ⓘ Free online encyclopedia. Did you know? page 385




                                               

কাক

কাক কর্ভিডি গোত্রের অন্তর্গত একজাতীয় পাখি। উষ্ণমন্ডলীয় সব মহাদেশ এবং বেশ কিছু দ্বীপ অঞ্চলে কাকের বিস্তার রয়েছে। কর্ভাস গণের মধ্যে প্রায় ৪০টি বিভিন্ন প্রজাতির কাক দেখা যায়। কর্ভিডি গোত্রের প্রায় এক-তৃতীয়াংশই বিভিন্ন প্রজাতির কাকে পূর্ণ। অধি ...

                                               

কাঠ শালিক

কাঠ শালিক শালিক পরিবারের অন্তর্ভুক্ত একটি পাখি। ভারত, বাংলাদেশ এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দুর্গম বনাঞ্চল ও পাহাড়ি এলাকায় এদের দেখা পাওয়া যায়।

                                               

কালো গুন্দ্রী

কালো গুন্দ্রী, Phasianidae গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত Perdicula গণের এক প্রজাতির অত্যন্ত দুর্লভ তিতির। সারা পৃথিবীতে মাত্র ১৭ হাজার বর্গ কিলোমিটার জায়গা জুড়ে এদের আবাস। হিমালয়ের তিতিআর গোলাপি শির হাঁসের মত কালো গুন্দ্রীও পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হয ...

                                               

কালো ধনেশ

কালো ধনেশ হল ধনেশ প্রজাতির একধরনের পাখি যারা Bucerotidae পরিবারের অন্তর্ভুক্ত। এদের প্রধান বাসস্থানগুলোর মধ্যে পরে ব্রুনাই, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড।

                                               

কালো ফিঙে

কালো ফিঙে, রাজকীয় কাক হিসেবেও পরিচিত পাখিটি এশিয়ায় বাস করা ড্রঙ্গো পরিবারভুক্ত একটি ছোট্ট গানের পাখি। এটি গ্রীষ্মমন্ডলীয় অঞ্চলের স্থায়ী বাসিন্দা, একে দক্ষিণ-পশ্চিম ইরান থেকে শুরু করে ভারত এবং শ্রীলঙ্কা হয়ে দক্ষিণ চীন ও ইন্দোনেশিয়া পর্যন্ত ...

                                               

খয়েরি কাঠঠোকরা

লালচে কাঠঠোকরার দেহের দৈর্ঘ্য ২৫ সেন্টিমিটার ও ওজন ১০৫ গ্রাম। এদের পুরো দেহের পালক লালচে-খয়েরি, তার ওপর রয়েছে কালচে ডোরা। কাঁধ-ঢাকনি, ডানা লেজ ও বগলে আড়াআড়ি ডোরা রয়েছে। গলার পালক আঁইশের মতো দেখায়। পিঠ ও পেটে হালকা কালচে টান, ছিট ও ছোপ রয়েছ ...

                                               

গো শালিক

গোশালিক বা গোবরে শালিক ভারতীয় উপমহাদেশ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার একপ্রজাতির শালিক। বৈজ্ঞানিক নাম Gracupica contra । সমতলভূমি ও পাহাড়ের পাদদেশে খুব সহজেই এদের দেখা মেলে। ভাতশালিকের মত এরাও মানুষের আশেপাশে থাকতে ভালবাসে। সেকারণে শহরে আর গ্রামেগঞ্জে ...

                                               

গোলাপিশির

গোলাপিশির বা গোলাপি হাঁস এক প্রজাতির ভুতিহাঁস যা একসময় ভারত ও বাংলাদেশের গাঙ্গেয় অববাহিকা এবং মায়ানমারের নদীবাহিত জলাভূমিগুলোতে চরে বেড়াত। ধারণা করা হয়, ১৯৫০-এর দিকে হাঁসটি বিলুপ্ত হয়ে যায়। পরবর্তীতে প্রজাতিটি খুঁজে বের করার জন্য বেশ কিছু ...

