ⓘ Free online encyclopedia. Did you know? page 346




                                               

গ্লুয়ন

গ্লুয়ন হলো এক ধরনের মৌলিক কণা যা কোয়ার্কের মধ্যে সবল মিথস্ক্রিয়ার জন্য পরিবতনশীল কণার মত ক্রিয়া করে। ইহা দুটি আহিত কণার মাঝে তড়িৎ-চৌম্বক বলের ফোটন বিনিময়ের অনুরূপ। সাধারন ভাষায়, এরা আঠার মত করে কোয়ার্কগুলিকে একত্রিত রেখে হ্যাড্রন যেমন প্র ...

                                               

ঘনপদার্থবিজ্ঞান

ঘনপদার্থবিজ্ঞান হল পদার্থবিজ্ঞানেরএকটি শাখা যাতে বিভিন্ঘন পদার্থের নানা ধর্ম, যেমন অতিপরিবাহিতা, অর্ধপরিবাহিতা, অয়শ্চৌম্বকত্ব ইত্যাদি আলোচিত হয়। পদার্থের ভৌত ধর্ম যেমন দশান্তর ইত্যাদি নিয়ে পদার্থবিজ্ঞানের এই শাখাটিতেই সবচেয়ে গভীর গবেষণা হয়।

                                               

চন্দ্রশেখর সীমা

চন্দ্রশেখর সীমা হল স্থিতিশীল শীতল শ্বেত বামন তারকার সম্ভাব্য সর্বোচ্চ ভর। ভর এর চাইতে বেশি হলে তারকাটি চুপসে কৃষ্ণবিবরে পরিণত হবে। ১৯৩১ সালে ভারতীয় জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞানী সুব্রহ্মণ্যন চন্দ্রশেখর দেখান যে, একটি শ্বেত বামন তারকার জন্য এই ভরের মান ১ ...

                                               

চাপ

চাপ হল একক ক্ষেত্রফলে কোন বস্তুর তলের ওপর লম্বভাবে প্রযুক্ত সমভাবে বিতরিত বল। পারিপার্শ্বিক চাপের সাপেক্ষে যে চাপ উৎপন্ন হয় তাকে বলা হয় গজ চাপ। চাপ প্রকাশ করার জন্য বিভিন্ন একক ব্যবহৃত হয়। এগুলির মধ্যে কিছু একক পাওয়া যায় বলের একককে ক্ষেত্রফল ...

                                               

চার-ভরবেগ

বিশেষ আপেক্ষিকতায় চিরায়ত ত্রিমাত্রিক ভরবেগকে চার-মাত্রার স্থান-কালে সাধারণীকরণই চার-ভরবেগ বা four-momentum । ত্রিমাত্রিক ব্যবস্থায় ভরবেগ একটি ভেক্টর; অনুরূপভাবে স্থান-কালে চার-ভরবেগ হল একটি চার-ভেক্টর। কোন কণার আপেক্ষিক শক্তি = E, ত্রিমাত্রিক ...

                                               

চার্লসের সূত্র

চার্লসের সূত্র হলো একটি পরীক্ষালব্ধ গ্যাসের সূত্র যা তাপ বৃদ্ধির সাথে সাথে গ্যাসের প্রসারণের ব্যাখ্যা দেয়। চার্লসের সূত্রের একটি আধুনিক বিবৃতি হলো: স্থির চাপে নির্দিষ্ট ভরের কোনো গ্যাসের আয়তন গ্যাসটির পরম তাপমাত্রার সমানুপাতিক। অর্থাৎ,: V ∝ T { ...

                                               

চৌম্বক ক্ষেত্র

চৌম্বক ক্ষেত্র হলো একটি ভেক্টর ক্ষেত্র যা কোন আপেক্ষিক গতিসম্পন্ন আধান বা চুম্বকিত বস্তুর চৌম্বকীয় প্রভাব ব্যাক্ষা করে। একটি আধান, অন্যান্য আধানের স্রতের সাথে সমান্তরালে ধাবিত হলে তা তার নিজের বেগের উলম্বে একটি বল অনুভব করে। চৌম্বক ক্ষেত্রের এই ...

