Back

ⓘ কানি শাল




                                     

ⓘ কানি শাল

কানি শাহল এক ধরনের কাশ্মীরি শাল যা কাশ্মীরের কানিহাম এলাকায় তৈরি করা হয়। এটি কাশ্মীরের প্রাচীনতম হস্তশিল্পগুলোর একটি। হস্তশিল্পটি মুঘলদের সময় থেকেএই উপত্যকার একটি অংশ ছিল। শালগুলো পশমিনা সুতা দিয়ে বোনা হয়। জম্মু ও কাশ্মীর সরকার কানি শালকে একটি ভৌগোলিক নির্দেশক হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

                                     

1. ইতিহাস

কানি বয়নকে কানিহামের একটি আদি শিল্প বলে মনে করা হয় এবং খ্রিস্টপূর্ব ৩০০০ নাগাদ এর উপস্থিতি চিহ্নিত হয়েছে। এই দুর্দান্ত শালটি এককালে মুঘল রাজা, শিখ মহারাজ এবং ব্রিটিশ অভিজাতদের আকৃষ্ট করেছিল। আইন-ই-আকবরিতে লিপিবদ্ধ রয়েছে যে সম্রাট আকবর কানি শালের একজন উৎসাহী সংগ্রাহক ছিলেন।

কানি নামটি এর বিশেষ কারিগররা যে অঞ্চলের কানিহাম, সেখান থেকেই এসেছে। কাশ্মিরিতে কানি শব্দের অর্থ কাঠের ছোট একটি আয়তাকার লাটাই।

                                     

2. কানি শাল যেভাবে বানানো হয়

কানি শাল তাঁতের মাধ্যমে পশমিনা থেকে তৈরি করা হয়। তবে সাধারণ পশমিনা শালে ব্যবহৃত মাকুর পরিবর্তে কানি শাল তৈরিতে বেত বা কাঠের তৈরি সূঁচ ব্যবহার করা হয়।

কানি শালগুলো কেবল সঠিকভাবে যথেষ্ট প্রশিক্ষিত কারিগরই বুনতে পারে। এর বুনন কৌশল এবং জ্ঞান পূর্বপুরুষ থেকে পরবর্তী প্রজন্মের মধ্যে স্থানান্তরিত হয়েছে। অনুমান করা হয় যে ১০,০০০ সংখ্যক কানি তাঁতির মধ্যে বর্তমানে মাত্র ২০০০ কারিগর রয়েছেন।

                                     

3. বিলাসিতার প্রতীক

একটি কানি জামাওয়ার পশমিনা শাল তৈরি করতে যে পরিমাণ কারিগরি জটিলতা এবং শ্রম লাগে তা অন্য যে কোনও তাঁত পণ্যের তুলনায় বেশি। একারণেই এগুলো সাধারণত বাজারের যে কোনও পশমিনা শালের চেয়ে বেশি দামের হয়।

সাম্প্রতিক সময়ে মেশিন বোনা শালে তালিম বিন্যাসগুলো ব্যবহৃত হয় যা দেখতে একরকম কানি শালের মতই। কাশ্মীর ও ভারতের অন্যান্য অংশে এবং বাইরেও বাণিজ্যিকভাবে এটি বিক্রি হয়।

কানি শালকে লন্ডনের ভিক্টোরিয়া এবং অ্যালবার্ট মিউজিয়াম, প্যারিসের মুসি দেস আর্টস দেকোরাতিফ্স এবং নিউইয়র্কের মেট্রোপলিটন জাদুঘরের ইসলামিক শিল্প বিভাগের মতো বিশ্বের সেরা যাদুঘরগুলোতে রাখা হয়েছে।