Back

ⓘ বিষয়শ্রেণী:দক্ষিণ এশিয়া




                                               

উত্তরপ্রদেশের ইতিহাস

ভারতের রাজ্য উত্তরপ্রদেশের ইতিহাস, যা আগে উত্তর ভারত বলেই পরিচিত ছিল, আগ্রা ও অযোধ্যার উত্তর-পশ্চিম অঞ্চলগুলিকে নিয়ে তার গঠন হয়েছিল ১৯৩৭ সালের ১লা এপ্রিল। কিন্তু এই অঞ্চল গুলিতে মানবজাতির বসবাস শুরু হয়েছিল ৮৫ থেকে ৭৩ হাজার বছর আগে। মনে করা হয়, প্রায় খৃষ্টপূর্ব ৬ হাজার বছর আগে এখানে মানুষ স্থায়ীভাবে বসতি স্থাপন করেছিল। বাবর যখন ১৫২৬ সালে আক্রমণ করে দিল্লী সুলতানী শাষণের অবসান করে, বর্তমান উত্তরপ্রদেশের বেশিরভাগ অঞ্চল নিয়ে মুঘল সাম্রাজ্যের পত্তন করেন, সেই সময় থেকেএই অঞ্চলের আধুনিক যুগের সূচনা হয়েছিল বলে ধরা যায়। ফতেপুর সিকরি, এলাহাবাদ দুর্গ, আগ্রা দুর্গ, ও তাজমহল ইত্যাদি মুঘল সাম্র ...

                                               

দক্ষিণ এশিয়া

দক্ষিণ এশিয়া বা দক্ষিণাঞ্চলীয় এশিয়া বলতে এশিয়া মহাদেশের দক্ষিণে অবস্থিত ভারতীয় উপমহাদেশ ও তার সন্নিকটস্থ অঞ্চলকে বোঝায়। এর পশ্চিমে পশ্চিম এশিয়া বা মধ্যপ্রাচ্য, উত্তরে মধ্য এশিয়া, আর পূর্বে পূর্ব এশিয়া ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া।

                                               

দক্ষিণ এশিয়ার ইতিহাসের রূপরেখা

দক্ষিণ এশিয়ার ইতিহাস – দক্ষিণ এশিয়া ভারত উপমহাদেশ অন্তর্গত সমসাময়িক রাজনৈতিক সত্তা এবং এর সাথে সম্পৃক্ত দ্বীপকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠে। ফলে দক্ষিণ এশিয়ার ইতিহাস হল ভারত, পাকিস্তান, বাংলাদেশ, নেপাল, আফগানিস্তান, ভুটান এবং দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপের ইতিহাস।

                                               

দক্ষিণাত্য সালতানাত

ডেকান সালতানাত ছিল পাঁচটি প্রয়াত মধ্যযুগীয় ভারতীয় রাজ্য যা কৃষ্ণ নদী এবং বিন্ধ্য রেঞ্জের মধ্যবর্তী ডেকান মালভূমিতে মুসলিম রাজবংশদ্বারা শাসিত ছিল: যেমন আহমদনগর, বেরার, বিদার, বিজাপুর এবং গোলকোন্ডা। বাহমানি সালতানাতের ভাঙনের সময় সালতানাত গুলো স্বাধীন হয়। ১৪৯০ সালে, আহমদনগর স্বাধীনতা ঘোষণা করে, তার পরে একই বছর বিজাপুর এবং বেরার। গোলকোন্ডা ১৫১৮ সালে এবং বিদার ১৫২৮ সালে স্বাধীন হয়েছিল। পাঁচটি সালতানাতের উৎপত্তি ছিল বৈচিত্র্যময়: আহমদনগর সালতানাত ছিল ব্রাহ্মণ-হিন্দু; বেরার সালতানাত ছিল কানারেসে-হিন্দু; বিদার সালতানাত একটি প্রাক্তন তুর্কি ক্রীতদাস দ্বারা প্রতিষ্ঠিত; বিজাপুর সালতানাত একটি জর ...