                                               

জড় প্রসঙ্গ কাঠামো

জড় প্রসঙ্গ কাঠামো কে গ্যালিলীয় প্রসঙ্গ কাঠমো বা নিউটনীয় প্রসঙ্গ কাঠামোও বলা হয়। জড় প্রসঙ্গ কাঠামো হলো প্রসঙ্গ কাঠামোর বিশেষ একটি রূপ যেখানে পরস্পর দুটি প্রসঙ্গ কাঠামোকে একে অপরের সাপোক্ষে ধ্রুব বেগে গতিশীল হিসাবে বিবেচনা করা হয়।

                                               

জুলের সূত্র

১৮৪১ খ্রিস্টাব্দে বিজ্ঞানী জুল সর্বপ্রথম পরিবাহীতে তড়িৎ-প্রবাহের ফলে তাপের সৃষ্টি সম্পর্কে তিনটি সূত্র প্রকাশ করেন, এই সূত্রগুলোকে জুলের সূত্র বলা হয় | সূত্রগুলি নিচে দেওয়া হল:

                                               

টিটিয়ুস-বোডে নীতি

টিটিয়ুস-বোডে নীতি সূর্য থেকে গ্রহগুলির দূরত্বের আসন্ন আপেক্ষিক মানসমূহের মধ্যে এক চমৎকার গাণিতিক সম্পর্ক প্রকাশ করে। ০, ১, ২, ৪, ৮, ১৬, ৩২, ৬৪. ইত্যাদি সংখ্যাগুলির প্রতিটিকে ৩ দিয়ে গুণ করে ৪ যোগ করে ১০ দিয়ে ভাগ করলে পাওয়া যায়: ০.৪, ০.৭, ১.০, ...

                                               

ট্রান্সফরমার

ট্রান্সফরমার বা ট্রান্সফর্মার একটি স্থির বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম যার দ্বারা কোনো পরিবর্তী তড়িৎ ব‍্যবস্থায় অপরিবর্তীত কম্পাঙ্কতে নির্দিষ্ট পরিমাণ বিদ্যুৎ শক্তিকে ভোল্টেজের মান অনুযায়ী কমিয়ে বা বাড়িয়ে এক সার্কিট থেকে অন‍্য সার্কিটে স্থানান্তর করা য ...

                                               

ডায়াচৌম্বক পদার্থ

ডায়াচৌম্বক পদার্থ চৌম্বক ক্ষেত্র দ্বারা বিকর্ষীত হয়; কোন প্রযুক্ত চুম্বক ক্ষেত্র এদের মাঝে বিপরীত দিকে একটি প্রণোদিত চুম্বক ক্ষেত্র উৎপন্ন করে যা এই বিকর্ষনের কারণ। অন্যদিকে ফেরোচৌম্বক পদার্থ এবং প্যারাচৌম্বক পদার্থ একটি চুম্বক ক্ষেত্র দ্বারা আ ...

                                               

ডিউটেরিয়াম

ডিউটেরিয়াম বা ডয়টেরিয়াম হলো হাইড্রোজেনের অর্থাৎ উদজানের একটি ভারী আইসোটোপ। এর চিহ্ন 2 H অথবা D । একে ভারী হাইড্রোজেন ও বলে। এর কেন্দ্রীনকে বলা হয় ডিউট্রন যার মধ্যে রয়েছে একটি প্রোটন এবং একটি নিউট্রন। ডিউটেরিয়াম আইসোটোপের নামকরণ করা হয় গ্রি ...

                                               

ডোপায়ন

ডোপায়ন বা ডোপিং হলো অর্ধপরিবাহী উৎপাদনে ইচ্ছাকৃতভাবে একটি অত্যন্ত খাঁটি অর্ধ পরিবাহীর মধ্যে ভেজাল মিশিয়ে এর বৈদ্যুতিক বৈশিষ্ট্যাবলী পরিবর্তন করা। ভেজালের পরিমাণ অর্ধপরিবাহীর ধরনের উপর নির্ভর করে।

                                               

তড়িৎ বলরেখা

বিজ্ঞানী মাইকেল ফ্যারাডে তড়িৎ ক্ষেত্রের সুস্পষ্ট ধারণা সৃষ্টির জন্য তড়িৎ বলরেখা ধারণার অবতারণা করেন। রেখাগুলো সম্পূর্ণ কাল্পনিক। তড়িৎ বলরেখা’’ তড়িৎ ক্ষেত্রের মধ্যে অঙ্কিত খোলা বক্ররেখা যার কোন বিন্দুতে অঙ্কিত স্পর্শক ঐ বিন্দুতে লব্ধি বলের দিক ...