                                               

চড়ুই গোত্র

চড়াই বা চড়ুই যেকোন লোকালয়ের আশেপাশে একটি সুপরিচিত পাখি। এরা জনবসতির মধ্যে থাকতে ভালোবাসে তাই এদের ইংরাজি নাম হাউস স্প্যারো অর্থাৎ "গৃহস্থালির চড়াই" এই পাখি বাড়ই,পিয়াইজ্জা ইদ্যাদি নামে পরিচিত। । খড়কুটো, শুকনো ঘাস পাতা দিয়ে এরা কড়িকাঠে, কা ...

                                               

চামচঠুঁটো বাটান

চামচঠুঁটো বাটান, এক জাতের ছোটো পাখি। সৈকতের কাদা-পানি হতে পোকা ধরার জন্য চড়ই আকারের এ পাখিটির চঞ্চু চামচের মত। গ্রীষ্মে উত্তরপূর্ব রাশিয়া বিশেষত সাইবেরিয়াতে এরা বাসা বাঁধে। পরে উপকূল ধরে উড়ে এসে শীতে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় বিশেষত মিয়ানমার ও ব ...

                                               

চিত্রা বনমুরগি

চিত্রা বনমুরগি বা রঙিলা বনমুরগি, হচ্ছে pheasant পরিবারের একটি পাখি। বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত।

                                               

ছাইরঙা বুলবুল

ছাইরঙা বুলবুল বা কালো-ধূসর বুলবুলি বুলবুলি পরিবারভুক্ত গায়ক পাখি। এটি ভারতীয় উপমহাদেশ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বাংলাদেশ, ভারতের আসাম, মেঘালয়, ভুটান, নেপাল, মিয়ানমার, কম্বোডিয়া, থাইল্যান্ড, লাওস, ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ও সিঙ্গাপু ...

                                               

টিয়া

টিয়া ৩৭২ টি প্রজাতি ও ৮৬ টি গণে বিভক্ত পাখি, যারা সিট্টাসিফর্মিস বর্গের অন্তর্ভুক্ত । টিয়া উষ্ণ ও নিরক্ষীয় অঞ্চলের পাখি। সিট্টাসিফর্মিস বর্গটি তিনটি গোত্রে বিভক্ত: সিট্টাসিডি, ক্যাকাটুইডি, এবং স্ট্রিগোপোইডি। টিয়ারা প্রায় সমগ্র নিরক্ষীয় অঞ্চ ...

                                               

ডাহুক

ডাহুক, ডাইক, পানপায়রা বা ধলাবুক ডাহুক Rallidae গোত্র বা পরিবারের অন্তর্ভুক্ত Amaurornis গণের অন্তর্গত মাঝারি আকৃতির একটি পাখি। পাখিটি বাংলাদেশ, ভারত ছাড়াও দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশে দেখা যায়।

                                               

দাঁড় কাক

দাঁড় কাক Corvidae গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত অতি পরিচিত একটি পাখি। মাঝারি আকারের সর্বভূক পাখি। দাঁড়কাকের ঠোঁট মোটা। পুরো দেহ কুচকুচে কালো। দাঁড়কাকের বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ বড় ঠোঁটের কাক ।

                                               

দিনকানা

দিনকানা বাংলাদেশের একটি আবাসিক পাখি। এরা স্বভাবে নিশাচর। এদের গড় ওজন ৭৮ গ্রাম এবং দৈর্ঘ্যে ৩৩ সেন্টিমিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে। পাখিটির ইংরেজি নাম লার্জ টেইলড নাইটজার। বৈজ্ঞানিক নাম Caprimulgus macrurus. উড়ন্ত পোকামাকড়-মথ ইত্যাদি এদের প্রধান খাবার।

                                               

দোয়েল পাখি

দোয়েল প্যাসেরিফরম বর্গের অন্তর্গত একটি পাখি। এর বৈজ্ঞানিক নাম Copsychus saularis । এই পাখির বাংলা নামটির সঙ্গে ফরাসী ও ওলন্দাজ নামের মিল আছে। ফরাসী ভাষায় একে বলা হয় Shama dayal এবং ওলন্দাজ ভাষায় একে বলা হয় Dayallijster। এটি বাংলাদেশের জাতীয় ...

