Back

ⓘ জাতীয় বাজেট




                                               

লাইব্রেরি অব কংগ্রেস

লাইব্রেরি অব কংগ্রেস আনুষ্ঠানিকভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসকে পরিষেবা পরিবেশনকারী গবেষণা গ্রন্থাগার এবং এটি কার্যত যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় গ্রন্থাগার। এটি যুক্তরাষ্ট্রের প্রাচীনতম যুক্তরাষ্ট্রীয় সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান। গ্রন্থাগারটি ওয়াশিংটন ডিসি-এর ক্যাপিটল হিলের তিনটি ভবনে স্থাপিত হয়েছে; এটি ভার্জিনিয়ার কুল্প্পারে একটি সংরক্ষণ কেন্দ্রও বজায় রাখে। গ্রন্থাগারের কার্যকলাপসমূহ কংগ্রেসের গ্রন্থাগারিক দ্বারা তদারকি করা হয় এবং এর ভবনসমূহ আর্চিটেক্ট অব দ্য ক্যাপিটল দ্বারা পরিচালিত হয়। লাইব্রেরি অব কংগ্রেস বিশ্বের বৃহত্তম গ্রন্থাগারসমূহের মধ্যে একটি। এর "সংগ্রহগুলি সর্বজনীন, বিষয়, বিন্ ...

                                               

দক্ষতা উন্নয়ন ও উদ্যোক্তা মন্ত্রণালয়

দক্ষতা উন্নয়ন ও উদ্যোক্তা মন্ত্রক হল ভারত সরকারের একটি মন্ত্রক যা ৯ নভেম্বর ২০১৪ তারিখে সারা দেশে দক্ষতা বিকাশের সমস্ত প্রচেষ্টার সমন্বয়সাধনের জন্য গঠিত হয়েছিল। শিল্প প্রশিক্ষণ, শিক্ষানবিশ এবং অন্যান্য দক্ষতা উন্নয়নের দায়িত্ব শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় থেকে সরিয়ে ১৬ এপ্রিল ২০১৫ তারিখে এই নতুন নির্মিত মন্ত্রণালয়ে স্থানান্তরিত করা হয়। এর লক্ষ্য দক্ষ জনশক্তির চাহিদা ও সরবরাহের মধ্যে সংযোগ করা, নতুন দক্ষতা এবং উদ্ভাবনী চিন্তাভাবনা গড়ে তোলা য কেবল বিদ্যমান চাকরির জন্য নয়, যে সব কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে তার জন্যও।

জাতীয় বাজেট
                                     

ⓘ জাতীয় বাজেট

জাতীয় বাজেট বাংলাদেশ সরকার প্রণীত একটি বার্ষিক দলিল যাতে রাষ্ট্রের সাংবাৎসরিক আয়-ব্যয়ের পরিকল্পনা প্রকাশ করা হয়। বাজেট ইংরেজি শব্দ যার ব্যুৎপত্তিগত অর্থ "থলে" বা ইংরেজিতে Bag। অতীতে থলেতে ভরে এটি আইন সভা বা সংসদে আনা হতো বলে এই দলিলটি বাজেট নামে অভিহিত হয়ে আসছে। জাতীয় বাজেটের মূল অংশ দুটি । প্রথম অংশ রাজস্ব আদায় সংক্রান্ত। এই অংশে সরকারের রাজস্ব ব্যবস্থা ও আদায় সংক্রান্ত প্রস্তবসমূহ বিবৃত থাকে দ্বিতীয় অংশে থাকে সরকারী ব্যয়ের প্রস্তাব সমূহ। প্রতি বৎসর একটি আইনপ্রস্তাব বা "বিল" আকারে জাতীয় বাজেট জাতীয় সংসদে উত্থাপন করা হয়। একে বলা হয় অর্থ বিল। সংসদ সদস্যরা অনুমোদনেপর এটি আইনে পরিণত হয়। বাংলাদেশে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড রাজস্ব প্রস্তাবসমূহ প্রণয়ন করে এবং অর্থ বিভাগ ব্যয় প্রস্তাবসমূহ প্রণয়ন করে। বাংলাদেশে প্রতি বৎসর জুন মাসে জাতীয় বাজেট প্রণয়ন করা হয় এবং অনুমোদনেপর তা পরবর্তী অর্থবৎসরের জন্য কার্যকর হয়। । দেশের অর্থ মন্ত্রী জাতীয় সংসদের অর্থ বিল পেশ করেন।

