর্ড হক ক্ষুদ্রতর সংস্থাগুলো নিয়ে গঠিত চ্যালেঞ্জ কাপ প্রতিযোগিতার জন্য অনুদান প্রদান করেন। ডিসেম্বর, ১৯১০ সালে ওয়াইরারাপার বিপক্ষে মানাওয়াতো জয় করে। আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম শিরোপাধারী দল হিসেবে ১৯১০-১১ মৌসুমে সাউথল্যান্ড চূড়ান্ত খেলায় জয় পায়।

এক মৌসুমেই একাধিকবার শিরোপা স্থানান্তরের ঘটনা ঘটেছে। ১৯২৭-২৮ মৌসুমে প্রথম খেলায় টারানাকির বিপক্ষে জয় পেয়ে ওয়াগানুই শিরোপা জয় করে। তিন খেলাপর পঞ্চম খেলায় মানাওয়াতোর কাছে হেরে তা স্থানান্তরিত হয়। মৌসুমের শেষ খেলায় পুণরায় তা কুক্ষিগত করে তারা।

                                     

2. বিজয়ী দলের তালিকা

১৯৮৫-৮৬ মৌসুম থেকে ১৯৯৪-৯৫ মৌসুম পর্যন্ত প্রতিযোগিতাটি ইউ-বিক্স কাপ ; ১৯৯৫-৯৬ মৌসুম থেকে ১৯৯৭-৯৮ মৌসুম পর্যন্ত ফুজ জেরক্স কাপ ও ১৯৯৮-৯৯ মৌসুমে জাতীয় জেলা চ্যাম্পিয়নশীপ নামে পরিচিত ছিল।

নেলসন সর্বাপেক্ষা অধিক সময় ও সর্বাধিকবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য আহুত হয়েছিল। ১৯৫৮ থেকে ১৯৬৫ সাল পর্যন্ত নেলসন ২৮বার প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখোমুখি হয়েছিল ও প্রতিহত করতে সক্ষমতা দেখায়।

                                     

3. রেকর্ড

বর্তমান খেলোয়াড়েরা এক মৌসুমে কেবলমাত্র সর্বাধিক চারবার হক কাপ চ্যালেঞ্জ খেলায় অংশ নিতে পারেন। কেবলমাত্র হক কাপের শিরোপাধারী ও পরাজিত হওয়া আহুত দলের সদস্যদের মধ্যে সম্ভবপর। প্রথমতঃ তারা নিজের অঞ্চলে ও পরবর্তীতে অন্য তিন অঞ্চলের বিজয়ী দলকে পরাজিত করার মাধ্যমে এ সুযোগ পেতে পারেন। ইতিহাস পর্যালোচনা করলে দেখা যায় যে, প্রত্যেক বছর শিরোপাধারী দলকে মাত্র ২ থেকে ৬টি হক কাপ চ্যালেঞ্জ কাপ খেলায় অংশ নেয়। ফলে, খেলোয়াড়দের পক্ষে রেকর্ড গড়া বেশ দূরূহ হয়ে পড়ে। এ রেকর্ড গড়ার জন্য চাই শক্তিশালী দলের সদস্য হওয়া ও দীর্ঘকালের খেলোয়াড়ী জীবনে অগ্রসর হওয়া।

এ সকল বাধা-বিপত্তি থাকা স্বত্ত্বেও ১৮জন খেলোয়াড় সহস্রাধিক রান তুলতে পেরেছেন ও ৮জন খেলোয়াড় ৯০-এর অধিক উইকেট লাভে সক্ষমতা দেখিয়েছেন। এপ্রিল, ২০০৮ সাল পর্যন্ত মাত্র একজন খেলোয়াড় হ্যামিল্টনের জি.জি. রবিনসন বর্তমান খেলোয়াড় হিসেবে সহস্রাধিক রান তুলেছেন।

                                     

4. বর্তমান কাঠামো

৪টি আঞ্চলিক পর্যায়ে হক কাপ অনুষ্ঠিত হয়।

প্রত্যেক অঞ্চলে রাউন্ড রবিন পদ্ধতিতে খেলা আয়োজন করা হয়। এরপর প্রত্যেক অঞ্চলের বিজয়ী দল চ্যালেঞ্জ সিরিজের অংশ হিসেবে পর্যায়ক্রমিকভাবে বর্তমান শিরোপাধারী দলের বিপক্ষে খেলে। উদাহরণস্বরূপ: ২০১০-১১ মৌসুমের শিরোপাধারী দল নর্থ ওতাগো তাদের নিজ অঞ্চল ওতাগো কান্ট্রিতে অনুষ্ঠিত খেলায় প্রথম আহুত দল কিংবা নিজ অঞ্চলের দ্বিতীয় স্থান অধিকারী দলের বিপক্ষে খেলাপর ৩, ২ ও ১ অঞ্চলের বিজয়ী দলের বিপক্ষে লড়াইয়ে অবতীর্ণ হয়।

