Back

ⓘ ইউক্রেন




                                               

রাবিয়া নাসিমি

রাবিয়া নাসিমি হলেন একজন আফগান শরণার্থী এবং শরনার্থীকর্মী। তালেবানদের হাতে অত্যাচারের ভয়ে ১৯৯৯ সালে তিনি তাঁর বাবা-মা এবং ভাইবোনদের নিয়ে আফগানিস্তান ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন। তাঁরা একটি হিমায়িত আধারের পিছনে চড়ে ইউকে পৌঁছেছিলেন। বর্তমানে তিনি লন্ডনে শরণার্থীদের অধিকারের জন্য প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। সেখানে তিনি আফগানিস্তান ও মধ্য এশীয় সমিতির এসিএএ উন্নয়ন কর্মকর্তা হিসাবে দায়িত্বপালন করছেন এবং বেশ কয়েকটি পরিষেবা চালু করা ও দাতব্য কাজের দীর্ঘমেয়াদি কৌশল গঠনের জন্য দায়বদ্ধ রয়েছেন। ২০১৭ সালে তিনি কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজবিজ্ঞানের পিএইচডি প্রার্থী হিসাবে গৃহীত হয়েছিলেন।

ইউক্রেন
                                     

ⓘ ইউক্রেন

ইউক্রেন বা উক্রাইনা পূর্ব ইউরোপের একটি রাষ্ট্র। রাশিয়ার পরে এটি ইউরোপের দ্বিতীয় বৃহত্তম রাষ্ট্র। ইউক্রেনের পশ্চিমে পোল্যান্ড, স্লোভাকিয়া ও হাঙ্গেরি, দক্ষিণ-পশ্চিমে রোমানিয়া ও মলদোভা, দক্ষিণে কৃষ্ণ সাগর ও আজভ সাগর, পূর্বে ও উত্তর-পূর্বে রাশিয়া এবং উত্তরে বেলারুস। দক্ষিণে ক্রিমিয়া উপদ্বীপে অবস্থিত স্বায়ত্বশাসিত ক্রিমিয়া প্রজাতন্ত্র ইউক্রেনের সীমান্তের মধ্যে পড়েছে। কিয়েভ ইউক্রেনের রাজধানী ও বৃহত্তম শহর।

ইউক্রেনের অধিকাংশ এলাকা কৃষিকাজের উপযোগী উর্বর সমভূমি নিয়ে গঠিত। ইউক্রেন খনিজ সম্পদে সমৃদ্ধ। দেশটির অর্থনীতি উন্নত এবং এর কৃষি ও শিল্পখাত যথেষ্ট বড়। ইউক্রেনে একটি গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা বিদ্যমান যেখানে রাষ্ট্রপতি হলেন সরকারপ্রধান।

৯ম শতক থেকে ইউক্রেনের উত্তর অংশ কিয়েভান রুশের অংশ ছিল। কিয়েভান রুশ ছিল প্রথম গুরুত্বপূর্ণ পূর্ব স্লাভীয় রাষ্ট্র। ১৩শ শতকে মোঙ্গল আক্রমণে এটির পতন ঘটে। এর পর বহু শতাব্দী ধরে ইউক্রেন বিভিন্ন বিদেশী শক্তির পদানত ছিল। এদের মধ্যে আছে পোলান্ড ও রুশ সাম্রাজ্য। ১৯১৮ সালে ইউক্রেনে একটি বলশেভিক সাম্যবাদী সরকার প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯২২ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের চারটি প্রতিষ্ঠাতা সদস্যের অন্যতম প্রজাতন্ত্র হিসেবে ইউক্রেন আত্মপ্রকাশ করে। ১৯৯১ সালে ইউক্রেন স্বাধীনতা ঘোষণা করে এবং ১লা ডিসেম্বর এক গণভোটে এটির প্রতি ইউক্রেনের জনগণ সমর্থন দেয়। ইউক্রেনের এই ঘোষণা সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনে একটি বড় ভূমিকা রাখে।

                                     