বাংলাদেশের বাজেট প্রণয়ন করা হয় ১২ মাসের জন্য যা চলতি বছরের ১লা জুলাই থেকে পরবর্তী বৎসরের ৩০শে জুন পর্যন্ত কার্যকর থাকে। প্রতি বছর জুন মাসে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনে সরকারের পক্ষে অর্থমন্ত্রী বাজেট বিল পেশ করেন। এর আগে এই বাজেট বিল ক্যাবিনেট সভায় বিবেচনা ও অনুমোদন করা হয়।

বর্তমানে কার্যকর বাজেট বাংলাদেশের ৪৯ তম বাজেট যা ২০১৯-২০২০ অর্থবৎসরের জন্য কার্যকর। এতে সরকারের ব্যয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হয়েছে ৫,২৩,১৯০ যা ঘোষণা করা হয় ১৩ জুন ২০১৯ ঘোষণা করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল

বাংলাদেশের বাজেট প্রণয়ন করা হয় ১২ মাসের জন্য যা প্রতি বছরের ১লা জুলাই থেকে পরবর্তী বৎসরের ৩০শে জুন পর্যন্ত কার্যকর থাকে। প্রতি বছর জুন মাসে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনে সরকারের পক্ষে অর্থমন্ত্রী বাজেট বিল পেশ করেন। এর আগে এই বাজেট বিল ক্যাবিনেট সভায় বিবেচনা ও অনুমোদন করা হয়।

                                     

1. সর্বশেষ বাজেট ২০১৯-২০

২০১৯-২০ অর্থবৎসরের বাজেট ৩০ জুন ২০১৯ খ্রিঃ তারিখে ঘোষণা করা হয়। এতে ব্যয়ের লক্ষ্য ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। রাজস্ব আয়ের লক্ষ্য ২ লাখ ৪২ হাজার ৭৪২ কোটি টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে যার মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মাধ্যমে আদায়ের প্রাক্কলন ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা।

জাতীয় সংসদে বাজেট পেশ কালে অর্থমন্ত্রী অবহিত করেন যে ২০১৯-২০ অর্থবৎসরে মুদ্রাস্ফীতির প্রাক্কলন ৫.৫ শতাংশ এবং জাতীয় অর্থনীতির জিডিপি প্রবৃদ্ধির বাৎসরিক হার দাঁড়াবে ৮.২ শতাংশ।

                                     

2. আরও পড়ুন

  • Higgs, Robert ২০০৮। "Government Growth"। David R. Henderson ed.। Concise Encyclopedia of Economics 2nd সংস্করণ। Indianapolis: Library of Economics and Liberty। আইএসবিএন 978-0865976658। ওসিএলসি 237794267। উদ্ধৃতি শৈলী রক্ষণাবেক্ষণ: অতিরিক্ত লেখা: সম্পাদকগণের তালিকা link
  • Seater, John J. ২০০৮। "Government Debt and Deficits"। David R. Henderson ed.। Concise Encyclopedia of Economics 2nd সংস্করণ। Indianapolis: Library of Economics and Liberty। আইএসবিএন 978-0865976658। ওসিএলসি 237794267। উদ্ধৃতি শৈলী রক্ষণাবেক্ষণ: অতিরিক্ত লেখা: সম্পাদকগণের তালিকা link