Back

ⓘ ই-বাণিজ্য




                                               

ই-ক্যাব

ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ বাংলাদেশের ই-কমার্স সমস্যা নিরসন করার জন্য প্রতিষ্ঠিত একটি সংস্থা। ২০১৫ সালে ই-ক্যাব তাদের যাত্রা শুরু করে। সংস্থাটি পোস্ট অফিস এবং বাংলাদেশ সরকারের এটুআই কর্মসূচীর মাধ্যমে সারা দেশে ই-কমার্সের পণ্যকে পৌঁছাবার লক্ষ্যে কাজ করে।

                                               

মামার ইবনে রাশিদ

মামার ইবনে রাশিদ ছিলেন অষ্টম শতকের একজন হাদিস বিশেষজ্ঞ ইসলামি পণ্ডিত; একজন পার্সিয়ান মাওলা । প্রচলিত সুন্নি হাদিস সংগ্রহ এর ছয়টিতেই তাকে পণ্ডিত হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

                                     

ⓘ ই-বাণিজ্য

ইলেকট্রনিক কমার্স বা ই-কমার্স বা ই-বাণিজ্য একটি বাণিজ্য ক্ষেত্র যেখানে কোনো ইলেকট্রনিক সিস্টেম এর মাধ্যমে পণ্য বা সেবা ক্রয়/ বিক্রয় হয়ে থাকে। আধুনিক ইলেকট্রনিক কমার্স সাধারণত ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব এর মাধ্যমে বাণিজ্য কাজ পরিচালনা করে। এছাড়াও মোবাইল কমার্স, ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার ও অন্যান্য আরো কিছু মাধ্যম ব্যবহৃত হয়।

                                     

1. প্রকারভেদ

  • ব্যবসা-থেকে-ব্যবসা B2B

ব্যবসা-থেকে-ব্যবসা ইলেকট্রনিক কমার্স সম্পাদিত হয় একাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে। ৮০ শতাংশের ৮০% মত ইলেকট্রনিক কমার্স ব্যবসা-থেকে-ব্যবসা প্রকাএর অন্তর্ভুক্ত।

  • ব্যবসা-থেকে-গ্রাহক B2C ব্যবসা-থেকে-গ্রাহক ইলেকট্রনিক কমার্স সম্পাদিত হয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও গ্রাহকের মধ্যে। এই প্রকারে দ্বিতীয় সর্বাপেক্ষা বেশি ইলেকট্রনিক বাণিজ্য সম্পাদন হয়ে থাকে।
  • ব্যবসা-থেকে-সরকার B2G

ব্যবসা-থেকে-সরকার ইলেকট্রনিক কমার্স সম্পাদিত হয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও রাষ্ট্রীয় খাতের মধ্যে। এটি সাধারনত ব্যবহৃত হয়ে থাকে রাষ্ট্রীয় কেনা/বেচা, লাইসেন্স সংক্রান্ত কার্যাবলী, কর প্রদান ইত্যাদি ক্ষেত্রে।

  • গ্রাহক-থেকে-গ্রাহক C2C

গ্রাহক-থেকে-গ্রাহক ইলেকট্রনিক কমার্স সম্পাদিত হয় একাধিক ব্যক্তি ও গ্রাহকের মধ্যে। ইলেকট্রনিক বাজার ও অনলাইন নিলাম এর মাধ্যমে সাধারণত এই ধরনের বাণিজ্য সম্পাদিত হয়।

  • মোবাইল কমার্স m-commerce

মোবাইল কমার্স ইলেকট্রনিক কমার্স সম্পাদিত হয় তারবিহীন প্রযুক্তি যেমন মোবাইল হ্যান্ডসেট বা পারসোনাল ডিজিটাল অ্যাসিস্টেন্ট PDA এর মাধ্যমে। তারবিহীন যন্ত্রের মাধ্যমে তথ্য আদান-প্রদানের গতি ও নিরাপত্তা বৃদ্ধির সাথে সাথে এই ধরনের বাণিজ্য জনপ্রিয়তা লাভ করছে।

  • গ্রাহক থেকে সরকার সি টু জি

কখনো সরসরি জনগনের কাছ থেকে সরকার বিভিন্ন সেবার বিনিময় ফি বা কর নিয়ে থাকে। যখন এর মাঝে কোন মাধ্যমৈ থাকেনা তখন এটা গ্রাহক থেকে সরকার পক্রিয়া বলে বিবেচিত হয়। ডিজিটাল গভর্নেন্স-এর আওতার এ ধরনের সেবা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

                                     

2. ক্ষেত্রসমূহ

  • বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এর পণ্য ও সেবার মূল্যের তুলনামূলক বিশ্লেষন।
  • মূল্য পরিশোধ।
  • পণ্য ও সেবা অর্ডার ও বুকিং দেয়া।
  • পণ্য ও সেবা কেনা/ বেচা।
  • টিকেট ক্রয়।
  • অনলাইন বিজ্ঞাপন বাণিজ্য। ইত্যাদি।
  • পণ্য নিলাম।
                                     

3. মাধ্যম, উপকরণ ও সম্পর্কিত বিষয়সমূহ

বিক্রেতার জন্যঃ

  • দ্রুত ও কার্যকরভাবে অর্ডার প্রক্রিয়া করার জন্য ইন্টারনেট ও সার্ভার।
  • ই-কমার্স উপযোগী ওয়েবসাইট।

মধ্যবর্তী মাধ্যমঃ

  • পণ্য ও মুদ্রা স্থানান্তর ও পরিবহনে নিরাপত্তা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান।
  • দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পণ্য পরিবহনকারী প্রতিষ্ঠান।
  • ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার,ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে মূল্য প্রদানের ও সমধর্মী সেবা প্রদানকারী ব্যাংক প্রতিষ্ঠান।

গ্রাহকের জন্যঃ

  • মূল্য পরিশোধের জন্য ক্রেডিট কার্ড বা সমধর্মী মাধ্যম।
  • ইন্টারনেট সুবিধা।

সরকারিভাবেঃ

  • ই-কমার্স এর নিরাপত্তা ও মান নিশ্চিত করার জন্য জাতীয় আইন ও নীতিমালা।
                                     

4. বাণিজ্য বাজারে প্রভাব

অর্থনীতিবীদদের মতে, যেহেতু ইলেকট্রনিক কমার্স গ্রাহকদের বিভিন্ন পণ্য সহজে খুঁজে পাওয়া এবং তুলনামূলক বিশ্লেষনের একটি ক্ষেত্র তৈরি করে দিয়েছে, তাই এটি প্রতিযোগিতামূলক বাজার তৈরীতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করছে। বাংলাদেশের ই কমার্স বাজার বর্তমানে ১৬০০ কোটি টাকার বেশি।

                                     

5. বহিঃসংযোগ

  • E-Commerce and E-Business at Wikibooks
  • উইকিবইয়ে E-Commerce and E-Business
  • Small Business E-Commerce Resources, US: SBA উদ্ধৃতি টেমপ্লেট ইংরেজি প্যারামিটার ব্যবহার করেছে link.