ⓘ Free online encyclopedia. Did you know? page 463




                                               

কাঁটানটে

কাঁটানটে এর বৈজ্ঞানিক নাম Amaranthus spinosus ও ইংরেজি নাম spiny amaranth, spiny pigweed, prickly amaranth or thorny amaranth । এটি Amaranthaceae পরিবারের অন্তর্গত। অন্যান্য স্থানীয় নাম: কাঁটাখুইড়া, খুড়াকাঁটা, খৈরাকাটা ইত্যাদি।

                                               

চিনি গাছ

চিনি গাছ স্টেভিয়া গাছটির সহজ বাংলা নাম। এই গাছ প্যারাগুয়ের পাহাড়ি অঞ্চলে পাওয়া যায়। এটি লতা গুল্ম জাতীয় গাছ। এর পাতা খুবই মিষ্টি যা চিনির চেয়ে ৫০ গুন বেশি মিষ্টি বলে দাবি করা হয়। এর শুকনো পাতা গুড়া করে ব্যবহার হয়। এর নির্যাস চিনি থেকে ২ ...

                                               

নাগবল্লী

মুসেন্ডা বা নাগবল্লী Rubiaceae পরিবারের মুসেন্ডা গণের লাল ও সাদা রঙের আলঙ্কারিক গুল্ম। প্রচলিত ইংরেজি নাম Dwarf Mussaenda, White wing ইত্যাদি। রোদ বা আংশিক ছায়ায় এ গাছ তাড়াতাড়ি বেড়ে উঠে। নাগবল্লী বর্ণবৈচিত্র্য তৈরিতে আদর্শ বাগানের জন্য উত্তম।

                                               

নীল (উদ্ভিদ)

নীল গুল্ম জাতীয় এক প্রকারের উদ্ভিদ। এটি শীম পরিবারভুক্ত একটি উদ্ভিদ। এর অন্যান্য স্থানীয় নামঃ নিলিনী, রঞ্জনী, গ্রামিনিয়া, কালোকেশী, নীলপুষ্প, মধুপত্রিকা। বৈজ্ঞানিক নামঃ indigofera tinctoria । এটি Fabaceae পরিবারের সদস্য। এই উদ্ভিদ থেকে প্রাকৃত ...

                                               

পলকজুঁই

পলকজুঁই যা পলকাজুঁই, পালুকাজুঁই ইত্যাদি নামেও পরিচিত একধরনের বড়সড় ধরনের গুল্ম এবং ছোট আকৃতির চিরসবুজ গাছ। দেখতে রঙ্গনের মত যদিও পাতা ও ফুলের গড়ন রঙ্গন থেকে অনেকটাই আলাদা। সুঘ্রাণের জন্য এই গাছের খ্যাতি আছে।

                                               

ব্লুবেরি

ব্লুবেরি একটি বহুবর্ষজীবী সপুষ্পক উদ্ভিদ যাতে নীল বা বেগুনী– রঙের বেরি জন্মায়। এরা ভ্যাকসিনিয়াম গণের সায়ানোকক্কাস বিভাগের অন্তর্গত। ভ্যাকসিনিয়াম গণের মধ্যে ক্র্যানবেরি, বিলবেরি, হ্যাকলবেরি এবং ম্যাডেইরা ব্লুবেরি রয়েছে। বন্য এবং চাষ করা ব্লুব ...

                                               

জলজ উদ্ভিদ

জলজ উদ্ভিদ বলতে সেই সকল উদ্ভিদকে বোঝানো হয়, যারা জলেই বসবাসের জন্য অভিযোজিত হয়েছে। এদের হাইড্রোফাইট এবং ম্যাক্রোফাইট নামেও অভিহিত করা হয়, যাতে শৈবাল এবং মাইক্রোফাইট জাতীয় উদ্ভিদ থেকে এদের আলাদা করা যায়। ম্যাক্রোফাইট জাতীয় উদ্ভিদ জলে অথবা জল ...