                                               

ধনেশ

ধনেশ শক্ত ও লম্বা বাঁকানো ঠোঁটওয়ালা পাখি হিসেবে পরিচিত। এটি বিউসেরোটিডি গোত্র বা পরিবারভূক্ত পাখি। গ্রীষ্মমণ্ডলীয় ও উপ-গ্রীষ্মমণ্ডলীয় আফ্রিকা, এশিয়া মহাদেশ এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জে অধিকাংশ ধনেশের প্রধান আবাস। নিচের দিকে বাঁকানো উজ্ ...

                                               

ধলা মানিকজোড়

ধলা মানিকজোড় বা সাদা মানিকজোড় Ciconiidae গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত Ciconia গণের অন্তর্গত এক প্রজাতির শ্বেতকায় বৃহদাকৃতির পাখি। ধলা মানিকজোড়ের বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ মানিকজোড় । পাখিটি বাংলাদেশ, ভারত ছাড়াও এশিয়া, আফ্রিকা ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ ...

                                               

ধলাগলা মানিকজোড়

ধলাগলা মানিকজোড় বা Ciconiidae গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত Ciconia গণের অন্তর্গত এক প্রজাতির কৃষ্ণকায় বৃহদাকৃতির পাখি। ধলা মানিকজোড়ের বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ মানিকজোড় । পাখিটি বাংলাদেশ, ভারত ছাড়াও এশিয়া ও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে দেখা যায়। সারা পৃ ...

                                               

ধানি তুলিকা

ধানি তুলিকা হল তুলিকা ও খঞ্জন গোত্রের একটি ছোট প্যাসারিফর্মিস পাখি। এরা আবাসিক জাতের পাখি যারা দক্ষিণ এশিয়া থেকে ফিলিপাইন্স পর্যন্ত খোলা তৃণভূমি এবং চাষাবাদ ক্ষেত্রে বিচরণ করে। এশীয় অঞ্চলে কয়েকটি তুলিকার প্রজনন হলেও, শীতকালে দূরদুরান্ত থেকে অন ...

                                               

নীলকণ্ঠ পাখি

নীলকন্ঠ পাখি মাপে ৩১-৩৩ পর্যন্ত হয়ে থাকে। মাথার উপরে কিছুটা নীল রং থাকে এবং পালকের নিচের দিকে নীল রং থাকে। তবে এই পাখিকে অনেকটা কলার মোচার মত দেখা যায়।

                                               

পাহাড়ি টুনটুনি

এই পাখি উত্তর-পূর্ব ভারত ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় বাংলাদেশ, ভারত, মিয়ানমার, সিঙ্গাপুর, ইন্দোনেশিয়া, চীন, মালয়েশিয়া, কম্বোডিয়া, ফিলিপাইন, লাওস ও থাইল্যান্ড দেখতে পাওয়া যায়।

                                               

পাহাড়ি নীল চটক

পাহাড়ি নীল চটক Muscicapidae পরিবারের সদস্য। বাংলাদেশ, ব্রুনাই, ইন্দোনেশিয়া, চীন, ভারত, নেপাল, মিয়ানমার, লাওস, কম্বোডিয়া, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম ও মালয়েশিয়ায় দেখা যায়।

                                               

ফিঙে কুলি

ফিঙে কুলি বা এশীয় ফিঙেপাপিয়া এটি শ্রীলঙ্কা ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় পাওয়া যায় এবং গ্রীষ্মকালে হিমালয়ে থেকে কাশ্মীর থেকে বাংলাদেশের পূর্বে পরিযায়ী হয়ে আসে।