হক কাপের শিরোপাধারী দল শীতকালে অনুষ্ঠিত চ্যালেঞ্জ সিরিজে অংশ নেয়। ৩ দিনের অধিক সময় হক খেলার আয়োজন করা হয়। হক কাপের শিরোপা জয়ের জন্য শিরোপাধারী দলকে অবশ্যই শিরোপাধারী দলের মাঠে সরাসরি কিংবা প্রথম ইনিংসে জয়লাভ করতে হবে।

                                     

5. শতাব্দীর সেরা একাদশ

জানুয়ারি, ২০১১ সালে হক কাপ ক্রিকেটের শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষ্যে শতাব্দীর সেরা দল ঘোষণা করে। হক কাপে খেলোয়াড়দের অসামান্য অবদানের উপর ভিত্তি করে এ তালিকা প্রকাশ করা হয়েছিল। এছাড়াও ঐ সময়ে খেলোয়াড়দের জেলা পর্যায়ের অবদানকে এ মানদণ্ডে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছিল। ব্যাটিং অর্ডার অনুযায়ী খেলোয়াড়দের তালিকা নিম্নরূপ:

  • নরম্যান গালিচান ১২শ ব্যক্তি – মানাওয়াতু
  • ব্যারি হ্যাম্পটন – নেলসন
  • আলিস্টার জর্ডান – টারানাকি
  • রাসেল মেরিন – নর্থ ক্যান্টারবারি
  • রিচার্ড হস্কিন – সাউথল্যান্ড
  • ডেভ স্পেন্স – নেলসন
  • রজার পিয়ার্স – নেলসন
  • ইয়ান লেগাট – নেলসন ও হক’স বে
  • মাইক রাইট উইঃ – বে অব প্লেন্টি
  • গ্রেন আলাবাস্টার অধিনায়ক – সাউথল্যান্ড
  • রবার্ট অ্যান্ডারসন – সাউথল্যান্ড, নর্থল্যান্ড ও মানাওয়াতু
  • ব্রায়ান ডানিং – নর্থল্যান্ড
                                     
  • ম ল থ ক আর ক ইভ কর স গ রহ র ত র খ জ ন আম প য র এন ম ল হক এশ য ক প ব ছ ইপর ব আইস স র স র আম প য র ত ল ক ইএসপ এনক র কইনফ ত স র ক
  • শক ত ট কর কর ব ক রয কর হয স গন ধ স ধ রনত আল দ প য ক ট থ ক যদ ও ক প ন ড লস ম ঝ ম ঝ স গন ধ ক প আলগ কর থ ক ক ছ ইন সট য ন ট ন ড লস পণ য
  • এশ য ক প ক র ক ট প রত য গ ত র র থ আসর ফ ব র য র থ ক ম র চ, ত র খ পর যন ত ভ রত অন ষ ঠ ত হয ইড ন গ র ড ন স বড ব ট স ট ড য ম
  • স ব ধ নত ক প স ব ধ নত ক প ব ল দ শ এর ম আসর স পন সরসশ পজন ত ক রণ ক এফস স ব ধ নত ক প ন ম ও পর চ ত ম ট ট দল প রত য গ ত য অ শগ রহণ কর
  • এস স ট য ন ট ক প এশ য ন ক র ক ট ক উন স ল কর ত ক আয জ ত এস স ট য ন ট ক প ক র ক ট প রত য গ ত র ম আসর - জ ন য র ত র খ স য ক ত
  • Cricket Northern Districts Cricket Association স গ রহ র ত র খ ম হক ক প প ল ঙ ক ট শ ল ড রজ র ট জ অকল য ন ড ক র ক ট দল ন উজ ল য ন ড য ট স ট ক র ক ট রদ র
  • বঙ গবন ধ ট ক প হচ ছ ব ল দ শ ট য ন ট ক র ক ট এর ধরন অন য য একট প রত য গ ত প রত য গ ত ট স ল র নভ ম বর - ড স ম বর ট দল র
  • ফরম য ট এর এস স ট য ন ট ক প এ অ শ ন য ত র গ র পপর ব অত ক রম করত ব যর থ হয এব এস স ট য ন ট ক প এ ত র ম স থ ন ল ভ কর গ র পপর ব
  • স ব ধ নত ক প ব জয - র ন র সআপ - শ খ ক ম ল আন তর জ ত ক ক ল ব ক প চ য ম প য ন - র ন র সআপ - ফ ড র শন ক প ফ য র প ল ট রফ
  • ফ টবল ক ল ব য মন ব ক এসপ এব ব ল দ শ র ড আব খ ন গ ল ড ক প প র স ড ন ট গ ল ক প ড ন ক প এব গথ য ক প র মত আন তর জ ত ক ফ টবল ট র ন ম ন ট স ফল য র

Users also searched:

...