                                               

বঙ্গ ও বাঙালির স্বাধীনতা সংগ্রাম

বঙ্গ ও বাঙালির স্বাধীনতা সংগ্রাম বলতে আঠারো, উনিশ এবং বিশ শতকের বিভিন্ন আন্দোলন এবং যুদ্ধকে বোঝায় যার লক্ষ্য ছিল প্রথমে উপনিবেশিক শাসন থেকে এবং পরে ঐতিহাসিক বাংলা ভূখণ্ডের বাইরে অবস্থিত শাসনকেন্দ্রগুলি থেকে বাংলার জাতিগত-ভাষাতাত্ত্বিক অঞ্চলকে মুক্তি দেওয়া। বিংশ শতাব্দীতে, বাঙালি জাতীয়তাবাদ একটি জনপ্রিয় রাজনৈতিক আদর্শ হিসাবে বিকশিত হয়েছিল এবং বাঙালি জনগণকে একটি স্বতন্ত্র সাংস্কৃতিক ও ভাষিক জাতি হিসাবে গৌরবান্বিত করেছিল।

                                               

বিহারের ইতিহাস

বিহারের ইতিহাস উত্তর ভারত এবং পূর্ব ভারতের সবচেয়ে বৈচিত্রময় ইতিহাসগুলির মধ্যে একটি। বিহার তিনটি পৃথক অঞ্চল নিয়ে গঠিত। প্রত্যেকটি অঞ্চলের নিজস্ব স্বতন্ত্র ইতিহাস এবং সংস্কৃতি রয়েছে। অঞ্চল তিনটি হল মগধ, মিথিলা এবং ভোজপুর। বিহারের সারন জেলায় গঙ্গা নদীর উত্তর-পশ্চিমে চিরান্ড এলাকায় নবপ্রস্তর যুগের একটি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান রয়েছে। প্রাচীন ভারতে ধর্মীয় গ্রন্থে এবং মহাকাব্যগুলিতে বিহার-মগধ, মিথিলা ও অঙ্গ র মতো অঞ্চলগুলি উল্লেখ করা হয়েছে। মিথিলাকে পরবর্তীতে বৈদিক যুগে ভারতীয় শক্তির কেন্দ্র বলে মনে করা হয়। মিথিলা প্রথম অগ্রাধিকার লাভ করে, যখন ইন্দো-আর্য সম্প্রদায়ের দ্বারা বসতি স্থাপন ক ...

                                               

ভারতীয় উপমহাদেশ

ভারতীয় উপমহাদেশ হল এশিয়ার দক্ষিণ অঞ্চলে অবস্থিত একটি উপমহাদেশ, যা হিমালয়ের দক্ষিণে ভারতীয় টেকটনিক পাতের উপর অবস্থিত এবং দক্ষিণে ভারত মহাসাগর পর্যন্ত প্রসারিত এক সুবিশাল ভূখণ্ডের উপর বিদ্যমান। এই অঞ্চলের রাষ্ট্রগুলি হল বাংলাদেশ, ভারত, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, মালদ্বীপ, নেপাল ও ভুটান।

                                               

ভারতীয় ধর্ম

ভারতীয় ধর্ম বলতে ভারতীয় উপমহাদেশে উদ্ভূত ধর্মবিশ্বাসগুলিকে বোঝায়। এই ধর্মগুলি হল হিন্দুধর্ম, জৈনধর্ম, বৌদ্ধধর্ম ও শিখধর্ম। ইংরেজিতে অনেক সময় ভারতীয় ধর্মগুলিকে ধার্মিক রিলিজিয়নস নামেও অভিহিত করা হয়। এই ধর্মবিশ্বাসগুলিকে প্রাচ্যদেশীয় ধর্ম বর্গেরও অন্তর্ভুক্ত করা হয়। ভারতীয় ধর্মগুলি ভারতের ইতিহাসের দ্বারা পরস্পর সম্পর্কযুক্ত হলেও এগুলি থেকে বহু-সংখ্যক বৈচিত্র্যপূর্ণ ধর্মীয় সম্প্রদায়ের উদ্ভব ঘটেছে। বর্তমানে এই ধর্মমতগুলি ভারতীয় উপমহাদেশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। ভারতীয় ধর্মকে আর্য ধর্মও বলা হয়ে থাকে।

