Back

ⓘ এন্দেরুন মক্তব




এন্দেরুন মক্তব
                                     

ⓘ এন্দেরুন মক্তব

এন্দেরুন মক্তব ছিল কনস্টান্টিনোপলের একটি আবাসিক ও প্রাসাদ বিদ্যালয়। আমলাতন্ত্র, ব্যবস্থাপনা ও ইয়ানিসারি পদের জন্য এখানে শিক্ষা দেয়া হত। এন্দেরুন মক্তব উসমানীয় সাম্রাজ্যের বহুসংস্কৃতির আমলাতন্ত্রের জন্ম দিয়েছে ফলে শতাব্দী ধরে উসমানীয় কর্মকর্তাদের মধ্যে বিভিন্ন সংস্কৃতি থেকে আগত ব্যক্তিদের দেখা যেত। এন্দেরুন মক্তব একাডেমিক ও সামরিক ক্ষেত্রেও ভূমিকা রেখেছে। এখানকার স্নাতকরা মূলত সরকারি চাকরিতে যোগ দিত। উসমানীয় প্রাসাদের আভ্যন্তরীণ বিভাগ কর্তৃক এই মক্তব পরিচালিত হত।

                                     

1. ইতিহাস

উসমানীয় সাম্রাজ্যের সমৃদ্ধি কর্মকর্তাদের শিক্ষা ও নির্বাচনের উপর নির্ভরশীল ছিল। রোমান সাম্রাজ্যকে পুনরুজ্জীবিত করার জন্য দ্বিতীয় মুহাম্মদের লক্ষ্যের অংশ ছিল একটি বিশেষ শিক্ষালয় স্থাপন করে তাতে সাম্রাজ্যের শ্রেষ্ঠ তরুণদেরকে শিক্ষাদান করা। তিনি তার পিতা সুলতান দ্বিতীয় মুরাদ কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত প্রাসাদের বিদ্যালয়কে আরো উন্নত করে এন্দেরুন একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেন।

                                     

2. ভবন

তোপকাপি প্রাসাদের তৃতীয় উঠানটি রাজকীয় কোষাগার ও প্রাসাদ বিদ্যালয়ের দালান দ্বারা ঘেরা ছিল। এখানে এন্দেরুনের সর্বো‌চ্চ পর্যায়ের ছাত্র এবং উসমানীয় শাহজাদাদের শিক্ষাদান করা হত। এতে ৭টি হল বা গ্রেড ছিল এবং প্রত্যেক হলে ১২জন শিক্ষক ছাত্রদের মানসিক ও শিক্ষাগত উন্নতির জন্য দায়িত্বশীল ছিলেন। অর্জিত শ্রেণীর ভিত্তিতে ছাত্রদের বিশেষ ইউনিফর্ম পড়তে হত। এখানে অতিরিক্ত ভবনের মধ্যে ছিল লাইব্রেরী, মসজিদ, ছাত্রাবাস ইত্যাদি।

                                     

3. পাঠ্যক্রম

এন্দেরুন পদ্ধতিতে তিনটি প্রাক বিদ্যালয় ছিল প্রাসাদের বাইরে এবং একটি ছিল প্রাসাদের ভেতরে। তিনটি এন্দেরুন কলেজে ১,০০০-২,০০০ ছাত্র এবং প্রাসাদের বিদ্যালয়ে উচ্চ পর্যায়ের ৩০০ ছাত্র পড়ালেখা করত। পাঠ্যক্রম পাঁচটি প্রধান অংশে বিভক্ত ছিল:

  • বৃত্তিমূলক শিক্ষা, এর মধ্যে শিল্প ও সঙ্গীত অন্তর্ভুক্ত ছিল
  • শারীরিক প্রশিক্ষণ, অস্ত্রচালনা
  • ইতিহাস, আইন ও প্রশাসন: প্রাসাদ ও সরকারের বিষয়াদি
  • বিজ্ঞান; গণিত, ভূগোল
  • ইসলামি বিষয়; এর মধ্যে আরবি, ফার্সি ও তুর্কি ভাষা শিক্ষা অন্তর্ভুক্ত ছিল

শিক্ষাগ্রহণ শেষে স্নাতকরা কমপক্ষে তিনটি ভাষা বলতে, পড়তে ও লিখতে পারত। পাশাপাশি বিজ্ঞানের সাম্প্রতিক অগ্রগতি সম্পর্কে তারা জানতে সক্ষম হত, কোনো একটি শিল্পে দক্ষ হত এবং লড়াইয়ের দক্ষতা অর্জন করত।

                                     

4. চিকমা

এন্দেরুন মক্তব থেকে স্নাতকদের অনুষ্ঠানকে চিকমা বলা হত। স্নাতকদেরকেও চিকমা বলা হত। আক্ষরিকভাবে চিকমা অর্থ "ত্যাগ করা"। ছাত্ররা মক্তব ত্যাগ করে কর্মক্ষেত্রে যোগ দিত।

স্নাতকদেরকে তাদের দক্ষতার ভিত্তিতে সরকার বা বিজ্ঞান এই দুইটি মূল পদে নিয়োগ দেয়া হত। এছাড়া ফলাফলের ভিত্তিতে সামরিক বাহিনীতেও নিয়োগ দেয়া হত।