Back

ⓘ গাঁজা (ঔষধ)




গাঁজা (ঔষধ)
                                     

ⓘ গাঁজা (ঔষধ)

গাঁজা, সাধারণত মারিজুয়ানা, গঞ্জিকা, গাঞ্জা, সিদ্ধি ইত্যাদি নামে পরিচিত; a মূলত গাঁজা উদ্ভিদের এক ধরনের প্রস্তুতি যা সাইকোঅ্যাক্টিভ ড্রাগ এবং ঔষধ হিসেবে ব্যবহারের উদ্দেশ্যে প্রস্তুত করা হয়। ফার্মাকোলজিক্যালি, গাঁজার প্রধান সাইকোঅ্যাক্টিভ উপাদান হল টেট্রাহাইড্রোক্যানাবিনল ; এটি উদ্ভিদের ৪৮৩টি পরিচিত যৌগের ১টি, এছাড়াও ৮৪টি অন্যান্য ক্যানাবিনোয়েড্‌স রয়েছে, যেমন ক্যানাবিডিওল, ক্যানাবিনল, টেট্রাহাইড্রোক্যানাবিভারিন, এবং ক্যানাবিগেরো । গাঁজা সাধারণত ধূমপান, বাষ্পীকরণ, খাবারের মধ্যে মিশ্রণ, এবং নির্যাস হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

গাঁজা প্রায়ই এর সাইকোঅ্যাক্টিভ এবং শারীরবৃত্তীয় প্রভাবের জন্য ব্যবহৃত হয়, যেমন একটি "উচ্চ" বা "ভেলকা" অনুভূতি হিসাবে, সাধারণ উপলব্ধি পরিবর্তন, রমরমা উচ্চমানের মেজাজ, এবং এবং ক্ষুধা বৃদ্ধি করে। ধূমপানের মাধ্যমে সেবনে অল্প সময়ের মধ্যেই প্রভাবগুলির সূচনা হয়, অন্যদিকে রান্না করে খাওয়া হলে প্রায় ৩০ থেকে ৬০ মিনিট এর প্রভাব উপলব্ধ করা যায়। উভয় ক্ষেত্রেই এর প্রভাব পাঁচ-ছয় ঘণ্টা স্থায়ী হতে পারে। সম্ভাব্য স্বল্পমেয়াদী পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে, স্বল্পমেয়াদী স্মৃতি হ্রাস, মুখগহ্বরে শুষ্কতা, অনভিজ্ঞের মতোন আচরণ করা, চোখ লাল হওয়া, এবং প্যারানয়া মস্তিষ্কবিকৃতিবিশেষ বা উদ্বেগ অনুভূতি হওয়া। সম্ভাব্য দীর্ঘমেয়াদী পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে, মানসিক ক্ষমতা হ্রাস- যারা তের থেকে ঊনিশ বছর বয়সে সেবন শুরু করেছে, এবং শিশুদের মধ্যে আচরণগত সমস্যা দেখা দেয় যাদের মা গর্ভাবস্থায় গাঁজা সেবন করেন। গবেষণায় গাঁজা ব্যবহার এবং মানসিক রোগের ঝুঁকি বিষয়ে শক্তিশালী সম্পর্ক পাওয়া গেছে;, যদিও কর্যিকারণ এবং প্রভাব সম্পর্কে বিতর্ক রয়েছে।

আধুনিককালে গাঁজা বিনোদনমূলক বা চিকিৎসার ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। প্রাথমিককালে ধর্মীয় বা আধ্যাত্মিক আচার-অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবেও খ্রিষ্টপূর্ব ৩ হাজার বছর পূর্বে এর ব্যবহার হত। ২০১৩ সালের হিসেবে, ১২৮ এবং ২৩২ মিলিয়ন মানুষের মধ্যে গাঁজার ব্যবহার অনুমান করা যায় বিশ্বব্যাপী জনসংখ্যার ১৫ এবং ৬৫ বছরের মধ্যে ২.৭% থেকে ৪.৯%। ২০১৫ সালের হিসেবে, ৪৬% মার্কিনী গ্যাঁজা ব্যবহার করে, যা ২০১৬ সালে ৫১% বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রায় ১২% বিগত বছরের মধ্যে এর ব্যবহার করেছেন, এবং ৭.৩% বিগত মাসে এর ব্যবহার করেন। বিশ্বের এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উভয় ক্ষেত্রেই এটি সর্বাধিক ব্যবহৃত অবৈধ ড্রাগ।

প্রাথমিভাবে ৩য় সহস্রাব্দের বিসি থেকে গাঁজার ব্যবহার সম্পর্কে জানা যায়। বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে থেকে, গাঁজা আইনি সীমাবদ্ধতার বিষয় হয়ে ওঠে। বিশ্বের বেশিরভাগ দেশেই গাঁজার মালিকানা, ব্যবহার, এবং বিক্রয় অবৈধ। চিকিৎসাবিজ্ঞানে মারিজুয়ানা বা গাঁজা মূলত চিকিৎসক-প্রস্তাবিত ভেষজ থেরাপি হিসাবে গাঁজা উদ্ভিদের ব্যবহার বোঝায়, যা ইতোমধ্যে কানাডা, বেলজিয়াম, অস্ট্রেলিয়া, নেদারল্যান্ড, স্পেন, এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৩২টি রাজ্যে স্থান করে নিয়েছে। ১৯৭০-এর দশকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গাঁজার ব্যবহার জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। এরপর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আইনিকরণের জন্য সহায়তা বৃদ্ধি পেয়েছে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি রাজ্যে বিনোদনমূলক বা চিকিৎসা সেবার জন্য গাঁজার বৈধকরণ করা হয়েছে।