                                               

কচুরিপানা

কচুরিপানা একটি জলজ উদ্ভিদ। এর ইংরেজি নাম water hyacinths। বৈজ্ঞানিক নাম: Eichhornia crassipes । সাতটি প্রজাতি আছে এবং এরা মিলে আইকরনিয়া গণটি গঠন করেছে। কচুরিপানা মুক্তভাবে ভাসমান বহুবর্ষজীবী জলজ উদ্ভিদ। এর আদি নিবাস দক্ষিণ আমেরিকা। পুরু, চকচকে এ ...

                                               

ক্ষুদিপানা

ক্ষুদিপানা হলো একবীজপত্রী উদ্ভিদ বর্গের Lemnaceae গোত্রের অন্তর্গত এক প্রজাতির অবাধ ভাসমান জলজ সপুষ্পক উদ্ভিদ। এটি পানিতে ভেসে বেড়ায় এবং জলচর পাখি ও প্রাণীর সাধারণ খাদ্য। এরা মূলতঃ Araceae পরিবারের অন্তর্গত।

                                               

গুঁড়িপানা

গুঁড়িপানা পৃথিবীর ক্ষুদ্রতম সপুষ্পক আবৃতবীজী সংবাহী উদ্ভিদ। এটি জলজ উদ্ভিদসমৃদ্ধ আরাসি পরিবারভুক্ত প্রজাতিক সদস্য। অ্যারাম বা পিস্টিয়া প্রভৃতি গণও এই পরিবারভুক্ত।

                                               

টোপাপানা

টোপাপানা আরাচি পরিবারের কচু জাতীয় একটি জলজ উদ্ভিদ। এর বৈজ্ঞানিক নাম: Pistia stratiotes; ইংরেজি নাম: water cabbage, water lettuce, Nile cabbage, বা shellflower। এই উদ্ভিদটির প্রকৃত উৎপত্তিস্থল সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি, তবে আফ্রিকার ভিক্টোরিয ...

                                               

ফার্ন

ফার্ণ হল টেরিডোফাইট প্রজাতির উদ্ভিদ। এর বৈজ্ঞানিক নাম হল Pteris. আবাসস্থলঃ পুরাতন ভাংগা স্যাতস্যাতে দেয়ালের গায়ে জন্মায়।ইটের স্তুপে এরা ভালো জন্মায়।প্রাচীরের গায়ে জন্মায় বলে এদের সাব এরিয়াল বলা হয়।

                                               

কোডিট

বৃক্ষের ক্ষয়কে শ্রেণীতে বিভক্তকরণ বা কোডিট হল ডাঃ আলেক্স শিগোর তৈরিকৃত একটা ধারণা যা বছরেপর বছর বৃক্ষের ক্ষয়ের নকশা অধ্যয়নে অর্জিত হয়েছে। ১৯৭০ দশকের শেষের দিকে, সূচনালগ্নে যদিও ধারণাটি নানান বিতর্কের জন্ম দেয়, তথাপি বর্তমানে এটি সর্বত্র ব্যা ...

                                               

পানিসরা

পানিসরা বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল, ভুটান, অস্ট্রেলিয়া, আফ্রিকার উষ্ণমণ্ডল এবং মিয়ানমারেও সহজলভ্য এক ধরনের গাছ। ফুল ও ফলের মৌসুম ফেব্রুয়ারি থেকে মে মাস পর্যন্ত বিস্তৃত। তবে প্রধান প্রস্ফুটনকাল শরৎ-হেমন্ত।

                                               

বনকাঞ্চন

বনকাঞ্চন পাতাঝরা বৃক্ষ। ১৫ মিটার পর্যন্ত উঁচু হতে পারে। পত্র সরল, একান্তর, উপপত্র দুটি, দুই থেকে তিন মিলিমিটার লম্বা। ফলক ডিম্বাকার থেকে গোলাকার, ৪৮ সেন্টিমিটার প্রশস্ত। অন্যান্য কাঞ্চনের তুলনায় পাতা ছোট, চওড়া, পুরু ও অসম্পূর্ণভাবে সজোড়। দেখতে ...