                                               

তরঙ্গ

তরঙ্গ বা ঢেউ হলো এক ধরনের পর্যাবৃত্ত আন্দোলন যা কোন জড় মাধ্যমের এক স্থান থেকে অন্য স্থানে শক্তিবল সঞ্চারিত করে কিন্তু মাধ্যমের কণাগুলো নিজ নিজ স্থান থেকে স্থানান্তরিত হয় না । কিছু কিছু তরঙ্গ শূণ্য মাধ্যম দিয়েও সঞ্চারিত হতে পারে। এ ধরনের তরঙ্গ ...

                                               

তরঙ্গ দৈর্ঘ্য

তরঙ্গ দৈর্ঘ্য: কোনো তরঙ্গের পরপর দুটি, একই দশা সম্পন্ন কণার মধ্যকার দূরত্বকে তরঙ্গ দৈর্ঘ্য বলা হয়। অর্থাৎ, পরপর দুটি তরঙ্গচূড়া বা পর দুটি তরঙ্গখাঁজের মধ্যবর্তী দূরত্ব হলো তরঙ্গদৈর্ঘ্য। তরঙ্গ দৈর্ঘ্যকে λ দ্বারা প্রকাশ করা হয়। কোনো তরঙ্গের বেগ v ...

                                               

তরঙ্গ ব্যতিচার

পদার্থবিজ্ঞানে ব্যতিচার বলতে দুটি তরঙ্গের উপরিপাতনের ফলে সৃষ্ট নতুন তরঙ্গের বিস্তারের পর্যায়ক্রমিক হ্রাস-বৃদ্ধির ঘটনাকে বোঝানো হয়। এটি দুটি তরঙ্গের মধ্যেকার একটি আন্তঃক্রিয়া যেখানে তরঙ্গদুটি সুসংগত উৎস থেকে নির্গত হয়ে থাকে। এই ঘটনাটি তখনই সম্ ...

                                               

তরঙ্গমুখ

পদার্থবিজ্ঞানে, সময়ের সাপেক্ষে পরিবর্তনশীল কোন তরঙ্গমুখ বলতে কোন তরঙ্গের ঐ সকল বিন্দুর সেট নির্দেশ করে, যেখানে বিন্দুগুলো সাইনুসয়েড এর সাথে একই দশায় অবস্থান করে। যে ক্ষেত্রগুলোতে তরঙ্গের প্রতিটি বিন্দু, সময়ের সাপেক্ষে, একটি একক অস্থায়ী কম্পা ...

                                               

তাড়ন তড়িৎ

ঘনীভূত পদার্থবিজ্ঞান ও তড়িৎ রসায়নের ভাষায়, তাড়ন তড়িৎ হলো তড়িৎ ক্ষেত্র প্রয়োগের ফলে চার্জ বাহকের মধ্য দিয়ে চলমান তড়িৎ প্রবাহ । যখন কোনো অর্ধপরিবাহীর মধ্য দিয়ে তড়িৎ ক্ষেত্র প্রয়োগ করা হয়, তখন চার্জ বাহকের প্রবাহের দরুন একটা তড়িৎ প্রবা ...

                                               

তাড়ন বেগ

তাড়ন বেগ হলো কোনো কণা যেমন ইলেক্ট্রনের সেই বেগ যা সে তড়িৎ ক্ষেত্রের কারণে লাভ করে। তাড়ন বেগকে নিম্নোক্তভাবে প্রকাশ করা হয়: J = ρ v a v g {\displaystyle J=\rho v_{\it {avg}}} v a v g = μ E {\displaystyle v_{\it {avg}}=\mu E} যেখানে J {\display ...

