Back

ⓘ তোবা বিপর্যয় তত্ত্ব




তোবা বিপর্যয় তত্ত্ব
                                     

ⓘ তোবা বিপর্যয় তত্ত্ব

তোবা মহা-অগ্ন্যুৎপাত হচ্ছে একটি মহা-আগ্নেয়গিরি অগ্ন্যুৎপাত যা প্রায় ৭৫,০০০ বছর পূর্বে বর্তমান ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা দ্বীপে অবস্থিত তোবা হ্রদে ঘটেছিল। এটা ইতিহাসের বৃহত্তম অগ্ন্যুৎপাতগুলোর মধ্যে একটি। তোবা বিপর্যয় তত্ত্ব অনুযায়ী এই অগ্ন্যুৎপাতের ফলে বৈশ্বিক অগ্ন্যুৎপাতজাত শৈত্যের শুরু হয়। মহা-অগ্ন্যুৎপাতের ফলে বৈশ্বিক তাপমাত্রা কমে গেলে সেই অবস্থাকে অগ্ন্যুৎপাতজাত শীতকাল বলা হয়। এই তত্ত্বটি অনুযায়ী এই অগ্ন্যুৎপাতজাত শীতকালের ফলে ৬ থেকে ১০ বছর ধরে বৈশ্বিক আগ্নেয়জাত শীতকাল চলে।

১৯৯৩ সালে, বিজ্ঞান সাংবাদিক এন গিবনস এই অগ্ন্যুৎপাত এবং মানব বিবর্তনের জনসংখ্যা সংকোচন Population bottleneck-এর মধ্যে একটি সম্পর্ক প্রস্তাব করেন। নিউ ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইকেল র‍্যামপিনো এবং ইউনিভার্সিটি অব হাওয়াই-এর স্টিভেন সেলফ এই প্রস্তাবকে সমর্থন করেন। কোনও প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে কোন প্রজাতির সংখ্যা কমে গিয়ে প্রায় বিলুপ্তির পর্যায়ে চলে আসলে তাকে বিবর্তনের ভাষায় জনসংখ্যা সংকোচন বলা হয়। ১৯৯৮ সালে ইউনভারসিটি অব ইলিনয়েসের স্ট্যানলি এইচ. এনব্রোস এই সংকোচন তত্ত্বকে আরও উন্নত করেন।

এই সম্পর্ক এবং বৈশ্বিক শীতকাল তত্ত্ব উভয়ই বিতর্কিত।

এই তোবা ঘটনাটি হল গবেষণায় থাকা আমাদের সবচাইতে নিকটবর্তী মহা-অগ্নুৎপাত।

                                     

1. তোবার পরে স্থানান্তর

মানব জনসংখ্যার যে স্থানান্তর হয়েছিল তা ভৌগলিকগত নিখুঁতভাবে জানা যায় নি। যারা বেঁচে গিয়েছিল তারা হয়তো আফ্রিকায় বাস করছিল এবং পরবর্তীতে পৃথিবীর অন্য অংশে তারা স্থানান্তরিত হয়েছিল। মাইটোকন্ড্রিয়াল ডিএনএর বিশ্লেষণে দেখা গিয়েছে; ৬০,০০০ থেকে ৭০,০০০ বছর পূর্বে আফ্রিকা থেকে বিরাট সংখ্যক স্থানান্তর ঘটেছিল। যা ডেটিং এর মাধ্যমে জানা ৭৫,০০০ বছর আগে সংঘটিত তোবা অগ্ন্যুৎপাৎ এর সাথে সংগতিপুর্ণ।

যাইহোক; ২০০৭ সালে প্রত্নতাত্ত্বিক একটি গবেষণা প্রস্তাবনা করেছে যে, হোমিনিড জনসংখ্যার আধুনিক হোমো সেপিয়েন্স রা সম্ভবত উত্তর ভারতের জোয়ালাপুরামে টিকে ছিল। অধিকন্তু এটি আরো প্রস্তাবনা করেছে যে হোমিনিড জনসংখ্যার কাছাকাছি আত্মীয় ফ্লোরসের হোমো ফ্লোরেসিনসিসরা টিকে ছিল কারণ তারা তোবার বাতাসের স্বাভাবিক গতির বিপরীতমুখী কোনো স্থানে বাস করত।

                                     

2. বহিঃসূত্র

  • Out Of Africa – Bacteria, As Well: Homo Sapiens And H. Pylori Jointly Spread Across The Globe ScienceDaily Feb. 16, 2007 – When man made his way out of Africa some 60.000 years ago to populate the world, he was not alone: He was accompanied by the bacterium Helicobacter pylori.; illus. migration map.
  • "Toba Volcano by George Weber"। এপ্রিল ২২, ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা । সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৪, ২০১৭ ।
  • 1998 article based on news release regarding Ambroses paper
  • Journey of Mankind by The Bradshaw Foundation – includes discussion on Toba eruption, DNA and human migrations
  • Magma Pancakes May Have Fueled Toba Supervolcano
  • Population Bottlenecks and Volcanic Winter
  • Mount Toba: Late Pleistocene human population bottlenecks, volcanic winter, and differentiation of modern humans by Professor Stanley H. Ambrose, Department of Anthropology, University Of Illinois, Urbana, USA; Extract from "Journal of Human Evolution" 34, 623–651
  • "The proper study of mankind" – Article in The Economist
  • Homepage of Professor Stanley H. Ambrose
  • Geography Predicts Human Genetic Diversity ScienceDaily Mar. 17, 2005 – By analyzing the relationship between the geographic location of current human populations in relation to East Africa and the genetic variability within these populations, researchers have found new evidence for an African origin of modern humans.