                                               

বিয়াস

বিয়াস জলসহনীয় মাঝারি আকারের বৃক্ষ। এর ইংরেজি নাম ইন্ডিয়ান উইলো । বৈজ্ঞানিক নাম salix tetrasperma । বিয়াস গাছ বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপালসহ দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে দেখতে পাওয়া যায়।

                                               

হিজল

হিজল মাঝারি আকারের ডালপালা ছড়ানো দীর্ঘজীবী গাছ। সংস্কৃত নাম নিচুল । এ ছাড়া জলন্ত, নদীক্রান্ত এসব নামেও হিজলগাছ পরিচিত। বাকল ঘনছাই রঙের ও পুরু। হিজলের বিষাক্ত অংশ হলো ফল, যা মারাত্মক বমনকারক।

                                               

কলসী উদ্ভিদ

কলস উদ্ভিদ বা কলসী উদ্ভিদ হচ্ছে কতিপয় আলাদা প্রকারের মাংসাশী উদ্ভিদ যেগুলোর পরিবর্তিত পাতাগুলো একধরনের বিপদের ফাঁদ হিসেবে কাজ করে । এই বিপদের ফাঁদ গুলো শিকার-ধরার ফাঁদ-কৌশলী বৈশিষ্ট্য হিসেবে কলস উদ্ভিদের পাতাগুলোর গভীর গহ্বরটি তরল দ্বারা পূর্ণ থ ...

                                               

ছিটা

Plumbago europaea L. – Common Leadwort Mediterranean Basin to central Asia Plumbago aphylla Bojer ex Boiss. Madagascar region Plumbago scandens L. sometimes included in P. zeylanica – Summer Snow Leadwort Southern United States south to northern ...

                                               

বুনো কীটকল (উদ্ভিদ)

সম্পূর্ণ একটি উদ্ভিদের দৈর্ঘ্য প্রায় ১ ফুট ৩০ সে.মি.। বসন্তকালে এর লম্বা মাথার ওপর চমৎকার সাদা ফুল ফোটে। কিন্তু উদ্ভিদটির সবচেয়ে দর্শনীয় জিনিসটি হচ্ছে এর পাতা। ফাইট্র্যাপের সরু সবুজ পাতাগুলো উদ্ভিদটির গোড়ার চারপাশে জন্মে। প্রত্যেকটি পত্রফলক ঝ ...

                                               

মল্লিকা ঝাঁঝি

মল্লিকা ঝাঁঝি বাংলাদেশের একটি বিলুপ্তপ্রায় উদ্ভিদ। এর বৈজ্ঞানিক নাম Aldrovanda vesiculosa Linn. এর গোত্র Droseraceae। মল্লিকা ঝাঁঝি একটি জলজ ও পতঙ্গভুক উদ্ভিদ।

                                               

মাংসাশী উদ্ভিদ

মাংসাশী উদ্ভিদ সংগত কারণেই প্রকৃতির সবচেয়ে অদ্ভুত উদ্ভিদগুলোর মধ্যে একটি। এসব উদ্ভিদ সাধারণত পোকামাকড়, মাকড়সা ইত্যাদি প্রাণীকে ফাঁদে ফেলে। তবে কোনো কোনো সময় ইঁদুর বা ব্যাঙ জাতীয় ছোট ছোট প্রাণীরাও এদের শিকারে পরিণত হয়।

                                               

সূর্যশিশির (উদ্ভিদ)

ছোট আকারের এ উদ্ভিদটি মাত্র ৩.৫ ইঞ্চি ৮ সে.মি. চওড়া। এটি প্রায়ই বড় ধরনের আগাছা ও এর আশেপাশে জন্মানো গাছপালার নিচে লুকানো অবস্থায় থাকে। এর পাতাগুলো ছোট এবং গোলাকার। গ্রীষ্মকালে গোলাকার পাতাগুলোর উঁচু কান্ডগুলোতে সাদা সাদা ফুল ফোটে। সূর্যশিশিরে ...