                                               

তাপ

তাপ একপ্রকার শক্তি যা আমাদের শরীরে ঠান্ডা বা গরমের অনুভূতি তৈরি করে। তাপগতিবিদ্যা অনুসারে, যখন দুটি বস্তুর মধ্যে প্রথমটি থেকে দ্বিতীয়টিতে আরেকটিতে শক্তি স্থানান্তরিত হয়​, তখন প্রথমটি দ্বিতীয়টি অপেক্ষা গরম হয় । আর অন্যভাবে বলা যায়, তাপ হলো পদ ...

                                               

তাপগতিবিদ্যার শূন্যতম সূত্র

তাপগতিবিদ্যার শূন্যতম সূত্র থেকে জানা যায়, যদি A ও B দুটি বস্তু হয় এবং এদের মধ্যস্থতাকারী একটি বস্তু C হয়, তাহলে A ও B সমতাপীয় অবস্থায় থাকলে A ও C এবং B ও C সমতাপীয় অবস্থায় থাকবে । সূত্রটিকে এভাবেও লেখা যায়: যদি দুটি বস্তু A ও B পৃথক পৃথক ...

                                               

তাপীয় সমীকরণ

তাপীয় সমীকরণ একপ্রকার অধিবৃত্তীয় আংশিক ব্যবকলনীয় সমীকরণ যা কোন প্রদত্ত স্থানে সময়ের পরিবর্তনের সাথে তাপের বণ্টন বর্ণনা করে।

                                               

ত্বরণ

বলবিজ্ঞানে ত্বরণ হলো সময়ের সাথে কোনো বস্তুর বেগ পরিবর্তনের হার। এটি একটি ভেক্টর রাশি । কোনও বস্তুর ত্বরণের দিক সেই বস্তুর উপর প্রযুক্ত নেট বলের দিকে হয়। নিউটনের দ্বিতীয় সূত্রানুসারে, ত্বরণের মান হলো নিম্নোক্ত দুটি কারণের সম্মিলিত প্রভাব: বস্তু ...

                                               

ত্রৈধ বিন্দু

--যে তাপমাত্রা ও চাপে কোনও বস্তু একইসাথে বাষ্পীয়, তরল এবং কঠিন অবস্থায় বিরাজ করতে পারে তাকে ওই বস্তুর ত্রৈধ বিন্দু বলে | অথবা "4.58 mmhg চাপে এবং 273.16 K তাপমাত্রায় বিশুদ্ধ বরফ, বশুদ্ধ পানি এবং সম্পৃক্ত জলীয় বাষ্প একই তাপীয় সাম্যাবস্তায় থা ...

                                               

থমসন পরমাণু মডেল

১৮৯৮ সালে বিজ্ঞানী জে জে থমসন যে কিশমিশ পুডিং মডেল প্রস্তাব করেন তাতে তিনি বলেন যে, পুডিংয়ের ভিতরে কিশমিশ যেমন বিক্ষিপ্ত ভাবে ছড়িয়ে থাকে পরমাণুতে ঠিক তেমনি নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে বন্টিত ধনাত্মক আধানের মধ্যে ইলেকট্রন ছড়িয়ে আছে। দেশজভাবে এ মডেলকে ত ...

                                               

দশার সমীকরণ

পদার্থবিজ্ঞান এবং তাপগতিবিজ্ঞানে, একটি দশার সমীকরণ হলো একটি দশার চলক সম্পর্কিত তাপগতীয় সমীকরণ যেখানে ভৌত অবস্থার একটি নির্দিষ্ট সেট, যেমন চাপ, আয়তন, তাপমাত্রা, বা অভ্যন্তরীণ শক্তির অধীনে পদার্থের অবস্থা বর্ণীত হয়। দশার সমীকরণগুলি তরল, তরলের মি ...

                                               

দীঘল তরঙ্গ

সরল ছন্দিত স্পন্দন সম্পন্ন কোন কণা যে তরঙ্গ উৎপন্ন করবে তাকে সরল ছন্দিত তরঙ্গ বলে। এটি দু্ই প্রকার। ১ আড় তরঙ্গ বা অনুপ্রস্থ তরঙ্গ এবং ২ দীঘল তরঙ্গ বা অনুদৈর্ঘ্য তরঙ্গ যে তরঙ্গ মাধ্যমের কণাগুলোর কম্পনের দিকের সাথে সমান্তরালে অগ্রসর হয় সেটাই দীঘল ...