                                               

বাবুই

বাবুই Ploceidae গোত্রের অন্তর্গত একদল প্যাসারাইন পাখি। খুব সুন্দর বাসা বোনে বলে এরা "তাঁতি পাখি" নামেও পরিচিত। এদের বাসার গঠন বেশ জটিল আর আকৃতি খুব সুন্দর। কয়েক প্রজাতির বাবুই একাধিক কক্ষবিশিষ্ট বাসা তৈরি করতে পারে। তুতির সাথে এরা ঘনিষ্ঠভাবে সম্ ...

                                               

বুলবুলি

বুলবুলি বা বুলবুল পাইকননোটিডে পরিবারভূক্ত মাঝারি আকারের পাসারাইন গানের পাখি। এই প্রজাতির পাখির আবাস্থল আফ্রিকার অধিকাংশ অঞ্চল, মধ্য প্রাচ্যে, ক্রান্তীয় এশিয়া হতে ইন্দোনেশিয়া পর্যন্ত এবং উত্তরে জাপান পর্যন্ত বিস্তৃত।

                                               

বেগুনি কোকিল

বেগুনি কোকিল হলুদঠোঁট সোনাপাপিয়া বা বেগুনি পাপিয়া নামেও পরিচিত এক ধরনের কোকিল প্রজাতির পাখি। এরা বেশ দ্রুত উড়তে পারে। এদেরকে সাধারণত বাংলাদেশ, ভারত, ভুটান, চীনে দেখা যায়।

                                               

বেগুনিকোমর মৌটুসি

বেগুনিকোমর মৌটুসি ভারতীয় উপমহাদেশের একটি সানবার্ড স্থানীয় পাখি। অন্যান্য সানবার্ডগুলির মতো এগুলি আকারে ছোট, মূলত অমৃত খায়, তবে কখনও পোকামাকড় গ্রহণ করে, বিশেষত যখন বাচ্চাদের খাওয়ায়। এগুলি সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য উড়তে পারে, তবে সাধারণত ফুল থেক ...

                                               

ভাত শালিক

ভাত শালিক Sturnidae গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত Acridotheres গণের অন্তর্গত অত্যন্ত পরিচিত একটি পাখি। ভাতশালিকের বৈজ্ঞানিক নামের অর্থও অনুজ্জ্বল পঙ্গপালভূক । পাখিটি বাংলাদেশ, ভারত ছাড়াও দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশে দেখা যায়। সারা পৃ ...

                                               

ময়না

ময়না Sturnidae গোত্রের অন্তর্গত একদল পাখি। বেশিরভাগ প্রজাতির ময়নার আবাস দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায়। বহু প্রজাতির ময়না উত্তর আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ফিজি, দক্ষিণ আফ্রিকা প্রভৃতি দেশে অবমুক্ত করা হয়েছে। শালিকের সাথে এরা অনেকটাই ...

                                               

সাদাচিবুক তিতির

সাদাচিবুক তিতির Phasianidae গোত্রের অন্তর্গত পাখির একটি প্রজাতি। এর ইংরেজি নাম White-cheeked Partridge বা White-cheeked Hill Partridge। এরা বাংলাদেশ, ভারত, মিয়ানমার ও চীনের স্থানীয় পাখি। আই. ইউ. সি. এন. এই প্রজাতিটিকে Near Threatened বা প্রায়- ...

