Back

ⓘ মিয়ানমারের পরিবহন ব্যবস্থা




মিয়ানমারের পরিবহন ব্যবস্থা
                                     

ⓘ মিয়ানমারের পরিবহন ব্যবস্থা

মায়ানমাএর ভূমি ভাগের বেশির ভাগ এলাকা পাহার পর্বত ও অরণ্য ভূমি দ্বারা বেষ্ঠিত। এই কারণে দেশটিতে পরিবহন ব্যবস্থা গড়া কঠিন কাজ। মায়নমার স্বাধীনতাপর দেশটিতে দুটি পরিবহন মন্ত্রক ছিল।এই গুলি হল-

  • মায়ানমার পরিবহন মন্ত্রক
  • রেল মন্ত্রক,মায়ানমার
                                     

1. রেল পরিবহন

২০০৮ সালের ফ্রেবুয়ারীর হিসাব অনুয়ায়ি দেশটতে মোট ৫,০৯৯ কিলোমিটার বা ৩,১৬৮ মাইল রেল পথ রয়েছে।এই রেল পথ ১০০০ এমএম বা ৩ ফুট ৩.৩৮ ইঞ্চি গেজের বিশিষ্ট।বর্তমানে দেশটিতে রেল পথ পরিবহনের জন্য ব্যবহার করা বন্ধ আছে।

মায়ানমার সরকার বর্তমানে দেশটিতে রেল পথ ব্যবহারের উপযোগি করে তোলার চেষ্টা চালাচ্ছে।রেল পথকে আরও আধুনিক করার চেষ্টাও হচ্ছো।বর্তমানে ব্রড গেজ রেল পথ নির্মানের এপর যোর দেওয়া হয়েছে।দেশের রাজধানীর সঙ্গে অন্য শহর গুলির রেল যোগাযোগ গড়ার চেষ্টাও চলছে।

                                     

2. সড়ক পথ

মায়ানমারে মোট ২৭,০০০ কিলোমিটার বা ১৬,৭৭৭ মাইল সড়ক পথ রয়েছে।এর মধ্যে ৩,২০০ কিলোমিটার বা ১৯৮৮ মাইল হল বেসরকারি সড়ক পথ।বাকি ২৩,৮০০ কিলোমিটার বা ১৪,৭৮৯ মাইল হল সরকারি সড়ক পথ।দেশের মহাসড়ক গুলি হল-

মহাসড়ক ১ মায়ানমার - এই মহাসড়কটি দেশের বৃহত্তম শহর ইয়াংগন থেকে দেশের রাজধানী শহর মন্দালয় পর্যন্ত গেছে।এই মমহাসড়কটি বাগো, টাউনগা, পরিনমান প্রভূতি শহর এর মধ্য দিয়ে গেছে।

মহাসড়ক ২ মায়ানমার - মহাসড়ক ২ দেশের বৃহত্তম শহর ইয়াংগন থেকে মন্দালয় পর্যন্ত গেছে।মহাসড়কটি পায়ার ও মাগরে শহরের সঙ্গে যুক্ত।

মহাসড়ক ৩ মায়ানমমার - এই মহাসড়কটি মায়ানমারের রাজধানী শহর মান্দালয় থেকে মমমুসে শহর নর্যন্ত গেছে।এই মহাসড়কটি চিন সীমান্ত পর্যন্ত গেছে।সড়কটি লাশিও শহরের সঙ্গে যুক্ত।

মহাসড়ক ৪ মায়ানমার - এই মহাসড়কটি মেকটিলা শহর থেকে টাচিলেইক শহর পর্যন্ত গেছে।সড়কটি থাইল্যান্ড সীমান্ত পর্যন্ত গেছে।কেনগটুনগ শহর এই মহাসড়ক এর সঙ্গে যুক্ত।

মহাসড়ক ৫ মায়ানমার - এই মহাসড়কটি টাউনগো থেকে হপোং পর্যন্ত গেছে।লইকার শহরটি এই মহাসড়ক এর সঙ্গে যুক্ত।

মহাসড়ক ৬ মায়ানমার - এই মহাসড়কটি ইয়ংগন থেকে পাথেইন পর্যন্ত চলে গেছে।

                                     

3. জলপথ

মায়ানমার এ মোট ১২ হাজার ৮০০ কিলোমিটার বা ৭ হাজার ৯৫৪ মাইল জলপথ রয়েছে।এই জল পথ নৌ চলাচলের জন্য প্রয়োজনীয় সংকেত ব্যবস্থা যুক্ত।জল পথ দেশটির অরণ্য ভূমি থেকে কাঠ পরি বহনে গুরুত্ব পূর্ন ভূমিকা নেয়।

                                     

4. পাইপ লাইন

  • তেলের পাইপ লাইন - ২ হাজার ২২৮ কিলোমিটার বা ১৩৮৪ মাইল।
  • গ্যাস পাইপ লাইন - ৫৫৮ কিলোমিটার বা ৩৪৭ মাইল
  • কাউনফং থেকে মন্দালয় হয়ে কুনমিন পর্যন্ত একটি পাইপলাইন এর প্যস্তাব রাখা হয়েছে চিন সরকার থেকে।