1. ইতিহাস

১৯৯১ সালের ২৪ আগস্ট সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন থেকে বের হয়ে স্বাধীনতা ঘোষণা করে ইউক্রেন৷ ১৯৮৬ সালের ২৬শে এপ্রিল ভোরের দিকে কর্মীরা চেরনোবিল পরমাণু কেন্দ্রের ৪ নম্বর চুল্লিতে কিছু পরীক্ষা চালাচ্ছিলেন৷ সেই কাজে কিছু ত্রুটি হয়েছিল৷ সেইসঙ্গে চুল্লির নক্সায়ও কিছু দুর্বলতা ছিল৷ ফলে একেপর এক বিস্ফোরণ ঘটতে থাকে৷ বিস্ফোরণের ফলে চুল্লির ধ্বংসাবশেষের মারাত্মক তেজস্ক্রিয় উপাদান চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে৷ প্রতিবেশী বেলারুশ ও রুশ প্রজাতন্ত্র থেকে শুরু করে জার্মানি সহ পশ্চিম ইউরোপের বিস্তীর্ণ এলাকায় তেজস্ক্রিয়তার কুপ্রভাব ধরা পড়ে৷ দুর্ঘটনার ফলে পরমাণু কেন্দ্রের দুই কর্মীর অবিলম্বে মৃত্যু হয়৷ ঘটনার পরের কয়েক মাসে ২৮ জন কর্মী ও উদ্ধারকর্মী মারা যান৷ সংলগ্ন এলাকার হাজার হাজার মানুষকে নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নেওয়া হয়৷ তবে তৎকালীন সোভিয়েত কর্তৃপক্ষ প্রথম তিন দিন ঘটনাটি জানাতে পারেনি৷ তারপর ১৯৮৬ ও ১৯৮৭ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন চেরনোবিল ও সংলগ্ন এলাকা তেজস্ক্রিয়তা মুক্ত করতে ৪ লক্ষেরও বেশি উদ্ধারকর্মী পাঠায়৷ তাদের মধ্যে অনেকে এই কাজের বিপদ সম্পর্কে পুরোপুরি সচেতন ছিল না৷সেন্ট পিটার্সবার্গ শহরে ২৫টি ফানুস উড়িয়ে স্মরণ করা হলো চেরনোবিল দুর্ঘটনার কথা। চেরনোবিল দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ প্রভাব নিয়ে আজও বিতর্ক শেষ হয় নি৷ এমনকি জাতিসংঘের একাধিক সংস্থাও মৃতের সংখ্যা নিয়ে ঐকমত্যে পৌঁছাতে পারে নি৷ তারপর ২০০৫ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও জাতিসংঘ জানায়, চেরনোবিলের তেজস্ক্রিয় বিকিরণের ফলে সম্ভবত ৪,০০০ মানুষের মৃত্যু হয়েছে৷ কিন্তু ঘটনার বহু বছর পরও থাইরয়েড ক্যান্সার সহ তেজস্ক্রিয়তা জনিত অনেক অস্বাভাবিক শারীরিক ও মানসিক সমস্যার ঘটনা ধরা পড়েছে৷

                                     

2. রাজনীতি

ইউক্রেনের রাজনীতি একটি অর্ধ রাষ্ট্রপতি-শাসিত প্রতিনিধিত্বমূলক বহুদলীয় গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রের কাঠামোয় পরিচালিত হয়। নির্বাহী ক্ষমতা মন্ত্রীসভার হাতে ন্যস্ত। আইন প্রণয়ন ক্ষমতা আইনসভার হাতে ন্যস্ত।

ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতি ৫ বছর মেয়াদের জন্য জনগণের ভোটে নির্বাচিত হন। পেত্র পোরাশেঙ্কা ২০১৪ সাল থেকে দেশটির বর্তমান রাষ্ট্রপতি।

                                     