                                               

লতা-পারুল

লতা-পারুল বা নীল-পারুল বা রসুন্ধি বা পারুল লতা, একটি বিগনোনিসি পরিবারের লতা জাতীয় উদ্ভিদ। এটি উত্তর দক্ষিণ আমেরিকার স্থানীয় প্রজাতি এবং মধ্য আমেরিকা ও ব্রাজিলে বিস্তার লাভ করেছে। অনেকগুলো বড় বড় থোকায় এদের হালকা-বেগুনী বর্ণের ফুল ফোটে। এদের প ...

                                               

শক্ত কিউই

অ্যাক্টিনিডিয়া আরগুটা বা শক্ত কিউই হলো জাপান, কোরিয়া, উত্তর চীন এবং রাশিয়ান সুদূর পূর্বের একটি বহুবর্ষজীবী দ্রাক্ষালতা । এই বর্গের অন্যান্য প্রজাতির তুলনায় এটি বাইরের অংশে চুলের মতো আঁশ ছাড়াই ছোট কিউইফল উৎপাদন করে।

                                               

হাওয়াই লিলি

হাওয়াই লিলি বা সোনাকাপী লতা, হচ্ছে মেক্সিকো ও মধ্য আমেরিকার স্থানীয় বিশাল এক লতার প্রজাতি। এটির অনেক বড় হলুদ ফুল এবং উজ্জ্বল পাতা আছে।

                                               

স্পিরুলিনা

স্পিরুলিনা নামটি উদ্ধুত হয়েছে ল্যাটিন শব্দ "spira" হতে, যার অর্থ হচ্ছে পাকানো বা সর্পিলাকার। স্পিরুলিনা হলো অতি ক্ষুদ্র নীলাভ সবুজ শৈবাল যা সূর্যালোকের মাধ্যমে দেহের প্রয়োজনীয় শক্তি উৎপাদন করে । এটি সাধারণত জলে জন্মায়। সামুদ্রিক শৈবাল নামেই এ ...

                                               

বিছুটি

বিছুটি হলো ইউফোরবিয়াসেই পরিবারের একটি উদ্ভিদ। বিছুটি কে উত্তর বঙ্গের লোকেরা ছোতরা পাতার গাছ/ছোতরা গাছ/চুলচুইল্লাগাছ বলে ডাকে। তবে এর শুদ্ধ নাম বিছুটি গাছ । এটি এমন একপ্রকার উদ্ভিদ যার পাতা/রস/পাতার গুড়ো শরীরে লাগলে শরীর চুলকানি শুরু হয়।

                                               

বুদ্ধনারকেল

বুদ্ধনারকেল মালভেসি পরিবারের সপুষ্পক উদ্ভিদের Pterygota গণের উদ্ভিদ প্রজাতি। এটি ১৮৪৪ সালে উইলিয়াম রক্সবার্গ কর্তৃক প্রথম রেকর্ড করা হয়। বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী আইনের তফসিল-৪ অনুযায়ী এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত।

                                               

মালভেসি

মালভেসি সপুষ্পক উদ্ভিদের একটি পরিবার যাতে প্রায় ২৫০টি গণ এবং ৪২২৫+ প্রজাতি রয়েছে। এই পরিবারের সুপরিচিত সদস্য ওকরা, তুলা, এবং কোকো। প্রজাতির সংখ্যার দিক থেকে বৃহত্তম গণ হচ্ছে Hibiscus, Sterculia, Dombeya, Pavonia, and Sida.

