Back

ⓘ বিষয়শ্রেণী:ভারতের দেশীয় রাজ্য




                                               

জম্মু ও কাশ্মীর (দেশীয় রাজ্য)

জম্মু ও কাশ্মীর, যা কাশ্মীর ও জম্মু নামেও পরিচিত, ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির শাসনামলের পাশাপাশি ১৮৪৬ সাল থেকে ১৯৪৭ পর্যন্ত ভারতে ব্রিটিশ রাজের আমলে দেশীয় রাজ্য ছিল। রাজপরিবারটি প্রথম অ্যাংলো-শিখ যুদ্ধের পরে তৈরি হয়েছিল, যখন কাশ্মীর উপত্যকা, জম্মু, লাদাখ এবং গিলগিত-বালতিস্তানকে যুদ্ধের ক্ষতিপূরণ হিসাবে শিখদের কাছ থেকে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি অঞ্চলটিকে সংযুক্ত করে নিয়েছিল। তারপর এই অঞ্চল্টি জম্মুর রাজা, গোলাব সিং, এর কাছে ৭৫ লক্ষ টাকা নানকশাহীতে বিক্রি করেছিল। ভারত বিভাজন এবং ভারতের রাজনৈতিক সংহতকরণের সময়, রাজ্যের শাসক হরি সিং তাঁর রাজ্যের ভবিষ্যতের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করেন। ত ...

                                               

দেশীয় রাজ্য

দেশীয় রাজ্য বলতে বোঝায় ব্রিটিশ ভারতের অন্তর্গত মৌখিকভাবে সার্বভৌম রাজ্য। ব্রিটিশরা সরাসরি এসব রাজ্য শাসন করতে না। এসব রাজ্য ব্রিটিশ আধিপত্য মেনে নিয়ে স্থানীয় শাসকের অধীনে পরিচালিত হত। ১৯৪৭ সালে ভারতের স্বাধীনতার সময় সরকারিভাবে ৫৬৫টি দেশীয় রাজ্য ভারতজুড়ে অবস্থিত ছিল। এগুলোর মধ্যে মাত্র ২১টির বাস্তবিক সরকার ছিল যার মধ্যে চারটি ছিল বৃহত্তম। এগুলো হল হায়দ্রাবাদ, মহিশুর, বরোদা এবং জম্মু ও কাশ্মির। ১৯৪৭ থেকে ১৯৪৯ সালের মধ্যে এসব রাজ্য নবগঠিত স্বাধীন রাষ্ট্র ভারত ও পাকিস্তানের সাথে একীভূত হয়ে যায়। একীভূত প্রক্রিয়া অধিকাংশ ক্ষেত্রে শান্তিপূর্ণ ছিল। জম্মু ও কাশ্মির এবং হায়দ্রাবাদের ক্ষে ...

                                               

পূর্ব রাজ্যসঙ্ঘ

পূর্ব রাজ্যসঙ্ঘ বা পূর্ব রাজ্য ইউনিয়ন কিংবা পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যসঙ্ঘ বা পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ইউনিয়ন ছিল সদ্য স্বাধীন ভারত অধিরাজ্যে অন্তর্ভূক্ত হওয়া ব্রিটিশ ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় দেশীয় রাজ্যগুলোর একটি স্বল্প-কালীন ইউনিয়ন বা জোট। ১৭৪৭ সালে ভারতের স্বাধীনতাপর ব্রিটিশ রাজের শাসন ব্যবস্থা বিলুপ্ত হওয়ায় ক্ষমতার শূন্যতা পূরণ করার লক্ষ্যে প্রাক্তন উড়িষ্যার করদ-রাজ্য এবং ছত্তিসগড় রাজ্য সংস্থার অন্তর্ভূক্ত বেশিরভাগ দেশীয় রাজ্যকে একত্রিত করে এই ইউনিয়ন বা রাজ্য সঙ্ঘ প্রতিষ্ঠা করা হয়।

                                               

বাবরিয়াওয়াদ

বাবরিয়াওয়াদ ছিল জুনাগড় রাজ্যের রাজত্বের অধীনে একটি ছোট্ট রাজত্ব। ব্রিটিশ ভারতের সময়ে, জুনাগড় রাজ্যের দক্ষিণ মধ্য কাঠিয়াওয়ারের পূর্বতম জেলা ছিল। এটি তখন প্রায় ৫১ টি গ্রাম নিয়ে গঠিত। পরে নামে নামকরণ করা হয় বাবরিয়া কাঠির নামে, যারা ডাকাতি ও লুণ্ঠন জন্য বিখ্যাত এবং ধানাং নামে পরিচিত ছিল। ১৯৪৭ সালে ভারত ভাগের সময়, বাবরিয়াওয়াদের জায়গীরদাররা মঙ্গরোল রাজ্যসহ, জুনাগড়ের থেকে তাদের স্বাধীনতা ঘোষণা করে এবং ভারতীয় অধিরাজ্যে যোগদানের সিধান্ত নেয়। জুনাগড়ের নবাব এই রাজত্বগুলিকে অনুমোদন দেননি এবং মঙ্গরোলের শেখের উপর ভারতে তাঁর রাজত্ব ত্যাগ করার জন্য এবং বাবারিয়াওয়াদ দখল করতে তাঁর সৈন্য ...

                                               

সিকিমের ইতিহাস

সিকিমের ইতিহাস বর্তমান উত্তর-পূর্ব ভারতের একটি অঞ্চল, ১৬৪২ সালে প্রতিষ্ঠিত একটি রাজ্য হিসাবে শুরু হয়েছিল যখন ভারতে এবং নেপালে তখনও অনেক শাসক সহ অনেক দেশীয় রাজ্য ছিল এবং বর্তমানের একত্রিত হওয়া ভারতের ইউনিয়ন এবং নেপালের দেশ তখনও সৃষ্টি হয় নি। সিকিম তখন ছিল চোগিয়াল নামে পরিচিত একজন রাজার ছত্রছায়ায় মজবুত রাষ্ট্র হয়ে উঠেছিল এবং ১৯৭৫ সালের ১৬ই মে অবধি রাজা রাজাদের দ্বারা শাসিত একটি স্বাধীন দেশ ছিল। সিকিমের বারোজন রাজা ছিলেন; পালডেন থন্ডুপ নামগিয়াল ছিলেন স্বাধীন সিকিমের শেষ রাজা। প্রাচীন হিন্দু এবং তিব্বতিদের মধ্যে যোগাযোগ ছিল, তারপরে সপ্তদশ শতকে বৌদ্ধ রাজ্য বা চোগিয়াল প্রতিষ্ঠা হয়েছি ...