Back

ⓘ ২০১৬ ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ




                                     

ⓘ ২০১৬ ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ

২০১৬ ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ হল ফিফা কর্তৃক আয়োজিত ক্লাব পর্যায়ের ফুটবল প্রতিযোগিতা ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপের ১৩তম আসর। ২০১৬ সালের এ প্রতিযোগিতা ৮ থেকে ১৮ ডিসেম্বর জাপানের ওসাকা ও ইকোহামায় অনুষ্ঠিত হয়। ফিফা’র ব্যবস্থাপনায় এ প্রতিযোগিতায় ছয়টি মহাদেশীয় কনফেডারেশনের চ্যাম্পিয়ন ক্লাবগুলো প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। পাশাপাশি স্বাগতিক দেশের লীগ বিজয়ী দলও এতে অংশ নেয়। ফাইনালে রিয়েল মাদ্রিদ স্বাগতিক দেশের ক্লাব কাশিমা এন্টলার্সকে হারিয়ে দ্বিতীয় বারের মত শিরোপা জিতে।

                                     

1. নিলাম

ফিফার সদস্য সংস্থাসমূহের আগ্রহের ভিত্তিতে ২০১৪ সালের ৩০ মার্চ নিলাম প্রক্রিয়া শুরু হয় এবং ২৫ আগস্ট ২০১৪ তারিখে নিলামের নথিপত্র জমাদান সম্পন্ন হয়। ডিসেম্বর ২০১৪ সালে মরক্কোতে অনুষ্ঠিত ফিফা কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় স্বাগতিক দেশ নির্বাচন করা হয়। যাহোক, কোন সিদ্ধান্ত না হওয়ায় ২০১৫-২০১৬ সেশনের স্বাগতিকের জন্য ২০১৫ পর্যন্ত অপেক্ষমান রাখা হয়।

নিলামে অংশগ্রহণ করা সদস্য দেশসমূহ:

  • জাপান
  • ভারতভারত নভেম্বর ২০১৪ তে তাদের দাবি ত্যাগ করে।

জাপান ২০১৫ ও ২০১৬ আসরেএর জন্য অফিসিয়ালিভাবে স্বাগতিক ঘোষিত হয় ২৩ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে।

                                     

2. মাঠ

৯ জুন ২০১৬ তারিখে এ বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতার জন্য ওসাকার সুইতা সিটি ফুটবল স্টেডিয়াম এবং ইয়োকোহামার ইয়োকোহামা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম এ দুটি মাঠের নাম ঘোষণা করা হয়।

                                     

3. দলের সদস্য

ফিফা কর্তৃক ঘোষিত ১ ডিসেম্বর, ২০১৬ তারিখের মধ্যে প্রত্যেক দলকে ২৩ সদস্যদের নাম ঘোষণা করতে হবে। তন্মধ্যে অবশ্যই ৩জন গোলরক্ষক থাকবে। আঘাতজনিত কারণে দলের প্রথম খেলা শুরুর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পরিবর্তনযোগ্য।

                                     

4. খেলা

১৯ জুলাই ২০১৬ তারিখে খেলার সময়সূচি ঘোষণা করা হয়।

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ তারিখ স্থানীয় সময় ১১:০০ ঘটিকায় সুইজারল্যান্ডের জুরিখে অবস্থিত ফিফার হেডকোয়াটারে খেলার ড্র অনুষ্ঠিত হয়। কোয়ার্টার-ফাইনালের জন্য এএফসি, কাফ এবং কনকাকাফ - এ তিন অঞ্চলের চ্যাম্পিয়ন দলগুলোকে বন্ধনীতে রেখে সরাসরি কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার সুযোগ দেয়া হয়।

যদি কোন কারণে স্বাভাবিক সময়ের মধ্যে খেলা ড্র হয়:

  • ফলাফল নির্ধারণে অতিরিক্ত সময় বরাদ্দ রাখা হয়েছে। অতিরিক্ত সময়ের পরও যদি ড্র থাকে, তাহলে পেনাল্টি শুট-আউটের মাধ্যমে বিজয়ী নির্ধারণ করা হবে।
  • ৩য় ও ৫ম স্থান নির্ধারণে কোনরূপ অতিরিক্ত সময় বরাদ্দ করা হবে না। এক্ষেত্রে পেনাল্টি শুট-আউটের মাধ্যমে বিজয়ী নির্ধারণ করা হবে।

বন্ধনী

সকল সময় জাপানের স্থানীয় সময় জেএসটি ইউটিসি +০৯ অনুযায়ী।

                                     

5. গোলদাতা

১ আত্মঘাতি গোল
  • রিচার্ডো নাস্কিমেন্টো ম্যামেলোডি সান্ডাউন্স এর হয়ে, জিওনবাক হুন্ডাই মটরস এর বিপক্ষে
  • মিগুয়েল সামুদিও আমেরিকা এর হয়ে, অ্যাটলেটিকো ন্যাসনাল এর বিপক্ষে
                                     

6. চুড়ান্ত অবস্থান

ফুটবলের পরিসংখ্যানে অতিরিক্ত সময়েও জয়-পরাজয় নির্ধারিত হয়। কোন কারণে পেনাল্টি শুট-আউটের মাধ্যমে জয়-পরাজয়ের নিষ্পত্তি ঘটলেও তা ড্র হিসেবে পরিগণিত হয়।