                                               

দৃশ্যমান বর্ণালী

দৃশ্যমান বর্ণালি বা দৃশ্য বর্ণালি বা আলোক বর্ণালি হচ্ছে তড়িচ্চুম্বকীয় বর্ণালীর সেই অংশ যা মানুষের চোখে দৃশ্যমান অর্থাৎ যা মানুষের চোখ চিহ্নিত করতে পারে। এই তরঙ্গ দৈর্ঘ্য সীমার তড়িচ্চুম্বকীয বিকিরণকে দৃশ্যমান আলো বা শুধু আলো বলে অভিহিত করা হয়। ...

                                               

দৈর্ঘ্য সংকোচন

চিরায়ত পদার্থবিদ্যার মতে বস্তুর সাপেক্ষে পর্যবেক্ষকের বেগ যাই হোক না কেন সকল পর্যবেক্ষকের নিকট বস্তুর দৈর্ঘ্য সমান বা অভিন্ন থাকে। কিন্তু আপেক্ষিকতা তত্ত্ব অনুসারে গতির সাথে বস্তুর দৈর্ঘ্যর পরিবর্তন ঘটে। কোনো বস্তুকে যদি আলোর বেগে নিক্ষেপ/ভ্রমণ ...

                                               

ধারকত্ব

ধারকত্ব হল কোন নির্দিষ্ট বিভব পার্থক্যে সঞ্চিত তড়িৎ আধানের পরিমাপ। তড়িৎ আধান সঞ্চয়ের জন্য দুই পাত বিশিষ্ট ধারক সর্বাধিক প্রচলিত। যদি ধারকের পাতদ্বয়ে আধানের পরিমাণ যথাক্রমে +Q ও -Q এবং পাতদ্বয়ের বিভব পার্থক্য V হয়, তবে ধারকত্ব C = Q V {\disp ...

                                               

নিউক্লিয় শৃঙ্খল বিক্রিয়া

যখন একটি নিউক্লিয় বিক্রিয়ার কারণে পরবর্তীতে আরও এক বা একাধিক বিক্রিয়া ঘটে এবং এই বিক্রিয়া ধারাবাহিকভাবে অগ্রসর হয় তখন তাকে নিউক্লিয় শৃঙ্খল বিক্রিয়া বলে। ভারি আইসোটোপ এর বিভাজন এক ধরনের নিউক্লিয় বিক্রিয়া। যেকোন রাসায়নিক বিক্রিয়ার চেয়ে ...

                                               

পদার্থ

রসায়নবিদ্যায় পদার্থকে মৌলিক পদার্থ যাকে রাসায়নিকভাবে সরলতর উপাদানে বিশ্লেষণ করা সম্ভব নয় ও যৌগিক পদার্থ যাকে রাসায়নিকভাবে সরলতর উপাদানে তথা মৌলিক পদার্থে বিশ্লেষণ করা সম্ভব - এই দুই শ্রেণীতে ভাগ করা হয়েছে। মৌলিক পদার্থগুলি একে অপরের সাথে রা ...

                                               

পদার্থবিজ্ঞান

পদার্থবিজ্ঞান পদার্থ ও তার গতির বিজ্ঞান। বাংলায় "পদার্থবিজ্ঞান" শব্দটি একটি সমাসবদ্ধ পদ। পদার্থ ও বিজ্ঞান দুটি সংস্কৃত শব্দ নিয়ে এটি গঠিত। এর ইংরেজি পরিভাষা Physics শব্দটি গ্রিক φύσις অর্থাৎ "প্রকৃতি", এবং φυσικῆ অর্থাৎ "প্রকৃতি সম্পর্কিত জ্ঞান ...

                                               

পদার্থবিজ্ঞানী

পদার্থবিজ্ঞানী হলেন এমন একজন বিজ্ঞানী যিনি পদার্থবিজ্ঞানের ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ। পদার্থবিজ্ঞানীরা সাধারণত ঘটনার মূল কারণের প্রতি আগ্রহী হন এবং সাধারণত গাণিতিকভাবে ঘটনাগুলোকে বোঝার চেষ্টা করেন। পদার্থবিজ্ঞানীরা বিভিন্ন গবেষণা ক্ষেত্র জুড়ে কাজ করেন। ...