                                               

লালপাতা

লালপাতা এর লাল এবং সবুজ পাতার জন্য সুবিখ্যাত। সপুষ্পক উদ্ভিদের ৪র্থ বৃহত্তম গণ Euphorbia এর এই প্রজাতিটির যথেষ্ট সাংস্কৃতিক ও বাণিজ্যিক গুরুত্ব রয়েছে। লালপাতার আদি উৎপত্তিস্থল মেক্সিকো এবং মধ্য আমেরিকা। বড়দিনে সুসজ্জিত গাছ প্রদর্শণে এটি ব্যবহার ...

                                               

প্রধানমূল

একটি প্রধান মূল পদ্ধতিগতভাবে একটি উদ্ভিদের, বৃহত্তম অংশ, অধিক কেন্দ্রীয়, এবং সবচেয়ে প্রভাবশালী শিকড় যা থেকে অন্য শিকড় পার্শ্বত প্ররোহ হয়। সাধারণত একটি প্রধান মূল কিছুটা সোজা এবং খুব পুরু হয়, আকৃতি মধ্যে সরুকারী হয়, এবং সরাসরি নিম্নগামী বৃদ ...

                                               

মূল (উদ্ভিদবিদ্যা)

মূল বা শেকড় হচ্ছে একটি বৃক্ষ বা গাছের ভিত্তি। শেকড়ের নানা ধরন, মাটির নিচের শিকড় ছাড়াও মাটির ওপরেও শেকড় দেখা যায়। এ শেকড়গুলো বের হয় উদ্ভিদের পাতা, কাণ্ড বা অন্যসব জায়গা থেকে। গাছের শেকড় মাটির তলায় অনেকখানি নেমে গিয়ে মাটির ওপর গাছকে সোজ ...

                                               

অ্যামাইটোসিস

অ্যামাইটসিস হল জীবদেহের এক ধরনের কোষ বিভাজন প্রক্রিয়া, যা প্রধানত নিম্ন শ্রেনির জীবে দেখা যায়। একে ক্যারিওস্টেনোসিস বা প্রত্যক্ষ কোষ বিভাজনও বলা হয়। একে অনেক সময় দ্বিবিভাজনও বলা হয়। মাইটোসিস বিভাজনে মাতৃকোষের অ্যালিলগুলো উভয় অপত্য কোষে সমভা ...

                                               

মিয়োসিস

মিয়োসিস বা মায়োসিস এক বিশেষ ধরনের কোষ বিভাজন প্রক্রিয়া যাতে মাতৃকোষের নিউক্লিয়াসটি উপর্যুপরি দুবার বিভাজিত হলেও ক্রোমোজোমের বিভাজন ঘটে মাত্র একবার, ফলে অপত্য কোষে ক্রোমোজোমের সংখ্যা অর্ধেক হয়ে যায়। ১৮৮৭ খ্রিষ্টাব্দে বোভেরী সর্বপ্রথম গোল কৃম ...

                                               

জনন মাতৃকোষ

জনন মাতৃকোষ হল এক প্রকার কোষ যা মিয়োসিস প্রক্রিয়ার মাধ্যমে গ্যামেটে আলাদা হয়। মিয়োসিসের মাধ্যমে, ডিপ্লোয়েড জনন মাতৃকোষ চারটি জিনগতভাবে পৃথক হ্যাপ্লয়েড গ্যামেটে বিভক্ত হয়। মায়োটিক কোষ চক্রের মাধ্যমে জনন মাতৃকোষের নিয়ন্ত্রণ বিভিন্ন জীবের ম ...

                                               

দ্বিবিভাজন

দ্বিবিভাজন এক ধরনের অযৌন প্রজনন পদ্ধতি যা ব্যাক্টেরিয়ার মতো প্রোক্যারিওটিক শ্রেণীর প্রাণীকূলে একটি সাধারণ প্রজনন প্রক্রিয়া। অ্যামিবা ও প্যারামেসিয়াম এর মতো কিছু ইউক্যারিওটিক প্রাণীর মধ্যেও এ পদ্ধতি দেখতে পাওয়া যায়। দ্বিবিভাজন পদ্ধতিতে ডি.এন. ...