                                     

1. প্রভাব

গাঁজার সেবনের সাইকোঅ্যাক্টিভ এবং শারীরবৃত্তীয় নানান প্রভাব রয়েছে। গাঁজার তাৎক্ষণিক গ্রাসকারী প্রভাবের মধ্যে শিথিলায়ন এবং হালকা রমরমা মেজাজ অন্তর্ভুক্ত "উচ্চ" বা "স্টোন্ড" অনুভূতি, কিছু তাৎক্ষণিক অবাঞ্ছিত পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে স্বল্পমেয়াদী স্মৃতি হ্রাস, মুখগহ্বর শুষ্কতা, অনভিজ্ঞ করে তোলা, চোখ লাল হওয়া প্রভৃতি। পাশাপাশি বোধ এবং মেজাজ বা মানসিক অবস্থার বিষয়ী পরিবর্তন, সর্বাধিক সাধারণ স্বল্পমেয়াদী শারীরিক ও স্নায়বিক প্রভাবের মধ্যে হৃৎস্পন্দন বৃদ্ধি, ক্ষুধা বৃদ্ধি ও অতিরিক্ত খাদ্য গ্রহণ, নিম্ম রক্তচাপ, স্বল্পমেয়াদী এবং কর্ম স্তৃতির অবনতি, মানসিক সমন্বয় এবং একাগ্রতা অর্ন্তভূক্ত।

                                     

2. প্রস্তুতি

হাশিশ

হাশিশ একধরনের ঘনীভূত রজন কেক বা বল বিশেষ যা, গাঁজার ফুল এবং পাতা থেকে নিঃসৃত ট্রিকহোম এবং উত্তম উপাদানসমন্বিত কিফ থেকে চিপে উৎপাদন করা হয়। এটি খাওয়া কিংবা ধোঁয়া হিসেবে পান করা হয়।

হ্যাশ তেল

হ্যাশ তেল গাঁজা উদ্ভিদ থেকে দ্রাবক নিষ্কাশনের মাধ্যমে পাওয়া যায়।

আধান

অনুদ্বায়ী দ্রাবক ব্যবহৃত গাঁজার আধান আরোপের বিভিন্ন ধরন রয়েছে।

বিমিশ্র গাঁজা

দূষণকারী মূলত "সাবান বার" ধরনের উৎস থেকে প্রাপ্ত হাশিশ থেকে পাওয়া যেতে পারে।

                                     

2.1. প্রস্তুতি মারিজুয়ানা

মারিজুয়ানা বলতে শুকনো ফুল এবং স্ত্রী গাঁজা উদ্ভিদের কচি পাতা ও ডালপালাকে বুঝায়। এটি গাঁজার সর্বাধিক প্রচলিত ধরন যার মাঝে টিএইচসি এর পরিমাণ থাকে ৩%-২০% এছাড়াও সর্বোচ্চ ৩৩% টিএইচসি ও অনেক ধরনের মাঝে পাওয়া যায়। এছাড়াও, বিভিন জাতের মিশ্রণ ঘটিয়ে গাঁজার শিল্প উৎপাদন করা হয় যেখানে টিএইচসি এর পরিমাণ থাকে ১% এবং এ কারণে এটি বিনোদনমূলক ব্যবহারের অনুপযোগী।

                                     

2.2. প্রস্তুতি হাশিশ

হাশিশ একধরনের ঘনীভূত রজন কেক বা বল বিশেষ যা, গাঁজার ফুল এবং পাতা থেকে নিঃসৃত ট্রিকহোম এবং উত্তম উপাদানসমন্বিত কিফ থেকে চিপে উৎপাদন করা হয়। এটি খাওয়া কিংবা ধোঁয়া হিসেবে পান করা হয়।

                                     

2.3. প্রস্তুতি হ্যাশ তেল

হ্যাশ তেল গাঁজা উদ্ভিদ থেকে দ্রাবক নিষ্কাশনের মাধ্যমে পাওয়া যায়।

                                     

2.4. প্রস্তুতি আধান

অনুদ্বায়ী দ্রাবক ব্যবহৃত গাঁজার আধান আরোপের বিভিন্ন ধরন রয়েছে।

                                     

2.5. প্রস্তুতি বিমিশ্র গাঁজা

দূষণকারী মূলত "সাবান বার" ধরনের উৎস থেকে প্রাপ্ত হাশিশ থেকে পাওয়া যেতে পারে।

                                     

3. পাদটীকা

^ a: গাঁজা, পট, গ্রাস, এবং ঔষধি ওষুধ হিসেবে গাঁজা বা ভাংয়ের অন্যান্য ডাকনাম। ^ b: চিকিৎসাবিজ্ঞানে গাঁজা নিবন্ধে এই বিভাগের জন্য আরও তথ্য এবং উৎস পাওয়া যাবে।