Back

ⓘ অ্যাস্ট্রো বয়




                                     

ⓘ অ্যাস্ট্রো বয়

অ্যাস্ট্রো বয় হল জাপানি মাঙ্গা ও আনিমে সিরিজ যেটি লিখেছেন ওসামু তেজুকা। যেটি যাত্রা শুরু করে ১৯৫২ থেকে ১৯৬৮ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত। এই সিরিজটির কাহিনী হল একটি রোবটের দুঃসাহসিক কর্মকাণ্ড নিয়ে।যার নাম অ্যাস্ট্রো বয়। যেটিকে মাঙ্ঘা থেকে টেলিভিশন সিরিজে রূপান্তর করা হয়। এটা প্রথম মাঙ্গা জনপ্রিয় অ্যানিমেটেঢ সিরিঝ। এটা খুব শীঘ্রই জনপ্রিয় আনিমে সিরিজে পরিণত হয়। প্রচুর জনপ্রিয়তা লাভেপর ১৯৮০ খ্রিষ্টাব্দে এটার পুনরায় নিমার্ণ করা হয়। যেটি অন্যান্য কিছু দেশে মাইটি এটম নামে পরিচিত। এটাকে আবার পুনরায় নির্মাণ করা হয় ২০০৩ খ্রিস্টাবে। একটি আমেরিকান কম্পিউটার অ্যানিমেটেড থ্রী ডি চলচ্চিত্র। যেটি আসল মাঙ্গা সিরিজ ওসামু তেজুকার এ্যাস্ট্রো বয়ের উপর ভিত্তি করে একটি চলচ্চিত্র।এটা মুক্তি লাভ করে ২৩ অক্টোবর, ২০০৯।

                                     

1. কাহিনীসংক্ষেপ

অ্যাস্ট্রো বয় সিরিজটি একটি ভবিষ্যতের দুনিয়া। যেখানে রোবট আর মানুষ একসাথে বন্ধুর মতো বাস করে। ডক্টর তেনামা নামক ব্যক্তি যে জাপানে বিজ্ঞান মন্ত্রালয়ের প্রধান। সে একটি গাড়ির দুর্ঘটনায় তার আদরের ছেলে টোবিও কে হারায়। তখন সে টোবিও এর মতো দেখতে অ্যাস্ট্রো বয় কে প্রস্তুত করে। কিন্তু অ্যাস্ট্রো তার ছেলে টোবিও এর মতো দেখতে হলেও কিন্তু সে ডক্টর তেনামার মন জয় করতে পারেনি। ডক্টর তেনামা পরে বুঝতে পারেন এটা তার হারানো পুত্র টোবিও না। তখন সে অ্যাস্ট্রো কে একটি সার্কাসের মালিকের কাছে বিক্রয় করে দেয়। তখন অ্যাস্ট্রো সার্কাসে কাজ করে। এর পরে প্রফেসর ওসানামিজু যে বিজ্ঞান মন্ত্রালয়ের নতুন প্রধান। তিনি অ্যাস্ট্রো কে ঐ সার্কাস থেকে ক্রয় করেন। তিনি অ্যাস্ট্রো কে দক্তক নেন। তাই তিনি আইনগত ভাবে অ্যাস্ট্রো এর পিতা। তিনি খুব শীঘ্রই ভাবে বুঝতে পারেন অ্যাস্ট্রো অসাধারণ শক্তির অধিকারী। অ্যাস্ট্রো এসময়ে তার শক্তি ভালো কাজে ব্যয় করেন। তিনি তার শক্তির সাহায্যে শহর কে রক্ষা করে। তিনি নানা চোর ডাকাত ধরে পুলিশ ধরে সাহায্য করে।