                                               

ফ্র‍্যাগমোপ্লাস্ট

ফ্রাগমোপ্লাস্ট হলো উদ্ভিদ কোষের একটি নির্দিষ্ট গঠন যা সাইটোকাইনোসিস শেষ হবার পরে গঠিত হয়। এটি অনেকগুলো কোষ প্লেট একত্রিত হয়ে গঠিত হয় এবং পরবর্তীতে দুটি অপত্য কোষকে আলাদাকারী কোষ প্রাচীর গঠন করে। ফ্রাগমোপ্লাস্ট শুধুমাত্র ফ্রাগমোপ্লাস্টোফাইটাতে ...

                                               

অন্তঃক্ষরা গ্রন্থিতন্ত্র

অন্তঃক্ষরা গ্রন্থিতন্ত্র বা অন্তঃক্ষরা তন্ত্র হচ্ছে রাসায়নিক বার্তাবহনের একটি অবস্থা, যা হরমোন তৈরীকারক গ্রন্থি দিয়ে গঠিত। মানবদেহে প্রধান অন্তঃক্ষরা গ্রন্থি হলো থাইরয়েড, অ‍্য‌া‌‍‍ডরেনাল গ্রন্থি। ভার্টিব্রাটায়, হাইপোথ্যালামাস অন্তঃক্ষরাতন্ত্র ...

                                               

আচ্ছাদন তন্ত্র

আচ্ছাদন তন্ত্র মানবদেহের একটি তন্ত্র। এটি মানবমানবদেহের বাহ্যিক অঙ্গসমুহ আচ্ছাদন করে। এর কাজ স্নায়ু প্রান্ত যারা পরিবেশের সাথে খাপ খাওয়াতে সাহায্য করে রাসায়নিক ও যান্ত্রিক বাধার মাধ্যমে শরীরকে রক্ষা করা ভিটিমিন ডি-এর উৎস দেহকে পানিরোধী করা ক্য ...

                                               

মানব পরিপাকতন্ত্র

মুখ থেকে মলদ্বার পর্যন্ত খাদ্যনালী এবং সংশ্লিষ্ট অঙ্গ সমবায়ে মানব পরিপাকতন্ত্র গঠিত যার মূল কাজ খাদ্য পরিপাক করা। একে পাচনতন্ত্র বা পৌষ্টিকতন্ত্রও বলা হয়ে থাকে। অথবা, যে তন্ত্রের মাধ্যমে পরিপাক ক্রিয়া সম্পন্ন হয় তাই পরিপাকতন্ত্র বা পৌষ্টিকতন্ ...

                                               

রেচনতন্ত্র

রেচনতন্ত্র এইটি মানুষের দেহ থেকে অতিরিক্ত ও অকেজো জিনিস বের করে। দেহকে সুস্থতা দান করা এবং দেহের বিপাকীয় ক্রিয়া সম্পন্ন হওয়াপর উপজাত হিসেবে যেসব পদার্থ তৈরি হয় যেমন- ইউরিয়া, ক্রিয়েটিনিন তা এই প্রকিয়ার মাধ্যমে দেহের বাইরে নিষ্কাশিত হয়। তাই ...

                                               

শ্বসনতন্ত্র

শ্বসনতন্ত্র:যে তন্ত্রের মাধ্যমে শ্বসনকার্য সম্পন্ন হয় তাকে শ্বসনতন্ত্র বলে ৷ শ্বসন:যে শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়ায় দেহকর্তৃক গৃহীত খাদ্য অক্সিজেন সহযোগে জারিত হয়ে তাপ ও স্থিতিশক্তি উৎপন্ন করে তাকে শ্বসনতন্ত্র বলে ৷ শ্বসনের সাথে যেসকল অঙ্গ জড়িত ত ...