3. অর্থনীতি

ইউক্রেন কৃষিসম্পদে ভরপুর৷ একসময় ইউক্রেনকে সোভিয়েত ইউনিয়নের ‘রুটির ঝুড়ি বলা হতো৷ ইউক্রেনে রয়েছে চার কোটি ২০ লক্ষ হেক্টর কৃষিজমি, যেটা পুরো ইউরোপের ২২ ভাগ৷ বাজেটের শতকরা ১০ থেকে ১৫ শতাংশ অর্থ দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের পকেটে যায় বলে মন্তব্য করেছেন স্বয়ং প্রেসিডেন্ট ইয়ানুকোভিচ৷ এছাড়া জিডিপির ৬১ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ করছে মাত্র একশো জন ধনী ব্যক্তি৷

বাইরের বিশ্বের কাছে সবচেয়ে বেশি পরিচিত ইউক্রেনীয় লেখক আন্দ্রেই কুরকোভ বলছেন অর্থনৈতিক স্বাধীনতা দুর্নীতিতে পরিণত হয়েছে৷

                                     

4. জনসংখ্যা

জনসংখ্যা সাড়ে চার কোটির একটু বেশি৷

জনসংখ্যায় খারাপ অবস্থা ইউক্রেন এ । জাতিসঙ্ঘ ধারণা করছে এই দেশে যথাক্রমে ৩৬ শতাংশ জনসংখ্যা কমতে পারে ২১০০ সাল নাগাদ। অভিবাসী না আসা ও অপর্যাপ্ত উপার্জন অঞ্চলটির জনসংখ্যা কমার প্রধান দুটি কারণ।

                                     
  •  র শ য দ ড ঝ প, ন র দ র ম ওলগ ব র জ ন ইউক র ন ল দম ল ড জ য গ ল ভ ইউক র ন ওলগ ন জ র ভ র শ য ল ল য ন রতদ ন ভ ব ছ ই
  • স ল র আগস ট ইউক র ন স ব ধ নত ঘ ষণ করল স বছর র ড স ম বর ব লজ য ম ইউক র নক স ব ক ত দ য স ল র ম র চ ইউক র ন এব ব লজ য ম র মধ য
  • হল ব লয, ইউক র ন ক ল ভ, ইউক র ন প উট ল ভ, ইউক র ন নভহরড স ভ রস ক ইউক র ন চ রন হ ভ, ইউক র ন ক মইয নইয টস, ব ল র শ ব লগরড ক ল ভস ক ইউক র ন র শ য র
  • অথব উই ব য ক হ স ব জনপ র য ই ল শ ফ টবল ক ল ব ম য নচ স ট র স ট এব ইউক র ন জ ত য ফ টবল দল - এর হয খ ল থ ক ন য নচ নক র জন ম, ইউক র ন র জ ট ম থ ওমল স ট
  • ম র চ - দক ষ ণ আফ র ক র ক ছ থ ক ন ম ব য স ব ধ নত ল ভ কর জ ল ই - ইউক র ন ন জ র স র বভ মত ব ঘ ষণ কর জ ন য র - উইল য ম হ ইন স, ম র ক ন অভ ন ত
  • ড জ রজহ য ন সক ইউক র ন য স ভ য ত সম জত ন ত র ক প রজ তন ত র এখন টর টস ক, ইউক র ন জন মগ রহণ কর ন স ল স ন তক পর ত ন স ল ক জ শ র কর ন এব ত র
  • ক ন ত ট দ শ ভ ট প রদ ন ব রত থ ক দ শগ ল হল - স ভ য ত ইউন য ন, ইউক র ন ব ল র শ, য গ স ল ভ য প ল য ন ড, দক ষ ণ আফ র ক চ ক স ল ভ ক য এব
  • অল ন দ দ ব পপ ঞ জ সহ গ র স ল তভ য ল থ য ন য মলদ ভ র ম ন য ইউক র ন ব যত ক রম ক র ম য ড ন টস ক এব ল হ নস ক অঞ চলগ ল র অ শ স র য জর দ ন
  • ক র য স দ ন স ইড ন স র য ত জ ক স ত ন ত রস ক ত র কম ন স ত ন ইউক র ন স য ক ত আরব আম র ত য ক তর জ য য ক তর ষ ট র উজব ক স ত ন ভ ন জ য ল

Users also searched:

...
...
...