                                               

পদার্থের বৈশিষ্ট্যাবলীর তালিকা

ইয়ং গুনাঙ্ক আপেক্ষিক গুণাঙ্ক Specific modulus টেনজাইল স্ট্রেংথ Tensile strength কম্প্রেসিভ স্ট্রেংথ Compressive strength শেয়ার স্ট্রেংথ Shear strength ইল্ড স্ট্রেংথ Yield strength নমনীয়তা Ductility পয়জন এর অনুপাত Poissons ratio) আপেক্ষিক ওজন ...

                                               

পয়সনের অনুপাত

পয়সনের অনুপাত বা পোয়াসোঁর অনুপাত হল যেকোনো পদাৰ্থের পাৰ্শ্বীয় বিকৃতি ও দৈৰ্ঘ্য বিকৃতির মাঝের অনুপাত। একে গ্ৰীক অক্ষর ν {\displaystyle \nu } দ্বারা সূচিত করা হয়। ১৮২৭ সালে সাইমন ডেনিস পয়সন নামক একজন ফরাসি পদাৰ্থবিজ্ঞানী তথা গণিতজ্ঞ একটি গবেষণ ...

                                               

পরমাণু

রাসায়নিক মৌলের ক্ষুদ্রতম অংশ যার স্বাধীন অস্তিত্ব নেই, কিন্তু রাসায়নিক বিক্রিয়ায় সরাসরি অংশ গ্রহণ করতে পারে সেসব আণুবীক্ষণিক কণিকাদিকে পরমাণু বলে । সমস্ত কঠিন, তরল, গ্যাস এবং আয়ন -এর গঠনের মূলে রয়েছে নিস্তরিত বা আধানগ্রস্ত পরমাণু । পরমাণুর ...

                                               

পর্যাবৃত্ত গতি

গতিশীল কণার গতি যদি এমন হয় যে এটি এর গতিপথের কোন নির্দিষ্ট বিন্দুকে একটি নির্দিষ্ট সময় পর একই দিক হতে অতিক্রম করে তবে সে গতিকে পর্যাবৃত্ত গতি বলে। এ গতি বৃত্তাকার, উপবৃত্তাকার, সরল রৈখিক বা আরো জটিল হতে পারে। আমাদের হৃৎপিন্ডের স্পন্দন পর্যাবৃত্ ...

                                               

পাউলি মেট্রিক্স

পাউলি মেট্রিক্স বলতে এক সেট মেট্রিক্সকে বোঝায়, প্রতিটি স্থান মাত্রার জন্য একটি করে। মেট্রিক্সগুলো হলো: σ 1 = σ x = 0 1 0 {\displaystyle \sigma _{1}=\sigma _{x}={\begin{pmatrix}0&1\\1&0\end{pmatrix}}} σ 2 = σ y = 0 − i 0 {\displaystyle \s ...

                                               

পারমাণবিক তত্ত্ব

পারমাণবিক তত্ত্ব বা পরমাণুবাদ হচ্ছে পদার্থের ধর্ম সম্পর্কিত একটি বৈজ্ঞানিক ধারণা। রসায়নশাস্ত্র ও পদার্থবিজ্ঞানের পরিভাষায়, মহাবিশ্বের প্রতিটি বস্তুই অতি ক্ষুদ্র কণা দ্বারা গঠিত। এই ক্ষুদ্র কণাকে পরমাণু নামকরণ করা। পরমাণু অর্থ পরম বা অতি ক্ষুদ্র ...

                                               

পারমাণবিক ভর

পারমাণবিক ভর হলো কোন মৌলিক পদার্থের একটি পরমাণুর ভর। পারমাণবিক ভরকে অনেকসময় একীভূত পারমাণবিক ভর একক হিসেবেও প্রকাশ করা হয়। পদার্থের অণুর ক্ষেত্রও একই রকম সংজ্ঞা প্রদান করা যায়। তখন এটিকে আণবিক ভর নামে ডাকা হয়। কোন পদার্থের আণবিক ভর এর পরমাণুগ ...