                                               

প্রগণ্ডাস্থি

প্রগণ্ডাস্থি বাহু বা সম্মুখ পদের একটি দীর্ঘাস্থি যা কাঁধ হতে কনুই পর্যন্ত বিস্তৃত। কঙ্কালে এটি অংশফলক ও অন্তঃপ্রকোষ্ঠাস্থি র মধ্যবর্তী। এটি নাম্নে বর্নিত তিনটি অংশে বিভক্ত: প্রগণ্ডাস্থির ঊর্ধ্ব শেষাংশ প্রগণ্ডাস্থির নিম্ন শেষাংশ প্রগণ্ডাস্থির দেহ

                                               

প্রগণ্ডাস্থির উর্ধ্ব প্রান্ত

প্রগণ্ডাস্থির ঊর্ধ্ব প্রান্ত একটি বড় গোলাকার মাথা যা দেহের সাথে একটি চাপা অংশ দ্বারা যুক্ত যাকে ঘাড় বলা হয় এবং দুটি উচু স্থান, বড় এবং ছোট টিউবারকল নিয়ে গঠিত।

                                               

ঘাড়

ঘাড় হলো মেরুদণ্ডী প্রাণীর দেহের এমন একটি অংশ যা মাথাকে ধড়ের সাথে যুক্ত করে এবং মাথাকে গতিশীলতা প্রদান করে। মানুষের ঘাড়ের কাঠামো চারটি বিভাগে বিভক্ত; ভার্টিব্রাল, ভিসেরাল এবং দুটি ভাস্কুলার কম্পার্টমেন্ট। এনাটমিতে, ঘাড় ছাড়াও, একে ল্যাটিন নাম, ...

                                               

পিটুইটারি গ্রন্থি

পিটুইটারি গ্রন্থি হলো একটি অন্তঃক্ষরা গ্রন্থি, মানব শরীরে যার ওজন ০.৫ গ্রাম এটা মস্তিষ্কের নিম্নাংশের হাইপোথ্যালামাসের নিম্নাংশ থেকে উৎপত্তি লাভ করে। এটি স্ফেনয়েড অস্থির হাইপোফাইসিয়াল ফসাতে অবস্থিত। পিটুইটারি গ্রন্থির ৩টি অংশ আছে। যথাঃ– সম্মুখ ...

                                               

পিনিয়াল গ্রন্থি

পিনিয়াল গ্রন্থি হচ্ছে মস্তিষ্কের একটি ছোট অন্তঃক্ষরা গ্রন্থি যা মানুষসহ বেশির ভাগ মেরুদণ্ডী প্রাণীর মধ্যে বিদ্যমান। এটি কোনারিয়াম বা এপিফাইসিস সেরিব্রি নামেও পরিচিত। পিনিয়াল গ্রন্থি মেলাটোনিন নামক সেরোটোনিন থেকে উদ্ভূত একটি হরমোন তৈরি করে যা ছ ...

                                               

স্যাজিটাল সুচার

স্যাজিটাল সুচার করোটির দুটি প্যারাইটাল অস্থির মধ্যে বিদ্যমান একটি ঘন, তন্তুময় যোজক টিস্যু সন্ধি। শব্দটি লাতিন শব্দ sagitta থেকে এসেছে, যার অর্থ তীর । এই শব্দটির উৎপত্তি সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায়, স্যাজিটাল সুচার কিভাবে করোটিকার পিছন দিকে ল্যাম্ ...

                                               

ডেল্টয়েড পেশি

ডেল্টয়েড পেশী মানুষের কাঁধের বৃত্তাকার সীমারেখা গঠন করে। গৃহপালিত বিড়ালের মতো অন্যান্য প্রাণীতে এটি কাধের সাধারণ পেশি নামে পরিচিত। শারীরবৃত্তীয়ভাবে, এটি তিনটি পৃথক সংশ্লেষযুক্ত ফাইবারের সমন্বয়ে গঠিত বলে মনে হয়, যেমন: সম্মুখবর্তী বা ক্ল্যাভিক ...