                                               

হলদে চোখ ছাতারে

হলদে চোখ ছাতারে একটি প্যাসেরাইন গায়ক প্রজাতির পাখি। এদের দক্ষিণ এশিয়ার খোলা ঘাস এবং ছোট ঝোঁপের মধ্যে দেখতে পাওয়া যায়। প্রজনন মৌসুমে সাধারণত পুরুষ পাখি ঝোঁপের মাথায় ও ঘাসের ডগায় বসে জোরে গান গায়।

                                               

হলদেচাঁদি কাঠকুড়ালি

হলদেচাঁদি কাঠকুড়ালি বা মহরতা কাঠকুড়ালি দক্ষিণ এশিয়ায় পাওয়া এক প্রজাতির ছোট কাঠঠোকড়া। এটি লাইওপিকাস গণের একমাত্র প্রজাতি। এটি বিশ্বে বিপদমুক্ত এবং বাংলাদেশে বিরল আবাসিক পাখি। বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত। পাখিটি হলদেকপাল প ...

                                               

হাঁস

হাঁস অ্যানাটিডি পরিবারের অন্তর্ভুক্ত পাখিদের বেশ কিছু প্রজাতির সাধারণ নাম। অ্যানাটিডি পরিবারের অন্য দুই সদস্য মরাল আর রাজহাঁস থেকে এরা আকারে ভিন্ন। হাঁসেরা এ শ্রেণীর বেশ কয়েকটি উপশ্রেণীর অন্তর্ভুক্ত। শারীরিক দিক থেকে হাঁস চ্যাপ্টা ঠোঁট ও খাটো গল ...

                                               

ওয়ার্ডের কুচকুচি

ওয়ার্ডের কুচকুচি হল একপ্রকারের পাখি প্রজাতি যারা কুচকুচি পরিবারের অন্তর্ভুক্ত। এরা প্রধানত ভারতের উত্তর-পূর্ব দিকে বসবাস করে এবং ক্রমশ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দিকে বিস্তার করে। এদেরকে প্রধানত ভারত, ভুটান, তিব্বত, মায়ানমার এবং ভিয়েতনাম প্রভৃতি দেশ ...

                                               

দক্ষিণী পাহাড়ি ময়না

দক্ষিণী পাহাড়ি ময়না শালিক পরিবারের অন্তর্গত একপ্রকারের ময়না। এদের প্রধান বাসস্থান হলো ভারত এবং শ্রীলঙ্কা-এর দক্ষিণপশ্চিম দিকের পাহাড়সমূহ।

                                               

ধূসর বনমোরগ

ধূসর বনমোরগ ফ্যাজিয়ানিডি গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত গ্যালাস গণের এক প্রজাতির বনমোরগ। পাখিটি সারা বিশ্বে কেবলমাত্র ভারতে পাওয়া যায়, অর্থাৎ এটি ভারতের এন্ডেমিক বা স্থানিক পাখি। ভারতীয় উপদ্বীপ এদের প্রধান আবাসস্থল। যেসব এলাকায় সাধারণ বনমোরগের স ...

                                               

ভারতীয় শকুন

ভারতীয় শকুন বিশ্বের অতি প্রাচীন শকুনের একটি প্রজাতি, যা প্রধানত ভারত, পাকিস্তান ও নেপালে দেখা যায়। এদের সংখ্যা ক্রমশ কমে আসায় ২০০২ সালে আইইউসিএন মহাবিপন্ন হিসাবে চিহ্নিত করে এদের আইইউসিএন-এর লাল তালিকাভুক্ত করে। ডাইক্লোফেনাক বিষক্রিয়ায় রেচনজ ...

                                               

ভারতের রাজ্য পাখিসমূহের তালিকা

                                               

মালাবার দাগযুক্ত ধনেশ

মালাবার দাগযুক্ত ধনেশ হল একধরনের ধনেশ প্রজাতির পাখি। পৃথিবীতে এই প্রজাতির সংখ্যা কম এবং ক্রমহ্রাসমান৤ তাই একে প্রায় অস্তিত্ববিপন্ন পাখি হিসেবে গণ্য করা হয়৤

                                               

মালাবার ধূসর ধনেশ

মালাবার ধূসর ধনেশ হল একধরনের ধনেশ প্রজাতি যারা দক্ষিণ ভারতের পশ্চিম ঘাটের দিকে বেশি বসবাস করে। এদের ঠোট খুব বড় হয় কিন্তু ধনেশের অন্যান্য প্রজাতির মতোন এদের শিরস্ত্রাণ থাকে না। এদের প্রধানত দেখতে পাওয়া যায় ঘন জঙ্গলে। প্রধানত রবার গাছ, সুপারি গ ...