                                               

পিঞ্চ ক্রিয়া

দুটি সমান্তরাল পরিবাহকের মধ্য দিয়ে একই দিকে বিদ্যুৎ প্রবাহ ঘটলে পরিবাহকযুগলের মধ্যে যে চৌম্বকীয় আকর্ষণ দেখা যায়, তাকেই পিঞ্চ ক্রিয়া বলে। এই বল প্রথমদিককার আবেশ চুল্লী-গুলিতেই দেখা গিয়েছিল। ১৯৪০ সাল থেকে শুরু করে তাপ-নিউক্লীয় বিক্রিয়ক-এর মধ ...

                                               

পীড়ন

একটি মান নির্দেশ করে। কোন বস্তুর ওপর বাইরে থেকে বল প্রয়োগ করা হলে বস্তুর আকার বা আয়তনে পরিবর্তন ঘটে। এই পরিবর্তন কে বাধা দেওয়ার জন্য ঐ বস্তুর ভেতর থেকে এক ধরনের বাধা দানকারী বলের সৃষ্টি হয়। বস্তুর প্রতি একক ক্ষেত্রফল বরাবর লম্বভাবে সৃষ্ট বাধা ...

                                               

পূর্ণ অভ্যন্তরীণ প্রতিফলন

ঘন মাধ্যম থেকে লঘু মাধ্যমে প্রতিসৃত হওয়ার সময় আলোক রশ্মি দুই মাধ্যমে বিভেদ তলে মাধ্যম দুটির সংকট কোণ অপেক্ষা বেশি কোণে আপতিত হলে আপতিত আলোকরশ্মির প্রায় সবটুকু অংশই বিভেদ তল থেকে প্রতিফলিত হয়ে পুনরায় ঘন মাধ্যমে ফিরে আসে। এই আলোকীয় ঘটনাকেই অভ ...

                                               

প্যারাচৌম্বক পদার্থ

প্যারাচুম্বকত্ব হলো চুম্বকত্বের একটি ধরণ যেখানে কিছু পদার্থ বাহ্যিক ভাবে প্রযুক্ত চৌম্বক ক্ষেত্রের দিকে দুর্বলভাবে আকর্ষীত হয় এবং প্রযুক্ত চৌম্বক ক্ষেত্রের দিকে একটি প্রণোদিত চুম্বক ক্ষেত্র উৎপন্ন করে। এমন বৈশিষ্টের বিপরীতে, ডায়াচৌম্বক পদার্থগু ...

                                               

প্রতিফলন (পদার্থবিজ্ঞান)

যে সকল বস্তু নিজে থেকেই আলো বিকিরন করে তাদেরকে আলোক উৎস বলা হয় । এই আলোক উৎস দুই ধরনের হতে পারে - i)স্বপ্রভ বা স্বয়ংপ্রভ উৎস ও ii)নিষ্প্রভ বা অপ্রভ উৎস । স্বপ্রভ বা স্বয়ংপ্রভ উৎস হল সেইসব আলোক উৎস বা বস্তু যেগুলি নিজের আলো নিজেই বিকিরণ করে অর্ ...

                                               

প্রান্তিক বেগ

প্রান্তিক বেগ তরলের মাধ্যমে পড়ার সাথে সাথে কোনও বস্তুর দ্বারা সর্বাধিক বেগ অর্জন করা হয় । কোনো সান্দ্র প্রবাহী যদি কোনো গোলক অভিকর্ষের প্রভাবে পতিত হয় তাহলে শুরুতে অভিকর্ষজ ত্বরণের জন্য এর বেগ বৃদ্ধি পেতে থাকে কিন্তু যুগপৎভাবে এর উপর বাধাদানকা ...

                                               

প্রাবল্য (পদার্থবিজ্ঞান)

পদার্থবিজ্ঞানে, বিকিরিত শক্তির প্রাবল্য বলতে প্রতি একক ক্ষেত্রফলে স্থানান্তরিত শক্তি বোঝায়, যেখানে ক্ষেত্রফল পরিমাপ করা হয় শক্তি স্থানান্তরের দিকের সাথে লম্বভাবে অবস্থিত সমতল বরাবর। এস.আই পদ্ধতিতে এর একক ওয়াট প্রতি বর্গমিটার । বিভিন্ন তরঙ্গ, য ...