                                               

হিমাচল প্রদেশের ইতিহাস

হিমাচল প্রদেশের অবস্থান উত্তর ভারতে এবং এটি ভারতের ১৮তম রাজ্য। ১৯৪৮ সালে চিফ কমিশনারের প্রদেশ হিসেবে হিমাচল প্রদেশ ইউনিয়ন অব ভারতে প্রতিষ্ঠিত হয়। শিমলার পার্শ্ববর্তী পাহাড়ি জেলা ও পূর্ব-পাঞ্জাব রাজ্যের দক্ষিণের পাহাড়ি এলাকাগুলো এই প্রদেশের অন্তর্গত। ২৬শে জানুয়ারি ১৯৫০ সালে ভারতের সংবিধান বাস্তবায়নের মাধ্যমে হিমাচল সি শ্রেণির রাজ্যে অন্তর্ভুক্ত হয়। হিমাচল প্রদেশ ১লা নভেম্বর ১৯৫৬ সালে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত হয়। ১৮ই ডিসেম্বর ১৯৭০ সালে হিমাচল প্রদেশ রাজ্য আইন সংসদে পাশ হয় এবং ২৫শে জানুয়ারি ১৯৭১ সালে হিমাচল প্রদেশ নতুন রাজ্য হিসেবে আত্নপ্রকাশ করে। এর ফলে হিমাচল ভারতের ১৮তম রাজ্য হি ...

                                     

ⓘ দক্ষিণ এশিয়া

  • ম ল য ন রও ব শ অন ম ন কর হয ছ দক ষ ণ আম র ক অঞ চল এশ য আফ র ক এব উত তর আম র ক র পর চত র থ এব জনস খ য য পঞ চম এশ য আফ র ক ইউর প এব উত তর
  • এশ য ক প উন মন এশ য ক প ন ম ও পর চ ত হল একট একদ ন র আন তর জ ত ক ক র ক ট প রত য গ ত য স ল র স প ট ম বর স য ক ত আম র ত অন ষ ঠ ত হয
  • ফক স স প র টস এশ য প র ব র ইএসপ এন স ট র স প র টস এশ য একট ট ল ভ শন চ য ন ল এট দক ষ ণ এশ য য পর চ ল ত হয ছ ল, তব স ট র ইন ড য স ল
  • এশ য ন উজ ন টওয র ক এএনএন হল দক ষ ণ দক ষ ণপ র ব এব উত তরপ র ব এশ য র ট স ব দ স স থ র সমন বয গঠ ত একট স ব দ জ ট এশ য ন উজ ন টওয র ক র
  • দল র ব পক ষ আফ র - এশ য ক প প রত য গ ত য ন য ম তভ ব প রত দ বন দ ব ত কর আসছ স ল আফ র - এশ য ক প র উদ ব ধন আসর দক ষ ণ আফ র ক য বস এব দ ব ত য ট
  • এশ য ক প স ট র ক র ক ট এশ য ক পও বল হয জ ন - এ প ক স ত ন অন ষ ঠ ত হয ক পট এ হওয র কথ থ কল ও আন তর জ ত ক ব যস তত র জন য এ
  • প রত বছর ম র চ র দ ব ত য স মব র দ প র দক ষ ণ ও উত তর আম র ক মঙ গলব র সক ল ওয র স ট ন প য স ফ ক এব এশ য অঞ চল সদস যদ শগ ল ত এপ এমও অন ষ ঠ ত হয
  • moʊnˌkəˈmɛər হচ ছ দক ষ ণ - প র ব এশ য ভ রত ও ব ল দ শ প রচল ত একট বড ভ ষ পর ব র ল ত ন আস ত র অর থ ৎ দক ষ ণ এব গ র ক আস য এশ য ম ল এই ভ ষ গ ল র
  • দক ষ ণ এশ য গ মস ই র জ South Asian Games, SA Games দ ব - ব র ষ কভ ত ত ত প রবর ত ত বহ - ক র ড প রত য গ ত হ স ব দক ষ ণ এশ য র ক র ড ব দগণ অ শগ রহণ

Users also searched:

...
...
...