                                               

লাল মোরগ

বাংলাদেশ থেকে সংগৃহিত নমুনা হার্ভার্ডের Museum of Comparative Zoology জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে। এই পাখির বৈশ্বিক অবস্থা ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত, অনিশ্চিত ও অনুমান নির্ভর। বাংলাদেশের অবস্থায় অনিশ্চিত ও অনুমান নির্ভর, অনিশ্চিত ও অনুমান নির্ভর।

                                               

সাদা দাগযুক্ত লেজনাচানি

সাদা দাগযুক্ত লেজনাচানি অথবা দাগ-বুক লেজনাচানি হল একধরনের ছোটো প্যাসারিফর্মিস পাখি। এদেরকে প্রধানত দেখতে পাওয়া যায় বনে জঙ্গলে, এবং এদের প্রধান বিস্তার হল দক্ষিণ এবং মধ্য ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে। এদেরকে আগে ধলাগলা লেজনাচানি প্রজাতির উপজাতি বলে মনে ...

                                               

ধলামাথা কাঠঠোকরা

ধলামাথা কাঠঠোকরা Picidae গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত Gecinulus গণের অন্তর্ভুক্ত এক প্রজাতির অতি পরিচিত পাখি ।

                                               

ডোরাবুক পাকড়া কাঠকুড়ালি

বৈশ্বিক অবস্থা ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত এবংবাংলাদেশের অবস্থায় অপ্রতুল-তথ্য ।কেবল মাত্র দুইটি তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। বাংলাদেশ থেকে সংগৃহিত এ প্রজাতির পাখির

                                               

কালোকোমর বাতাসি

কালোকোমর বাতাসি Apodidae পরিবারে এক প্রজাতির পাখি। এটি ভুটান এবং উত্তর-পূর্ব ভারতে পাওয়া যায় এবং থাইল্যান্ডের কাছে এটি একটি বিস্মৃত। এর প্রাকৃতিক আবাসটি হল উপ-ক্রান্তীয় বা ক্রান্তীয় আর্দ্র নিম্নভূমি বন। এটি আবাসস্থলের ক্ষয়ক্ষতির হুমকী।

                                               

রুফুয়স ঘাড়যুক্ত ধনেশ

রুফুয়স ঘাড়যুক্ত ধনেশ হল ধনেশ প্রজাতির পাখি। এদেরকে প্রধানত ভারতীয় উপমহাদেশ, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া তে দেখতে পাওয়া যায়। এদের সংখ্যা ক্রমশ কমে আসছে কারণ এদের বাসস্থান ধ্বংস এবং শিকারীদের দ্বারা শিকার হওয়ার ফলে। এরা নেপাল থেকে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। ...

                                               

অ্যালোট্রা ডুবুরি

অ্যালোট্রা ডুবুরি, হচ্ছে একটি is an বিলুপ্ত পাখির প্রজাতি। এটি ছিল মাদাগাস্কার দ্বীপের অ্যালোট্রা হ্রদের স্থানীয় প্রজাতি ছিল।

                                               

দাগিবুক কাঠঠোকরা

দাগিবুক কাঠঠোকরা পাখটি বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চল থেকে মধ্য মালয় উপদ্বীপ পর্যন্ত পাওয়া যায়। গ্রীষ্মমন্ডলীয় আর্দ্র নিম্নভূমির বন এবং গ্রীষ্মমন্ডলীয় ম্যানগ্রোভ বনে এদের আবাস।